বিশ্বের প্রথম করোনা ভ্যাকসিন অনুমোদন দিলাে রাশিয়া, নিলেন প্রেসিডেন্ট পুতিনকন্যা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে করোনা ভাইরাসের (কোভিড-১৯) ভ্যাকসিন অনুমোদন দিল রাশিয়া।মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ভ্যাকসিন অনুমোদনের ঘোষণা দেন।

তার কন্যা ইতোমধ্যে এ ভ্যাকসিন নিয়েছে বলেও জানান তিনি। এ খবর জানিয়েছে রাশিয়ার সংবাদ মাধ্যম আরটি।
পুতিন এসময় বলেন, ভ্যাকসিনটি বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতি এ ভাইরাস ঠেকাতে কার্যকর প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়তে সক্ষম।

পুতিন ফেসবুক পোস্টে জানিয়েছেন, কোভিড-১৯ এর ভ্যাকসিন আবিষ্কারের পথে রুশ বিজ্ঞানীরা পরীক্ষা-নিরীক্ষার সব ধাপ পার হয়ে এসেছেন। তারা প্রমাণ করেছেন এই ভ্যাকসিন নিরাপদ ও কার্যকর।

রুশ প্রেসিডেন্ট বলেন, আমাদের ওষুধটি এই মহামারির বিরুদ্ধে খুব কার্যকর এবং এটি শুধু রাশিয়ার জন্য আশা জাগায়নি, গোটা বিশ্বের জন্যই সুখবর নিয়ে এসেছে। একসময় সোভিয়েত ইউনিয়নের স্যাটেলাইটই মানবজাতিকে মহাশূন্যে নিয়ে গিয়েছিল। এবার রাশিয়ান এই ভ্যাকসিনটি করোনামুক্ত বিশ্বের পথ দেখাবে।

এর আগে রাশিয়ার স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ওলেগ গ্রিদনেভ জানিয়েছিলেন, আগামী ১২ আগস্ট সরকারিভাবেন করোনা ভ্যাকসিনের রেজিস্ট্রেশন দেওয়া হবে। এর আগে শেষ মুহূর্তে দেখে নেওয়া হচ্ছে এই ভ্যাকসিন মানুষের শরীরে নিরাপদ কি-না। সবার আগে স্বাস্থ্যকর্মী ও বয়স্কদের এই ভ্যাকসিন দেওয়া হবে।

চলতি বছরেই সাড়ে চার কোটি ডোজ ভ্যাকসিন তৈরি করবে রাশিয়া।

দেশে এক মাসে ধর্ষণের শিকার ১০৭ নারী-শিশু

নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশে গত জুলাই মাসে ১০৭ জন নারী ও শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। আর সবমিলে এই এক মাসে ২৩৫ জন নারী ও কন্যাশিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ।

মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানু স্বাক্ষরিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। দেশের ১৩টি জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত ঘটনার তথ্যের ভিত্তিতে এই প্রতিবেদন তৈরি করেছে সংস্থাটি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ অনুসারে ২০২০ সালের জুলাই মাসে মোট ২৩৫ জন নারী ও কন্যাশিশু নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। এরমধ্যে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ১০৭ জন। এরমধ্যে আবার গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন ১৪ জন।

সংস্থাটি বলছে, এই এক মাসে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে তিনজনকে। এছাড়া ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে নয়জনকে। এছাড়া ১০৭টি ধর্ষণের ঘটনার মধ্যে শিশু ছিল ৭২ জন।

জুলাই মাসে শ্লীলতাহানির শিকার হয়েছেন তিনজন নারী। নারী অপহরণের ঘটনা ঘটেছে মোট পাঁচটি। বিভিন্ন কারণে হত্যা করা হয়েছে ৪৬ জন নারী ও কন্যাশিশুকে।

যৌতুকের কারণে নির্যাতনের শিকার হয়েছেন ১৫ জন। এরমধ্যে যৌতুকের কারণে হত্যা করা হয়েছে সাতজনকে। গৃহপরিচারিকা নির্যাতনের শিকার হয়েছেন ছয়জন। শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন চারজন।

