স্যানিটাইজার থেকে আগুন: দগ্ধ চিকিৎসক দম্পতি

ডেস্ক রিপাের্ট : রাজধানীর হাতিরপুলে এক চিকিৎসক দম্পতি দগ্ধ হয়েছে। স্যানিটাইজার থেকে আগুন ধরে এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে বলে স্বজনেরা জানিয়েছেন। তবে এই দম্পতির মধ্যে পারিবারিক কলহ ছিল বলে জানা যায়।

দগ্ধ দম্পতি ডা. রাজিব ভট্টাচার্য (৩৬) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের নিউরো সার্জারি বিভাগের চিকিৎসক। তার স্ত্রী ডা. অনূসূয়া ভট্টাচার্য (৩২) শ্যামলী সেন্ট্রাল মেডিকেল চক্ষু বিভাগের রেজিস্টার।

তাদের স্বজনেরা জানান, রাজিবের বাড়ি কুমিল্লার দেবীদ্বার উপজেলার ইস্টগ্রামে। একমাত্র মেয়ে রাজশ্রী ভট্টাচার্যকে (৫) নিয়ে হাতিরপুল ইস্টার্ন প্লাজার পেছনের একটি ভাড়া বাসায় থাকেন। তার বাবার নাম লক্ষণ ভট্টাচার্য। ১ ভাই ২ বোনের মধ্যে রাজিব সবার ছোট। স্ত্রী অনূসূয়ার বাড়ি সিলেট।

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন জানান, রাজিবের শ্বাসনালীসহ শরীরের ৮৭ শতাংশ ও তার স্ত্রীর ২০ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। রাজিবকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়েছে। তার অবস্থা শঙ্কটাপন্ন। স্ত্রীর অবস্থাও গুরুতর। আমরা যতটুকু শুনেছি বাসার ভেতর হ্যান্ড স্যানিটাইজারে আগুনের সংস্পর্শে এই অগ্নিদগ্ধের ঘটনা ঘটেছে।

হাসপাতালে দগ্ধ রাজিবের বন্ধু ডা. সুদীপ দে জানান, গতরাত দেড়টার দিকে বাসায় রাজিব একটি বড় বোতল থেকে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ছোট বোতলে ঢালছিলেন। তখন বোতল থেকে স্যানিটাইজার পড়ে গেলে মুখে সিগারেট বা মশার কয়েলের আগুনের সংস্পর্শে তার শরীরে আগুন ধরে যায়। এটি দেখতে পেরে তার স্ত্রী সম্ভবত তাকে বাঁচাতে গিয়ে সেও দগ্ধ হয়। পরে তাদের চিৎকারে আশপাশের ভাড়াটিয়ারা তাদের উদ্ধার করে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনিস্টিটিউটে ভর্তি করেন।

দগ্ধ ডা. রাজিবের চাচাতো বোন তপু ভট্টচার্য জানান, ওই বাসায় তারা স্বামী-স্ত্রী ও মেয়ে, এবং রাজিবের বাবা পাশের একটি রুমে থাকেন। তাদের মেয়ে রাজশ্রী ভট্টাচার্যকে ৩ সপ্তাহ আগে কুমিল্লায় দাদীর কাছে পাঠিয়ে দিয়েছিলেন।

চাচাতো বোন জানান, ৬ বছর আগে প্রেমের সম্পর্কে তাদের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই তাদের মধ্যে পারিবারিক কলহ ছিল। এটি শুধু একটি দুর্ঘটনা বলে আমাদের মনে হচ্ছে না। অন্যকোনো কারণও থাকতে পারে বলে আমাদের ধারণা।

কথাশিল্পী ও সাংবাদিক রাহাত খান গুরুতর অসুস্থ, আইসিইউতে ভর্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক : কথাশিল্পী, ঔপন্যাসিক ও সাংবাদিক রাহাত খান গুরুতর অসুস্থ হয়ে সংকটাপন্ন অবস্থায় রাজধানীর বারডেম হাসপাতালে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

মঙ্গলবার সকালে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়।

এর আগে, সোমবার রাহাত খানকে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাহাত খানের স্ত্রী অপর্ণা খান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, রবিবার বাসায় খাট থেকে নামতে গিয়ে কোমরে ব্যথা পান তিনি। এরপর চিকিৎসকের পরামর্শে এক্স-রে করা হলে পাঁজরে গভীর ক্ষত ধরা পড়ে। তারপর থেকে বাসায় বিশ্রামে ছিলেন তিনি। কিন্তু মঙ্গলবার সকালে তার শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে জরুরি ভিত্তিতে তাকে বারডেম হাসপাতালের আইসিউতে ভর্তি করা হয়। তিনি দীর্ঘদিন ধরে হৃদরোগ, কিডনি, ডায়াবেটিস ইত্যাদি রোগ জটিলতায় ভুগছেন।

