আমি রাজশাহীতেও মনোনয়ন দেয়ার ক্ষমতা রাখি: শামীম ওসমান

ডেস্ক রিপোর্টঃ  নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান বলেছেন, ‘নারায়ণগঞ্জে অনেকেই নৌকার লাইসেন্স দিয়ে বেড়ায়। অথচ নিজের লাইসেন্সের ঠিক নেই। নৌকা প্রতীক ছাড়া নির্বাচন হবে না বলে মাঠ গরম করে রেখেছে। আমি ইচ্ছা করলে রাজশাহীতেও মনোনয়ন দেয়ার ক্ষমতা রাখি।’

শনিবার ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম সংলগ্ন নাসিম ওসমান মেমোলিয়াল পার্কে দোয়া ও ইফতার মাহফিলে তিনি এসব কথা বলেন।

ফতুল্লা, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগসহ সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে এই দোয়া ও ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

শামীম ওসমান বলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের যারাই নেতৃত্বে এসেছেন শামীম ওসমানের প্রেসক্রিপশনেই এসেছেন।

তিনি বলেন, গ্লোবাল পলিটিকস চেঞ্জ হয়ে গেছে। সামনে কঠিন সময় আসছে। তারা আওয়ামী লীগকে ক্ষমতা থেকে নামানোর জন্য বিএনপিকে সুযোগ দিতে চায়। তাদের অনেকেই জামায়াত বিএনপির এজেন্ডাকে বাস্তবায়নের জন্য মাঠে নেমেছে। আস্তিক-নাস্তিক, ডান-বাম সকলে মিলে একসাথে হয়ে শেখ হাসিনাকে কামড় দিবে। সেই কামড়ে আমরাই দংশিত হবো।

শামীম ওসমান বলেন, নেত্রীর প্রশ্নে কোনো আপোস হবে না। তিনি থাকলে দেশের উন্নয়ন হবে। আমি এমপি হই আর না হই এতে কোনো আসে যায় না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে যেকোন ভাবেই হোক ক্ষমতায় আনতে হবে।

ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম সাইফুল্লাহ বাদলের সভাপতিত্বে দোয়া ও ইফতার মাহফিলের আরো বক্তব্য দেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবুর রহমান।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি চন্দনশীল ও গোপীনাথ দাস, ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম শওকত আলী, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইয়াসিন মিয়া, জেলা কৃষকলীগের সভাপতি নাজিমুদ্দিন আহমেদ, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী প্রফেসর শিরীন বেগম।

পোশাক কর্মীকে ধর্ষণের পর হত্যা: তিন জনের মৃত্যুদণ্ড

ডেস্ক রিপোর্ট :নারায়ণগঞ্জের বন্দরে গার্মেন্টসকর্মী আসমা আক্তার বিউটিকে অপহরণ ও ধর্ষণের পর হত্যায় তিন আসামির ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। এ মামলায় চার আসামি খালাস পেয়েছেন।
আজ সোমবার বেলা সাড়ে ১১টায় নারায়ণগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতের বিচারক মো. জুয়েল রানা এ রায় ঘোষণা করেন।
মামলায় চার্জশিটে মোট ২৪ জন সাক্ষীর মধ্যে ১৪ জন সাক্ষীর জবানবন্দি ও জেরা শেষে আদালত এ রায় ঘোষণা করেন। একই সঙ্গে আদালত প্রত্যেক আসামিকে এক লাখ টাকা জরিমানা করেছে। জরিমানা আদায় করে নিহতের পরিবারকে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত।
মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন নাসির উদ্দিন বিটল (৪০), অকু মিয়ার ছেলে ছফুন (৩৪), মৃত আব্দুস সালামের ছেলে খোকন মিয়া (৩২)।
খালাসপ্রাপ্তরা হলেন আলমাস ব্যাপারীর ছেলে ছালেহ আহমেদ, মৃত মোমিন আলী মুন্সির ছেলে হাসান কবির মেম্বার, আবুল কাশেমের ছেলে আব্দুল আজিজ ওরফে দাড়িওয়ালা আজিজ, সুজন মিয়ার ছেলে মো. মিজান।
মামলার বাদী নিহতের পিতা রাজা মিয়া জানান, ২০০৮ সালের ১১ মার্চ রাতে তার মেয়ে আসমা বেগম নারায়ণগঞ্জ থেকে গার্মেন্টসের কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে শীতলক্ষ্যা নদীর বন্দর খেয়া পাড় হওয়ার পর অপহরণ হয়। পরদিন বন্দরের কুশিয়ারা এলাকায় একটি ঝোঁপ থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় আসমার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় ৭ জনকে আসামি করে বন্দর থানায় মামলা দায়ের করেন নিহত আসমার বাবা।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী রকিব উদ্দিন জানান, মামলার তদন্তে ২৪ জনকে সাক্ষী করা হয়। এর মধ্যে ১৪ জন আদালতে হাজির হয়ে সাক্ষী দেয়। এতে প্রমাণ হয় দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা আসমাকে ধর্ষণ করার পর হত্যা করে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনেও ধর্ষণ এবং শ্বাসরোধ করে হত্যার আলামত পাওয়া গেছে।