এছাড়া বিভিন্ন নির্যাতনের কারণে ১০ জন আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছেন এবং আত্মহত্যার প্ররোচণার শিকার হয়েছেন আরও দুইজন। ১৮ জনের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে এবং বাল্যবিয়ের শিকার হয়েছেন পাঁচজন। আর পাঁচ কন্যাশিশু সাইবার ক্রাইমের শিকার হয়েছে বলেও জানানো হয়েছে প্রতিবেদনে।

জি-৭ সম্মেলন স্থগিত করলেন ডােনাল্ড ট্রাম্প

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বিশ্বের শিল্পোন্নত দেশগুলোর জোটের জি-৭ আসন্ন সম্মেলন স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আগামী ৩ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন পর্যন্ত সম্মেলনটি স্থগিত রাখার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ট্রাম্প নিজেই এ তথ্য জানিয়েছেন।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, বিদ্যমান করোনা মহামারির ফলে এর আগেই আরও এক দফা সম্মেলনটি পেছানো হয়েছিল। এবার ট্রাম্প দ্বিতীয় দফা এটি পেছানোর কথা বললেন। ট্রাম্প ‘আহ্বান জানানো’র কথা বললেও তার দেশই এবারের আয়োজক হওয়ায় বস্তুত সম্মেলনটি যে আরেক দফা পেছাল; তা অনেকটাই নিশ্চিত।

সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ট্রাম্প বলেন, আমি চাই সম্মেলনটি আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের পরে হোক। তাই আগামী বছরের সেপ্টেম্বরে এর আয়োজন করা হবে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট আরও জানান, আয়োজক দেশ হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত জোটের অন্য সদস্য দেশগুলোর নেতাদের আনুষ্ঠানিকভাবে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। যদিও তাদের সঙ্গে যোগাযোগ চলছে। তবে সদস্য দেশগুলোর বাইরে জোটের সদস্য নয় এমন দেশগুলোর নেতাদেরও দাওয়াত পাঠানো হবে।

জোটের বাইরে বিশেষ করে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে আমন্ত্রণ জানানোর কথা জানান ট্রাম্প। তার ভাষায়, নিশ্চিতভাবেই তাকে (পুতিন) আমন্ত্রণ জানাব। আমি মনে করি, তিনি এখানে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাক্টর।

দীর্ঘদিন ধরেই রাশিয়াকে ফের জি-৭-এ ফেরাতে চাইছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে তার এমন দাবি বরাবরই প্রত্যাখ্যান করেছে জার্মানিসহ জোটের অন্য দেশগুলো।

২০১৪ সালে রাশিয়া ক্রিমিয়া দখল করলে পশ্চিমা দেশগুলো এর জোরালো প্রতিবাদ জানায়। ওই দখলদারিত্বের জেরে একই বছর দেশটিকে শিল্পোন্নত দেশগুলোর জোট জি-৮ থেকে বহিষ্কার করা হয়। ফলে আবারও স্নায়ুযুদ্ধের সময়ের জি-৭ জোট নামে আগের পরিচিতি ফিরে পায় এই জোট।

আমাদের এগিয়ে যাওয়ার মূলমন্ত্র হচ্ছে সামাজিক সখ্য ও ঐক্য : ওবায়দুল কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আমাদের এগিয়ে যাওয়ার মূলমন্ত্র হচ্ছে সামাজিক সখ্য ও ঐক্য। এগুলো ধরে রেখেই বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তুলতে হবে। অসাম্প্রদায়িক চেতনার মধ্য দিয়েই সমৃদ্ধির সোপান গড়ে তুলতে হবে।

মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) রাজধানীতে এক অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, দেশের উন্নয়নে যেমন প্রয়োজন অভ্যন্তরীণ স্থিতিশীলতা, তেমনই প্রয়োজন প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে সুসম্পর্ক। আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে কোনো দেশই প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে খারাপ সম্পর্ক রেখে এগোতে পারে না। শেখ হাসিনা সরকার ও ভারতের নরেন্দ্র মোদি সরকারের সম্পর্ক সময়ের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ। দুই দেশের সম্পর্ক একাত্তরের রক্তের রাখিবন্ধনে আবদ্ধ।

কাদের বলেন, প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে ভালো বোঝাপড়া থাকলে অনেক অমীমাংসিত ইস্যু সহজেই সমাধান সম্ভব, যার প্রমাণ বাংলাদেশ ও ভারত। দীর্ঘদিনের সীমান্ত সমস্যা সমাধানে শান্তিপূর্ণভাবে ছিটমহল বিনিময় দুই দেশের পারস্পরিক আস্থাকে আরো বাড়িয়ে তুলেছে।

স্বর্ণের সাথে নামছে রুপাও

ডেস্ক রিপাের্ট : বিশ্ববাজারে স্বর্ণের অস্বাভাবিক বাড়ার পর দাম কমতে শুরু করেছে। গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে বড় দরপতনের পর চলতি সপ্তাহের প্রথম দুই কার্যদিবসেও স্বর্ণের দামে পতন হয়েছে। তবে এখনও প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম দুই হাজার ডলারের ওপরে রয়েছে।

এদিকে স্বর্ণের পাশাপাশি দরপতন হয়েছে রুপারও। সম্প্রতি স্বর্ণের পাশাপাশি রুপার দামে অস্বাভাবিক উত্থান হয়। এতে সাত বছরের মধ্যে রুপার দাম সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছে যায়। এই রেকর্ড দামে পৌঁছানোর পরই রুপার দাম কমতে শুরু করে।

মহামারি করোনাভাইরাসের প্রকোপের মধ্যে চলতি বছরের শুরু থেকেই স্বর্ণের দাম লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ে। তবে জুলাই মাসের শেষার্ধ্ব থেকে স্বর্ণের দাম বাড়ার পালে নতুন হাওয়া লাগে। এতে সৃষ্টি হয় একের পর এক রেকর্ড। এতে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম ইতিহাসে প্রথমবারের মতো দুই হাজার ডলারে পৌঁছায়।

এদিকে রুপার দামেও বড় উত্থান হয়। তবে চলতি বছরের শুরুর দিকে রুপার দাম বাড়ার ক্ষেত্রে তেমন চমক ছিল না। কিন্তু জুলাই মাসের শেষার্ধ্বে এসে হঠাৎ করেই হু হু করে বাড়তে থাকে রুপার দাম। এতে ২০১৩ সালের মার্চের পর রুপার দাম সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছে যায়।

তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, চলতি বছরের শুরু থেকেই বিশ্ববাজারে উত্তাপ ছড়ানো স্বর্ণের দাম জুলাই মাসের শেষার্ধ্বে এসে পাগলা ঘোড়ার মতো ছুটতে থাকায় মূল্যবান ধাতুটি ২৭ জুলাই অতীতের সকল রেকর্ড ভেঙে সর্বোচ্চ দামের নতুন ইতিহাস সৃষ্টি করে। তবে এখানেই স্বর্ণের দাম বাড়ার প্রবণতা থেমে থাকেনি। দফায় দফায় দাম বেড়ে গত সপ্তাহে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম রেকর্ড দুই হাজার ৭৪ ডলারে ওঠে।

রেকর্ড এই দামে ওঠার পর কমতে থাকে স্বর্ণের দাম। গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস শুক্রবার ৩৪ দশমিক ১০ ডলার কমে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম দুই হাজার ৩৪ দশমিক ৮০ ডলারে নেমে আসে।

এরপর চলতি সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস সোমবারও স্বর্ণের দরপতন হয়। এদিন প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম ছয় ডলার কমে যায়। আর মঙ্গলবার লেনদেনের শুরুতেই প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম ১০ ডলার কমে গেছে। এতে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম দাঁড়িয়েছে দুই হাজার ১৮ ডলারে।