অপর্ণা খান জানান, করোনা প্রাদুর্ভাবের পর থেকে তিনি সার্বক্ষণিকভাবে বাসাতেই অবস্থান করছিলেন। তবে গত দুই তিন দিন ধরে তিনি খাবার গ্রহণ করতে পারছিলেন না।

এনআরবি বাংকের অর্থ আত্মসাতে ঘটনায় সাহেদসহ ৪ জনের নামে দুদকের মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক : এনআরবি ব্যাংকের প্রায় দেড় কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে চিকিৎসাসেবার নামে জালিয়াতিতে আলোচিত রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহেদসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বুধবার দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয় ঢাকা-১ এ মামলাটি দায়ের করেন কমিশনের প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক সিরাজুল হক।

মামলার অন্য আসামিরা হচ্ছেন- রিজেন্ট হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ইব্রাহিম খলিল, এনআরবি ব্যাংক প্রধান কার্যালয়ের এসএমই ব্যাংকিং শাখার সাবেক প্রিন্সিপাল অফিসার সোহানুর রহমান এবং একই ব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট ওয়াহিদ বিন আহমেদ।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দুদক পরিচালক জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব ভট্টাচার্য।

দুদকের অনুসন্ধান প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আসামিরা প্রতারণার মাধ্যমে এনআরবি ব্যাংক থেকে ২০১৪ সালের ৯ নভেম্বর থেকে ২০১৮ সালের ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত সুদসহ ১ কোটি ৫১ লাখ ৮১ হাজার ৩৬৫ টাকা আত্মসাৎ করেন। রিজেন্ট হাসপাতালের চলতি হিসাব খোলার সময় গ্রাহকের কাছ থেকে কোনো টাকা জমা নেওয়া হয়নি। সাহেদ ব্যাংকটির নতুন গ্রাহক ছিলেন। তিনি হিসাব খোলার এক দিন আগেই ব্যাংকটির প্রিন্সিপাল অফিসার সোহানুর রহমান ও ভাইস প্রেসিডেন্ট ওয়াহিদ বিন আহমেদ এসএমই ব্যাংকিং ঋণ মঞ্জুরির জন্য সুপারিশ করেন।

ঋণ মঞ্জুরির আগপর্যন্ত ওই হিসাবে কোনো লেনদেন ছিল না। সাহেদের হাসপাতাল ব্যবসার পূর্ব অভিজ্ঞতা ছিল না। অন্য কোনো ব্যাংকে বা অন্য কোনো ব্যবসায় সাহেদের কী ধরনের বিনিয়োগ বা লেনদেন ছিল সে সম্পর্কে কোনো তথ্য সংগ্রহ করা হয়নি।

ঋণের নিরাপত্তার জন্য পর্যাপ্ত জামানতও গ্রহণ করা হয়নি। ঋণ বিতরণের আগে বা পরে তদারকি করা হয়নি। গ্রাহকের ব্যবসায়িক সুনাম, ঐতিহ্য ও অভিজ্ঞতা যাচাই করা হয়নি। ঋণ মঞ্জুরিপত্রের শর্তানুযায়ী নির্ধারিত সময়ে কিস্তি পরিশোধ করা হয়নি। সাহেদ মঞ্জুরিপত্রের শর্তানুযায়ী এফডিআর করেছিলেন।

সাহেদ ঋণ পরিশোধ না করায় ব্যাংক তার ওই এফডিআর ক্লোজ করে ঋণ সমন্বয় করে। এতে দেখা যায়, সাহেদ স্বেচ্ছায় কখনো ঋণের টাকা পরিশোধ করেননি। তিনি অসৎ উদ্দেশ্যে ব্যাংকের টাকা আত্মসাতের জন্য ঋণ গ্রহণ করেছিলেন। তিনি অসৎ উদ্দেশ্যে ব্যাংকের টাকা আত্মসাতের জন্য দুটি টার্ম লোনে ২ কোটি টাকা ঋণ মঞ্জুরি নিশ্চিত হয়ে ১ কোটি টাকা এফডিআর করেন।

