মেয়ের পরিচয়পত্র ব্যবহার করে ছেলের বয়সী যুবককে বিয়ে করলেন মা

1435170123ডেস্ক রিপোর্টঃ ছেলের বয়সী (জুনায়েদ আহমদকে) বিয়ে করতে ও নিজের বয়স কমাতে এক গৃহবধূ মেয়ের পরিচয়পত্রের জন্মতারিখ ব্যবহার করলেন। বিষয়টি জানাজানি হয়ে যাওয়ায় মঙ্গলবার স্থানীয়রা উভয়কে ধরে প্রহার করেন। ঘটনাটি ঘটেছে সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায়।

মঙ্গলবার সলুকাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান তানজিমা মাহজেবীনের স্বামী তোফায়েল হোসেন লিটন জুনায়েদকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ও জনসম্মুখে ১০ বার জুতাপেটা করেন। নিজের মেয়ের বয়স উল্লেখ করে বিয়ে করায় ওই গৃহবধূকেও দশ বার জুতাপেটা করা হয়। তবে তাকে কোনো আর্থিক জরিমানা করা হয়নি। বর্তমানে বিষয়টি এলাকায় বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে।

উল্লেখ্য, বছর খানেক আগে উপজেলার ধনপুর ইউনিয়নের ছাতারকোনা গ্রামের ছিদ্দিকুর রহমানের ছেলে জুনায়েদের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন ওই গৃহবধূ। গত ২৩ ফেব্রুয়ারি মেয়ের জাতীয় পরিচয়পত্রের জন্ম তারিখ, নাম ও ঠিকানা উল্লেখ করে সুনামগঞ্জের নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে বিয়ে করেন ওই গৃহবধূ ও জুনায়েদ। ওই গৃহবধূ উপজেলার সলুকাবাদ ইউনিয়নের দুই সন্তানের জননী। সম্প্রতি গৃহবধূর দ্বিতীয় স্বামী জুনায়েদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ উঠলে থলের বেড়াল সবার সামনে উন্মুক্ত হয়ে যায়।

সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলা সদরে ১৪৪ ধারা

10846305_783422921752325_4113461705765593283_nডেস্ক রিপোর্ট: জেলার ধর্মপাশা উপজেলা সদরে ১৪৪ ধারা জারি করেছে উপজেলা প্রশাসন। সোমবার সন্ধ্যা ৬ পর্যন্ত এ নির্দেশ অব্যাহত থাকবে বলে জানা গেছে।

রবিবার রাতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুল ইসলাম ১৪৪ ধারা জারি করেন।

উল্লেখ্য বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য অধ্যাপক ডা. রফিক চৌধুরী সোমাবার সকাল ১০টা থেকে ৩৫ কিলোমিটার গণ পদযাত্রা কর্মসূচির আয়োজন করা কথা ছিল। এই উপলক্ষে উপজেলা বিএনপি, ছাত্রদল যুবদল, স্বেচ্ছাসেবকদল কৃষকদল শ্রমিকদল ও বিএনপির বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীরা গণপদযাত্রা ব্যাপক গণসংযোগ করে।

ধর্মপাশা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম কিবরিয়া বলেন, নাশকতার আশঙ্কায় ও আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার স্বার্থে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম ১৪৪ ধারা জারি করেন। 

ফলে ধর্মপাশায় সকল প্রকার মিছিল সমাবশে গণ জমায়েতসহ সব রাজনৈতিক কার্যক্রম ভোর ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত নিষিদ্ধ থাকবে। 

ইতোমধ্যে ধর্মপাশা সদরে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। যেকোন ধরনের নাশকতা প্রতিরোধে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সজাগ দৃষ্টি রাখবে। 

এদিকে ১৪৪ ধারা প্রসঙ্গে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য অধ্যাপক ডা. রফিক চৌধুরী সরকার বলেন, ‘আমাদের শান্তিপূর্ণ কর্মসুচি পালনে বাধা দিতে অন্যায় ভাবে ১৪৪ ধারা জারি করেছে। ২০ দল অহিংস ও শান্তিপূর্ণ প্রকৃয়ায় কর্মসূচি পালন করবে।’