এই দরপতনের ফলে সপ্তাহের ব্যবধানে দশমিক ৪৩ শতাংশ কমে গেছে স্বর্ণের দাম। তবে এখনও মাসের ব্যবধানে ১২ দশমিক শূন্য ২ শতাংশ এবং বছরের ব্যবধানে ৩৩ দশমিক ৫৫ শতাংশ বেশি রয়েছে স্বর্ণের দাম।

এদিকে বছরের শুরুর দিকে স্থিতিশীল থাকলেও জুলাই মাসের শেষার্ধ্বে স্বর্ণের দেখানো পথে হাঁটতে শুরু করে রুপা। হু হু করে দাম বেড়ে প্রতি আউন্স রুপার দাম ২৮ দশমিক ২৬ ডলারে পৌঁছে যায়। এর মাধ্যমে ২০১৩ সালের মার্চের পর প্রতি আউন্স রুপার দাম আবার ২৮ ডলার ছাড়িয়ে যায়।

স্বর্ণের মতো রেকর্ড দামে পৌঁছে গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস থেকে রুপার দামেও পতন শুরু হয়। শুক্রবার বিশ্ববাজারে রুপার ৪ দশমিক ৭৫ শতাংশ দরপতন হয়। দরপতনের এই ধারা চলতি সপ্তাহেও অব্যাহত রয়েছে। মঙ্গলবার লেনদেনের শুরুতে প্রতি আউন্স রুপার দাম দশমিক ১৮ ডলার বা দশমিক ৬৩ শতাংশ কমে গেছে।

এই দরপতনের পরও সপ্তাহের ব্যবধানে এখনও রুপার দাম ১০ দশমিক ৭৫ শতাংশ বেশি রয়েছে। পাশাপাশি মাসের ব্যবধানে ৫১ দশমিক ৪৪ শতাংশ এবং বছরের ব্যবধানে ৬৯ দশমিক ৬৬ শতাংশ বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে রুপা।

করোনার মধ্যেও দেশে মাথাপিছু আয় বেড়েছে ১৫৫ ডলার

ডেস্ক রিপাের্ট : করোনাভাইরাসের কারণে বিশ্বে অর্থনীতির টালমাটাল অবস্থা। তারপরও বিদায়ী ২০১৯-’২০ অর্থবছরে দেশের মাথাপিছু আয় বেড়েছে ১৫৫ মার্কিন ডলার। বর্তমানে মাথাপিছু আয় দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৬৪ মার্কিন ডলারে।

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস) এই তথ্য প্রকাশ করেছে। তাদের তথ্য মতে, ২০১৬-১৭ অর্থবছরে দেশের মাথাপিছু আয় ছিল ১ হাজার ৬১০ ডলার, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ১ হাজার ৭৫১ ডলার, ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ১ হাজার ৯০৯ ডলার এবং ২০১৯-২০ অর্থবছরে ২ হাজার ৬৪ ডলার।

এদিকে, বিবিএস জানিয়েছে, মহামারি করোনার মধ্যেও বিদায়ী ২০১৯-২০ অর্থবছরে মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়েছে ৫ দশমিক ২৪ শতাংশ।

তাদের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৬-১৭ অর্থবছরে জিডিপির প্রবৃদ্ধি ছিল ৭ দশমিক ২৮ শতাংশ, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ৭ দশমিক ৪৬ শতাংশ এবং ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ৮ দশমিক ১৫ শতাংশ জিডিপির প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছিল বাংলাদেশ।

যদিও করোনার কারণে সারাবিশ্বেই জিডিপির প্রবৃদ্ধি তলানিতে নেমেছে। বাংলাদেশেও এর প্রভাব পড়েছে। ফলে প্রতিবছর জিডিপির আকার বাড়তে থাকলেও এ বছর কমেছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বুলেটিন – দেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ৩৩ জন, আক্রান্ত ২ হাজার ৯৯৬

নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশে করোনায় (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে আরও ৩৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মারা গেছেন ৩ হাজার ৪৭১ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ৯৯৬ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৬৩ হাজার ৫০৩ জন।

মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) দুপুরে রাজধানীর মহাখালীতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে মিডিয়া বুলেটিনে এ তথ্য জানান অতিরিক্ত মহা-পরিচালক অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা।

অতিরিক্ত মহা-পরিচালক জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ১৪ হাজার ৮২০ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে সর্বোচ্চ ২ হাজার ৯৯৬ জনের দেহে কোভিড-১৯ সংক্রমণ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৬৩ হাজার ৫০৩ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। করোনায় এ পর্যন্ত ৩ হাজার ৪৭১ জনের মৃত্যু হয়েছে।

অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিড-১৯ সংক্রমণ থেকে মুক্ত হয়েছেন ১ হাজার ৫৩৫ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ১ লাখ ৫১ হাজার ৯৭২ জন।

এদিকে সারা বিশ্বে এখন পর্যন্ত ২ কোটি ১১ হাজার ১৮৬ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন ৭ লাখ ৩৪ হাজার ৬৬৪ জন। বিপরীতে সেরে উঠেছেন ১ কোটি ৩১ লাখ ৫৭ হাজার ৫৬ জন। বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ৪৭১ জনের। মোট আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৬৩ হাজার ৫০৩ জন।

নতুন সমীক্ষা, বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় ক্রিকেটার বিরাট কোহলি

স্পোর্টস ডেস্ক : গোটা বিশ্বের ক্রিকেটারদের মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। এই ধারণা এবার প্রমাণিত হল এক সমীক্ষায়। তবে শুধু বিরাট নন, তার সতীর্থরাও অন্যান্য বিদেশি খেলোয়াড়দের তুলনায় এগিয়ে। বিশ্বের জনপ্রিয় ক্রিকেটারদের তালিকায় প্রথম দশে থাকা খেলোয়াড়দের মধ্যে ছ’জনই ভারতীয়।

এসইএম রাশ নামে একটি সংস্থার করা অনলাইন সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, বিশ্বের সমস্ত ক্রিকেটারদের মধ্যে ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলির নামই সবচেয়ে বেশিবার অনলাইনে সার্চ করা হয়েছে। তালিকায় দ্বিতীয় এবং তৃতীয় স্থানে রয়েছেন যথাক্রমে রোহিত শর্মা এবং সাবেক ভারত অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি। এছাড়াও তালিকায় রয়েছেন হার্দিক পা-িয়া মাস্টার ব্লাস্টার শচীন টেন্ডুলকার এবং শ্রেয়স আইয়ারের নামও।

ওই সমীক্ষায় আরও জানানো হয়েছে, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত প্রতি মাসে ১৬ লাখ বার বিরাট কোহলির নাম অনলাইনে সার্চ করা হয়েছে। রোহিতের নাম সার্চ করা হয়েছে প্রতি মাসে ৯.৭ লাখ বার এবং ধোনির নাম এক মাসে ৯.৪ লাখ বার খুঁজেছেন ভক্তরা। এর পাশাপাশি জনপ্রিয়তার দিক থেকে ভারতীয় দলও অন্যান্যদের তুলনায় অনেক এগিয়ে।

টিম ইন্ডিয়াকে যেখানে প্রতি মাসে ২.৪ লাখ বার সার্চ করা হয়েছে, সেখানে বাকিরা অনেকটাই পিছনে। তবে উল্লেখযোগ্যভাবে তালিকায় উঠে এসেছে মহিলা ক্রিকেটারদের নামও। প্রথম দশে না থাকলেও স্মৃতি মন্দানা এবং এলিস পেরি জনপ্রিয়তার দিক থেকে রয়েছেন ১২ ও ২০ নম্বরে।

উমর আকমলের শাস্তি বাড়াতে আপিল করবে পিসিবি

স্পোর্টস ডেস্ক : উমর আকমলের নিষেধাজ্ঞা কমানোর বিরুদ্ধে আপিল করবে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। সোমবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এমনটাই জানিয়েছে তারা।