সাহেদসহ অন্যরা পরস্পর যোগসাজশে প্রতারণার মাধ্যমে ক্ষমতার অপব্যবহার করে এনআরবি ব্যাংকে দুটি টার্ম ঋণ রিশিডিউলসহ ২ কোটি ৪ লাখ ৯০ হাজার ৯৮৭ টাকা ঋণ বিতরণ ও গ্রহণ করেছেন। এ সময়ে ৬৫ লাখ ৭৯ হাজার ২২৭ টাকা সুদ ও অন্যান্য চার্জ ধার্য করা হয়েছে।

ওই সময়ের মধ্যে লিয়েনকৃত সাহেদের এফডিআর থেকে ১ কোটি ১৮ লাখ ৮৯ হাজার ৩৪৯ টাকা সমন্বয় করা হয়। অবশিষ্ট ব্যাংকের ১ কোটি ৫১ লাখ ৮১ হাজার ৩৬৫ টাকা আত্মসাতের বিষয়টি প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হয়েছে।

করোনা পরীক্ষার সনদ জালিয়াতিসহ নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে র‌্যাবের অভিযানে রিজেন্ট হাসপাতাল সিলগালা করে দেওয়ার পর সাহেদকে গ্রেপ্তার করা হয়। বর্তমানে তাকে গোয়েন্দা পুলিশের হেফাজতে রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

হিউস্টনে চীনা কনস্যুলেট বন্ধের আদেশ যুক্তরাষ্ট্রের, উত্তেজনা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বেইজিংয়ের সঙ্গে রাজনৈতিক উত্তেজনার কারণে টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের হিউস্টনের চীনা দূতাবাস শুক্রবারের মধ্যে বন্ধের আদেশ দিয়েছে মার্কিন প্রশাসন। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, আমেরিকার মেধাস্বত্ব রক্ষার জন্য এ আদেশ দেওয়া হয়েছে।

বুধবার এ খবর জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম বিবিসি। তবে মার্কিন সিদ্ধান্তে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে চীন। দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মুখপাত্র ওয়াং ওয়েনবিন বলেছেন, এটি আপত্তিজন ও অবিচার।

যুক্তরাষ্ট্রের এমন বিবৃতির পরে হিউস্টনে চীনা কনস্যুলেট ভবন থেকে ধোঁয়ার কুন্ডুলি উড়তে দেখা গেছে।

নিউইয়র্ক টাইমস বলছে, ধারণা করা হচ্ছে অফিস বন্ধ করার আগে চীনা কর্মকর্তারা তাদের নথিপত্র হয়ত পুড়িয়ে ফেলছেন।

কিছুদিন ধরে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে চীনের উত্তেজনা বেড়ে চলছে। করোনাভাইরাস নিয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসনের সঙ্গে চীনের বাণিজ্যযুদ্ধ চলার মধ্যেই হংকংয়ে নতুন বিতর্কিত নিরাপত্তা আইন চালুর পরেই দ্বন্দ্ব বেড়ে যায়।

এর আগে মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ বলেছে, চীন করোনাভাইরাস টিকা গবেষণায় হ্যাকিং করার চেষ্টা করেছে। দুজন চীনা নাগরিককে এই হ্যাকিংয়ে জড়িত থাকার জন্য অভিযুক্ত করা হয়েছে। তারা এসব তথ্য চুরির জন্য রাষ্ট্রীয় এজেন্টদের সহায়তা পেয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নেয়ার হুমকি চীনের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের হিউস্টনে চীনা কনস্যুলেট বন্ধের আদেশে ক্ষুব্ধ হয়েছে বেইজিং। দেশটি বলছে, যুক্তরাষ্ট্র যদি তার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন না করে, তাহলে চীন এর প্রতিশোধ নেবে। ট্রাম্প প্রশাসনের ৭২ ঘণ্টার মধ্যে কনস্যুলেট বন্ধের আদেশের পরই চীন তার অবস্থান জানিয়েছে।

দ্য গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হিউস্টনে চীনা কনস্যুলেট বন্ধের বিষয়টি বেইজিং ও ওয়াশিংটনের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক নতুন করে হুমকির সৃষ্টি করেছে। যুক্তরাষ্ট্রকে অভিযুক্ত করে চীন বলছে, ৭২ ঘণ্টার মধ্যে কনস্যুলেট বন্ধের আদেশ আশ্চর্যজনক ও একটি বিদ্বেষমূলক উত্তেজনা।

