১৬ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং | ২রা পৌষ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

adv

ঢাকা উত্তর সিটি উপনির্বাচনে জয়ের যোগ্য প্রার্থী দেওয়া হবে: ওবায়দুল কাদের

O K Aনিজস্ব প্রতিবেদক : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগ জয়ের জন্য যোগ্য প্রার্থী দেবে। জিততে পারেন- এমন যোগ্য প্রার্থীকেই মনোনয়ন দেবেন তারা।

মঙ্গলবার রাজধানীর জাতীয় অর্থোপেডিক ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।

এর আগে আঁখিমণি নামের এক জন্ম প্রতিবন্ধী রোগীর দায়িত্ব নিয়েছিলেন সেতুমন্ত্রী। মেয়েটির শারীরিক অবস্থার খোঁজখবর নিতেই হাসপাতালে যান তিনি।

'আনিসুল হকের মৃত্যুর রেশ না কাটতেই ডিএনসিসি নির্বাচনের আলোচনা অশোভন'- বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভীর এমন বক্তব্যের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচনী নিয়মনীতি অনুযায়ী ডিএনসিসি'র মেয়র পদ শূন্য ঘোষণা করা হয়েছে। এখানে আওয়ামী লীগ নাক গলায়নি। এক্ষেত্রে সরকারের তাড়াহুড়োর বিষয়ও নেই। প্রক্রিয়া অনুযায়ী নির্বাচন হবে। আসলে বিএনপির নির্বাচনে যাওয়ার প্রস্তুতি নেই বলেই তারা এ ধরনের কথা বলছে।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচন চায়। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির প্রতিদ্বন্দ্বিতাহীন নির্বাচন না হলে আজ শুনতে হতো না, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এতজন নির্বাচিত হয়েছেন। এটা তো আওয়ামী লীগ চায়ওনি। বিএনপি নির্বাচনে না আসায় অনেক আসনে একক প্রার্থী ছিলেন। নিয়ম অনুযায়ী নির্বাচন কমিশনও তাদের বিজয়ী ঘোষণা করেছে। নির্বাচন একটি গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া। নিজস্ব প্রক্রিয়ায় এটি চলবে।

রোহিঙ্গাদের পুনর্বাসন প্রসঙ্গে বিএনপির অভিযোগের জবাবে সেতুমন্ত্রী বলেন, সরকার রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন চায়। এটি একটি সময়সাপেক্ষ প্রক্রিয়া। উখিয়া-টেকনাফের জনসংখ্যা সাড়ে চার লাখ। সেখানে রোহিঙ্গাই এসেছে সাড়ে ১০ লাখ। তাদের সেখানে তাঁবুতে রাখা হচ্ছে। কিন্তু দীর্ঘদিন কীভাবে রাখা সম্ভব? এ কারণে এদেশের সাড়ে চার লাখ মানুষ উদ্বিগ্ন ও আতঙ্কিত। প্রকৃতিও হুমকির মুখে। আর প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া বিলম্বিতও হতে পারে। এত লোককে স্থানান্তর না করলে দেশের পর্যটন শিল্পসহ স্থানীয় অর্থনীতি প্রচণ্ড চাপের মুখে পড়বে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলা বর্তমান সরকার করেনি, করেছে তত্ত্বাবধায়ক সরকার। আর তাকে সাজা দেওয়াও সরকারের বিষয় নয়। তার সাজা হবে কিনা সেই সিদ্ধান্ত নেবেন আদালত। তার সাজা হলে হাইকোর্ট ও সুপ্রিম কোর্ট আছে। তারপর আবার রিভিউও রয়েছে।

'খালেদা জিয়াকে বাধা দিয়ে আওয়ামী লীগ নির্বাচনের ফসল ঘরে তুলতে চায়'- বিএনপি নেতা আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরীর এমন বক্তব্যের জবাবে তিনি বলেন, তারা আসলে কখন যে কি বলেন, সেটা তারাই ভালো জানেন। তাদের কেউ বলেন, যেকোনো পরিস্থিতিতে তারা নির্বাচনে যাবেন। আবার কেউ বলেন, খালেদা জিয়ার সাজা হলে তারা নির্বাচনে যাবেন না। তাদের কোন কথাটা সত্যি?

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
আর্কাইভ
ডিসেম্বর ২০১৭
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« নভেম্বর    
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া