পাকিস্তান সুপার লিগে (পিএসএল) ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাব পেয়েও তা যথাযথ কর্তৃপক্ষকে না জানানোয় তাকে তিন বছর নিষিদ্ধ হন এই পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান। এই শাস্তির বিরুদ্ধে আপিল করেন আকমল।

স্বাধীন বিচারকের দায়িত্বে এ বিরোধ নিষ্পত্তির ভার চেপেছিল দেশটির সুপ্রীম কোর্টের সাবেক বিচারপতি ফকির মোহাম্মদ খোখারের ওপর। লাহোরে এক শুনানির পর উমরের শাস্তি ১৮ কমানো হয়। আদালতের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধেই আপিল করছে পিসিবি। তারা জানিয়েছে, উমরের মতো একজন অভিজ্ঞ ক্রিকেটারের এমন অপরাধ বোর্ডের জন্য সম্মানজনক নয়। নিয়ম লঙ্ঘনকারী কারো জন্য পিসিবির সহানুভূতি নেই।- ক্রিকফ্রেঞ্জি

পিসিবি তাদের বিজ্ঞপ্তিতে বলেছে, উমরের মতো একজন ক্রিকেটার দুর্নীতির দায়ে নিষিদ্ধ হয়েছে এটা পিসিবির জন্য সম্মানজনক নয়। কিন্তু একটি বিশ্বাসযোগ্য ও সম্মানজনক প্রতিষ্ঠান হিসাবে আমাদের সকল অংশীদারদের একটি স্পষ্ট বার্তা পাঠানো দরকার যে কোনো নিয়মভঙ্গকারীর জন্য আমাদের কোনো সহানুভূতি থাকবে না।

ম্যাচ ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পেয়ে তা গোপন করে গত ২০ ফেব্রুয়ারি নিষিদ্ধ হন উমর। তিনি গত বছর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সর্বশেষ পাকিস্তানের হয়ে খেলেছিলেন। – ক্রিকইনফো/ ক্রিকফ্রেঞ্জি

কোভিড আক্রান্তদের জন্য আর্জেন্টিনার হাসপাতালে ভেন্টিলেটর দিলেন মেসি

স্পোর্টস ডেস্ক : চ্যাম্পিয়ন্স লিগ নিয়ে এই মুহূর্তে ব্যস্ত সময় কাটছে লিওনেল মেসির। এর মধ্যেও দেশের মানুষের প্রয়োজনের সময় সাড়া দিয়েছেন এই আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। করোনাভাইরাস আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য আর্জেন্টিনার হাসপাতালগুলোকে ভেন্টিলেটর পাঠিয়েছেন।

চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া কোভিড-১৯ ভাইরাসে নাজেহাল পুরো বিশ্ব। আক্রান্তের হার বাড়তে থাকায় জটিল পরিস্থিতির মধ্যে আছে আর্জেন্টিনা। দেশটির হাসপাতালগুলোতে প্রয়োজনীয় রসদের চাহিদা বাড়ছে। এ জন্য নিজের নামে গড়া লিও মেসি ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে আর্জেন্টিনার হাসপাতালগুলোকে ভেন্টিলেটর দিয়েছেন মেসি।

দক্ষিণ আমেরিকার বর্তমান করোনাভাইরাস পরিস্থিতি খুবই খারাপ। গত মার্চের শেষ দিকে যেমন স্পেনের সবকিছু ধসে গিয়েছিল, তেমন ঝুঁকির মধ্যে আছে আর্জেন্টিনা। প্রথম ধাপে গত শুক্রবার ৫০টি ভেন্টিলেটরের মধ্যে ৩২টি রোজারিওতে পৌঁছেছে।

ব্যক্তিগতভাবেও মেসি করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য ১০ লাখ ইউরোর বেশি কাতালুনিয়া ও আর্জেন্টিনায় অনুদান দিয়েছেন।- বিডিনিউজ