চীন বলছে, যুক্তরাষ্ট্র ২১ জুলাই (মঙ্গলবার) কনস্যুলেটের সব কার্যক্রম ও ইভেন্ট বন্ধ করতে বলেছিল। এ ঘটনায় বেইজিং হুমকি দিয়ে বলেছে, যদি এ সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা না হয়, তাহলে প্রতিশোধ নেবে চীন।

বুধবার সংবাদ সম্মেলনে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রীর মুখপাত্র ওয়াং ওয়েবিন বলেন, বেইজিং এ ঘটনায় কঠোরভাবে নিন্দা জানাচ্ছে, এটি আপত্তিজনক ও অবিচার; যা চীন-মার্কিন সম্পর্ককে তলানিতে নিয়ে ঠেকাবে।

তিনি বলেন, আমরা আহ্বান করছি এই ভ্রান্ত সিদ্ধান্ত দ্রুত প্রত্যাহার করতে, অন্যথায় চীন বৈধ ও প্রয়োজনীয় জবাব দেবে।

টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের হিউস্টনের চীনা দূতাবাস শুক্রবারের মধ্যে বন্ধের আদেশ দিয়েছে মার্কিন প্রশাসন। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, আমেরিকার মেধাস্বত্ব রক্ষার জন্য এ আদেশ দেয়া হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের এমন বিবৃতির পর হিউস্টনে চীনা কনস্যুলেট ভবন থেকে ধোঁয়ার কুণ্ডলি উড়তে দেখা গেছে।

নিউইয়র্ক টাইমস বলছে, ধারণা করা হচ্ছে অফিস বন্ধ করার আগে চীনা কর্মকর্তারা তাদের নথিপত্র হয়ত পুড়িয়ে ফেলছেন।

স্বাস্থ্যে অধিদপ্তরের পদত্যাগ করা ডিজি ও বর্তমান এডিজিকে ডিবির জিজ্ঞাসাবাদ

ডেস্ক রিপাের্ট : করোনা মোকাবেলায় ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রী-পিপিই মাস্ক সরবরাহে অনিয়মসহ নানা অভিযোগের মুখে সদ্য পদত্যাগ করা স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক (ডিজি) অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ।

একই সঙ্গে অধিদফতরটির বর্তমান অতিরিক্ত মহাপরিচালক (এডিজি) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানাকেও জিজ্ঞাসাবাদ করেছে ডিবি।

বুধবার বিকালে রাজধানীর মিন্টো রোডে ডিবি কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

ডিবির যুগ্ম-কমিশনার মাহবুব আলম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, জেকেজির প্রতারণা মামলায় গ্রেফতার ডা. সাবরিনার কাছ থেকে যেসব তথ্য পাওয়া গেছে সেসব নিয়ে এবং জেকেজিকে অনুমোদন দেয়ার বিষয়ে তাদের কাছ থেকে কিছু কাগজপত্র চেয়ে ডিবি কার্যালয়ে ডেকে আনা হয়। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।

কাভার্ডভ্যান-লেগুনার সংঘর্ষে নিহত ৬

ডেস্ক রিপাের্ট : কক্সবাজারের চকরিয়ায় কাভার্ডভ্যান ও লেগুনার মধ্যে সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই ৬ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও ৬ জন।

বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চকরিয়ার হারবাং বুড়ির দোকান এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহতদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশংকাজনক।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে দ্রুতগামী একটি কাভার্ডভ্যানের সঙ্গে একটি যাত্রীবাহী লেগুনার সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই ৫ জন মারা গেছেন।হাসপাতালে মারা গেছেন একজন। এ ঘটনায় আহতদের মধ্যে ৩ জনের অবস্থা আশংকাজনক। আহতদের স্থানীয় হাসপাতাল ও চট্টগ্রামে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

চকরিয়া থানার ওসি মো. হাবিবুর রহমান এ দুর্ঘটনায় ৬ জন নিহত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, নিহতদের পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে কেউ নিশ্চিত করতে পারেনি। তবে তারা হারবাং এলাকার হতে পারে। দুর্ঘটনাকবলিত গাড়ি দুটি পুলিশ আটক করেছে।

মোনালিসার সঙ্গে নাটকের শুটিং করতে যুক্তরাষ্ট্রে ছুটে গেলেন তাহসান

বিনােদন প্রতিবেদক : মার্চের পর থেকে করোনাজনিত লকডাউনের পুরো সময়টা বাসায় ছিলেন তাহসান। শুটিংয়ের জন্য একবারও বের হননি। ঘরে বসেই অংশ নেন বিদ্যা সিনহা মিমের বিপরীতে একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে।