দশ বছর ধরে ন্যায় বিচারের আশায় ছিলেন নিহতের পরিবার। চারজন আসামি খালাস পেয়ে যাওয়ায় নিজেদের নিরাপত্তা নিয়েও শঙ্কিত। এই রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপীল করবেন বলেও জানান তিনি।

নারায়ণগঞ্জের সেই নীলা…

nilaডেস্ক রিপোর্টঃ নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত খুনের ঘটনার মূল নায়ক নূর হোসেনের কথিত পরকীয়া প্রেমিকা কাউন্সিলর জান্নাতুল ফেরদৌস নীলা এবার ঘটিয়েছেন ভিন্ন ঘটনা। পুলিশসহ হানা দিয়েছেন ডিভোর্স দেয়া স্বামী আবু সায়েমের বাড়িতে। ফেরত নিয়ে এসেছেন বাড়ির আসবাবপত্র আর সব মালামাল। ফিরে আসার সময় আবু সায়েম ও তার ভাগ্নেকে মারধর করেছে নীলার সঙ্গে থাকা লোকজন।

মঙ্গলবার বেলা তিনটার দিকে সিদ্ধিরগঞ্জের গোদনাইল বার্মাস্ট্যান্ড এলাকায় আবু সায়েমের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সাসছুল আলম দাবি করেছেন নীলার দাবি করা সব মালামাল বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে।

তবে আবু সায়েমের অভিযোগ, মালামাল বুঝে নেয়ার সময় তার ওপর হামলা করা হয়।

সূত্রমতে, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ৪, ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর জান্নাতুল ফেরদৌস নীলা নির্বাচনের পরেই পরকীয় প্রেমে জড়িয়ে পড়েন কাউন্সিলর ও আওয়ামী লীগ নেতা নূর হোসেনের সঙ্গে। এ নিয়ে স্বামী বিরোধ দেখা দেয় স্বামী আবু সায়েমের সঙ্গে।

nila.jpg11

এক পর্যায়ে ২০১৩ সালের ২৫ জুন স্বামী সায়েমের সঙ্গে ডিভোর্স হয় নীলার। এরপর সাত খুনের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার মূল নায়ক নূর হোসেনের প্রেমিকা হিসেবে ব্যাপক আলোচনায় চলে আসেন কাউন্সিলর নীলা। এসময় একটি মাদক মামলায় নীলা গ্রেপ্তার হলে ডিভোর্স দেয়া স্বামীর সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এ সম্পর্কের সূত্র ধরে গত বছরের কোরবানি ঈদের ছুটিতে সায়েম আর নীলা অবকাস কাটাতে চলে যান কক্সবাজারে সাগর সৈকতে।

এদিকে, কিছুদিন ধরে নীলা আবারো বিভিন্নজনের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তুললে বিরোধ দেখা দেয় সায়েমের সঙ্গে। সেই বিরোধের জের ধরেই সায়েমের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ করেন নীলা।

অভিযোগের সূত্র ধরে মঙ্গলবার দুপুরে পুলিশের উপস্থিতিতে সায়েমের বাড়ির সব মালামাল ফেরত আনতে যান। এসময় সায়েম, ভাগ্নে ফরিদকে পিটিয়ে আহত করে নীলার লোকজন। বাংলামেইল