এবার সোজা উড়ে গেলেন যুক্তরাষ্ট্রে। নিউইয়র্কের একাধিক লোকেশনে প্রবাসী অভিনেত্রী মোনালিসার সঙ্গে করলেন নাটকের শুটিং।

‘দেখা হবে’ শিরোনামের নাটকটি লিখেছেন মুনতাহা বৃত্তা। পরিচালনা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রে চলচ্চিত্র নিয়ে অধ্যয়নরত নির্মাতা হিমেল আশরাফ। আরও অভিনয় করেছেন বাপ্পী, এ্যারন পালমার, নোরা ও প্রীতম।

সাবেক প্রেমিক করোনায় আক্রান্ত হলে সাহায্য করতে ছুটে যায় এক তরুণী। তা নিয়েই ‘দেখা হবে’ নাটকের গল্প।

এ দিকে অনেক দিন পর শুটিংয়ে ফির উচ্ছ্বসিত নির্মাতা হিমেল আশরাফ। তিনি ফেইসবুকে লেখেন, “প্রায় দুই বছর পর শুটিং করলাম। একটু ভয় ভয় লাগছিল, পরে মনে হলো অস্ত্র জমা দিছি, ট্রেনিং তো জমা দেই নাই। আমেরিকাতে শুটিং অনেক ব্যায়বহুল, বিশেষ করে এই করোনাকালীন তার ওপর চার দিন শুটিং। কিন্তু সবার সহযোগিতায় ভালো কিছু হবে আশা করছি।”

ঈদুল আজহার বিশেষ অনুষ্ঠানমালায় ‘দেখা হবে’ প্রচার হবে আরটিভিতে।

চোট পেয়েছেন ঋতুপর্ণা

বিনােদন ডেস্ক : বাংলাদেশের স্বামী কেন আসামি, আমি সেই মেয়ে, রাঙা বউ, সাগরিকা থেকে শুরু করে একটি সিনেমার গল্পসহ অনেক ছবিতে অভিনয় করেছেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। কলকাতার এ অভিনেত্রী করোনা পরিস্থিতিতে সিঙ্গাপুরে পরিবারের সঙ্গে রয়েছেন। সেখানেই আহত হলেন।

আনন্দবাজার পত্রিকা জানায়, সাইকেল চালাতে গিয়ে কবজিতে বেকায়দায় মোচড় লাগে ঋতুর।

লকডাউনে নিজেকে ফিট রাখতেই নিয়মিত সাইকেল চালানো অভ্যাস হয়ে গেছে বলে জানালেন অভিনেত্রী।

অঘটন ঘটল কী করে? ঋতুপর্ণার কথায়, ‘‘চলন্ত সাইকেল নিয়ে ডান দিকে ইউ টার্ন নিতে গিয়েছিলাম। তখনই সামলাতে না পেরে বেকায়দায় মোচড় লাগে ডান হাতের কবজিতে। সঙ্গে সঙ্গে অবশ হয়ে যায় হাত, আঙুল। কবজির পাশাপাশি ডান হাতের তৃতীয় আঙুলেও চোট পেয়েছি।’’

বর্তমানে দ্রুত সুস্থ হয়ে ওঠার জন্য হাতে আকুপাংচারের সাহায্য নিচ্ছেন ঋতুপর্ণা। তাতে ব্যথা অনেকটাই বশে।

লকডাউনে কলকাতায় আপাতত কাজ না থাকলেও সিঙ্গাপুরে বসেই নিজের ইউটিউব চ্যানেল খুলেছেন ঋতুপর্ণা। সেখানে তিনি সিনেমা সংক্রান্ত নানা বিষয় নিয়ে নিয়মিত আলোচনায় যোগ দিচ্ছেন।

গত বছর মুক্তি পায় ঋতুপর্ণা প্রযোজিত ও অভিনীত ‘আহা রে’। এ ছবিতে তার বিপরীতে ছিলেন আরিফিন শুভ। নিয়মিত প্রেক্ষাগৃহের পাশাপাশি ছবিটি একাধিক উৎসবে প্রদর্শিত হয়েছে।

ঈদে ১৫ দিন সড়কে উন্নয়ন কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ ওবায়দুল কাদেরের

নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশের বিভিন্ন স্থানে নির্মাণাধীন ফ্লাইওভার ও আন্ডারপাসসহ চলমান উন্নয়ন কাজ জনস্বার্থে ঈদের আগের ৭ দিন ও পরের ৭ দিন বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

ঈদ সামনে রেখে বুধবার সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের নবনির্মিত ভবনে সড়ক-মহাসড়ক পরিস্থিতি নিয়ে প্রকৌশলীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে তিনি এ নির্দেশ দেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, “ঈদের আগের সাতদিন ও পরের সাতদিন ফ্লাইওভার, আন্ডারপাসসহ চলমান কাজ জনস্বার্থে বন্ধ রাখতে হবে। আপনারা জানেন, সরকার ইতিমধ্যে ঈদে কর্মস্থল ত্যাগ না করার জন্য নির্দেশনা জারি করেছে। তাই, আপনারা নিজ নিজ কর্মস্থলে অবস্থান করবেন।”

আরও বলেন, “আপনারা জানেন ১ আগস্ট উদযাপিত হতে যাচ্ছে ঈদুল আজহা। কঠিন এক বাস্তবতায় আমরা এবার ঈদ উদযাপন করতে যাচ্ছি। একদিকে বৈশ্বিক মহামারী করোনার সংক্রমণের ঝুঁকি। অন্যদিকে ক্রমশ ছড়িয়ে পড়া বন্যা। সরকার নানা দিক বিবেচনায় নিয়ে জনস্বার্থে গণপরিবহন চলাচল অব্যাহত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তাই করোনার পাশাপাশি শ্রাবণের অবিরাম বৃষ্টি সড়ক-মহাসড়ক ব্যবস্থাপনা, সুরক্ষা এবং তাৎক্ষণিক মেরামতে অতীতের মতো সড়ক ও জনপথ বিভাগকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে। জনগণের ঈদ যাত্রা করতে হবে নির্বিঘ্ন।”

সড়ক-মহাসড়ক বিভাগের কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দিয়ে মন্ত্রী বলেন, একেক জোনের বাস্তবতা একেক রকম। গাড়ির চাপ মহাসড়ক ভেদে ভিন্ন। তাই আমি চাই আপনারা জোন ভিত্তিক ও আন্তঃজোন সমন্বয় করে পরিকল্পনা গ্রহণ করুন।

তিনি বলেন, মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বিঘ্নিত হতে পারবে না। বৃষ্টি যেন অজুহাত হিসেবে না আসে। গর্ত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মেরামত করুন। না হয় জনভোগান্তি বাড়াবে। কথায় বলে, সময়ের এক ফোঁড় অসময়ের দশ ফোঁড়।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ঢাকা জোনের দায়িত্ব সবচেয়ে বেশি বলে মনে করি। এক্সিট পয়েন্ট, বিশেষ করে ভুলতা, নবীনগর, চন্দ্রা, গাজীপুরের পুরো করিডোর, নবীনগর-চন্দ্রা করিডোর, টঙ্গী, কালিয়াকৈর-চন্দ্রা করিডোর ব্যবস্থাপনায় নজর দিতে হবে। পুলিশের সহযোগিতা নিতে হবে। এসব এলাকায় গাড়ি থামতে দেওয়া যাবে না। প্রয়োজনে স্বেচ্ছাসেবক বা কমিউনিটি পুলিশের সাপোর্ট নিতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, গ্রামমুখী মানুষকে সতর্ক করে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাতায়াত ও গ্রামে অবস্থান করতে সচেতনতামূলক প্রচার চালানো যেতে পারে। বিভিন্ন এলাকায় ঝুঁকিপূর্ণ সেতু থাকতে পারে। বৃষ্টি-বন্যাজনিত পানির প্রবাহ সেতু ক্ষতির কারণ হতে পারে। তাই নজরদারিতে রাখতে হবে ঝুঁকিপূর্ণ সেতু এবং বিকল্প ঠিক করে রাখতে হবে আগেই।

তিনি বলেন, নবীনগর, বাইপাইল, ইপিজেড, চন্দ্রা, কালিয়াকৈর, গাজীপুর, ভুলতা, কাঁচপুর এলাকায় অসংখ্য গার্মেন্টস। এ সব গার্মেন্টস যে দিন ছুটি দিবে সেদিন ঘরমুখো মানুষের প্রচন্ড চাপ তৈরি হবে। চাপ সঠিকভাবে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে ম্যানেজ করতে আগেই আইন প্রয়োগকারী সংস্থা ও বিজিএমইএর সাথে সমন্বয় করুন। প্রয়োজনে বিআরটিসির বাস এ সকল পয়েন্টে আগে থেকে স্ট্যান্ডবাই রাখুন।

সড়ক ও মহাসড়ক অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী কাজী শাহরিয়ার হোসেন ও অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মো. সবুজ উদ্দিন খানসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।