উনাদের কপাল ভালো আমি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী না

828-e1404131990405ডেস্ক রিপোর্ট: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার প্রতি ইঙ্গিত করে নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান বলেছেন, উনাদের কপাল ভালো আমি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নই। যদি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হতাম তাহলে উনারা বুঝতেন কত ধানে কত চাল।’

স্বরাষ্ট্রপ্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালকে ভদ্র মানুষ সম্বোধন করে শামীম ওসমান বলেন, ‘যে দেশে বেগম জিয়ার মতো নেত্রী রয়েছেন সেদেশে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর দায়িত্বে থেকে রাষ্ট্র পরিচালনা করা খুবই কঠিন ব্যাপার।’

রোববার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের পুলিশ লাইনে সুধী সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে শামীম ওসমান এসব কথা বলেন।

নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার ড.খন্দকার মহিদ উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওই সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসনের নারী সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট হোসনে আরা বাবলী, পুলিশের উপ-মহা পরিচালক(ঢাকা রেঞ্জ) এসএম মাহফুজুল হক নুরুজ্জামান, জেলা প্রশাসক আনিছুর রহমান মিঞা।

সুধী সমাবেশে শামীম ওসমান বলেন, ‘বর্তমান স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী একজন অত্যন্ত ভদ্র মানুষ। এখন পর্যন্ত উনার বিরুদ্ধে কেউ কোনো অভিযোগ তুলতে পারেন নি। যে দেশে খালেদা জিয়ার মত নেত্রী রয়েছেন, যার নির্দেশে বাসে আগুন দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে মারে, যার নির্দেশে রাস্তায় পুলিশের অস্ত্র কেড়ে পুলিশকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়, বিজিবির অস্ত্র কেড়ে নিয়ে বিজিবিকে গুলি করে হত্যা করা হয়, সে দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হয়ে দেশ চালানো অনেক কঠিন ব্যাপার। কতটা ধৈর্য্য ধরলে পুলিশ অস্ত্র হাতে রেখে সহ্য করে। অথচ বাংলাদেশের পুলিশ ও বিজিবি যদি চাইতো তাহলে ওই সকল সন্ত্রাসীদের ১০ মিনিটের মধ্যে ঘর থেকে গুলি করে এনে হত্যা করতে পারতো। উনাদের কপাল ভাল আমি যদি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হতাম তাহলে উনারা বুঝতেন কত ধানে কত চাল।’

ঢাকা সিটি করপোরেশনের নির্বাচনকে বানচাল করার চেষ্টা হচ্ছে মন্তব্য করে শামীম ওসমান বলেন, ‘দেশ নিয়ে ষড়যন্ত্র হচ্ছে। তারা সিটি করপোরেশনের নির্বাচন বানচাল করতে চায়। যারা খালেদা জিয়াকে ক্ষমতায় বসাতে চেয়েছিল সেসব বিদেশি বন্ধু এখন বলছে লেভেল প্লেইং ফিল্ড চাই। তাদের মধ্যে কিছু সুশীল আছে যারা চেহারায় স্লো পাউডার মাখেন। লেভেল প্লেইং ফিল্ড মানে সমান গণতন্ত্র চর্চা। যারা গণতন্ত্র মানে না, যারা আগুন দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে মারে, যারা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে তারা একাত্তরের নাজায়েজ সন্তান। তাদের সাথে কোনো গণতন্ত্র চর্চা করা যায় না।’

শামীম ওসমান আরো বলেন, বার্ন ইউনিটে পুড়ে যাওয়া মানুষকে দেখতে গিয়ে শেখ হাসিনার চোখে পানি চলে এসেছিল। যারা শেখ হাসিনার চোখের পানিকে দুর্বলতা ভাবছেন তারা ভুল করছেন। চোখের পানি যখন অগ্নি লাভায় পরিণত হবে তখন তারা বাঁচতে পারবে না।’

দেশকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করা হচ্ছে উল্লেখ করে শামীম ওসমান বলেন, জাঙ্গিরা এখনও তৎপর রয়েছে। সারাদেশে যত জঙ্গি গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাদের বেশির ভাগই নারায়ণগঞ্জ থেকে গ্রেপ্তার হয়েছে। তবে তারা কেউ নারায়ণগঞ্জের নয়। অন্য জায়গা থেকে তারা নারায়ণগঞ্জে এসে ঘাঁটি বেঁধে ছিল। কারণ তাদের প্ল্যান হচ্ছে হিট অ্যান্ড রান। তারা রাজধানীতে আঘাত করতে চায়। তাই তারা রাজধানীর পাশের জেলায় অবস্থান করছে। তাদের বিষয়ে পুলিশ প্রশাসনকে আরও বেশি সজাগ থাকতে হবে।’

নারায়ণগঞ্জে পেট্রোল বোমা উদ্ধার

news_img (1)ডেস্ক রিপোর্টঃ  জেলার সদর উপজেলার ফতুল্লা এলাকার একটি বাড়ি থেকে ১৩টি পেট্রোল বোমা ও ২ লিটার পেট্রোল উদ্ধার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। তবে এসময় কাউকে আটক করতে পারেনি র‌্যাব।

শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ফতুল্লার পাগলার দক্ষিণ নন্দলালপুর এলাকার জসিম মিয়ার মেস বাড়ি থেকে এসব পেট্রোল বোমা উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব-১১ এর সহকারি পুলিশ সুপার (এএসপি) মাসুদ আনোয়ার জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব জানতে পারে জসিমের মেস বাড়িতে নাশকতার উদ্দেশ্যে পেট্রোল বোমা তৈরি করছে দুর্বৃত্তরা। এরপর সেখানে অভিযান চালানো হয়।

তিনি জানান, এ সময় দুর্বৃত্তরা অভিযানের বিষয়টি টের পেয়ে পালিয়ে যায়। দুর্বৃত্তদের আটকের চেষ্টা চলছে বলে জানান তিনি।

বিএনপি নেতা কামাল গ্রেপ্তার

নারাংণগঞ্জ-কামালডেস্ক রিপোর্টঃ  নারায়ণগঞ্জে নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামালকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বুধবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে হরতালের সমর্থনে মিছিলের প্রস্তুতি নেয়ার সময় হাজীগঞ্জ এম সার্কাস এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

জেলা কৃষক দলে সাধারণ সম্পাদক উজ্জল হোসেন জানান, হাজীগঞ্জ এম সার্কাস এলাকায় হরতালের সমর্থনে একটি মিছিলের জন্য সবাই জড়ো হয়। এসময় পুলিশ তাদের ধাওয়া দিয়ে ছত্রভঙ্গ করে। সেখান থেকে এটিএম কামালকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ নিয়ে যায়।

এ ব্যপারে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মঞ্জুর কাদের জানান, হরতালের সমর্থনে কয়েকজন শ্রমিক নিয়ে ওই এলাকায় মিছিল করার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন কামাল। সেখান থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তার বিরুদ্ধে যানবাহন ভাঙচুর, গাড়িতে অগ্নিসংযোগ, পুলিশের কাজে বাধা ও পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগে দ্রুত বিচার আইনে মামলাসহ ৩/৪টি মামলা রয়েছে।

২ জনকে গলা কেটে হত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক :নারায়ণগঞ্জ জেলার নিতাইগঞ্জের খালগাট এলাকার একটি ময়দা তৈরির কারখানার নৈশপ্রহরী ও এক শ্রমিককে গলা কেটে হত্যা করেছে  দুর্বৃত্তরা।শনিবার গভীররাতে এ ঘটনা ঘটেছে। রোববার সকালে নিতাইগঞ্জের নয়না নামের ময়দার কারখানা থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।রোববার সকালে নিতাইগঞ্জের খালগাট এলাকায় নয়না নামে ময়দার কারখানায় তাদের লাশ পাওয়া যায়।নিহতরা হলেন-  নৈশপ্রহরী আব্দুল আজিজ (৪৮) নারায়ণগঞ্জ সদরের মৃত মালা বকশের  ছেলে  ও শ্রমিক হোসেন (৩৫) চাঁদপুর জেলার।নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শাহানুর আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, শনিবার রাতে ওই কারখানায় নিরাপত্তা কর্মী আজিজসহ ১৩ জন কাজ করছিলেন। তাদের দুজন খুন হয়েছেন। আজিজের মৃতদেহ কারখানার গেটে ও হোসেনের মৃতদেহ কারখানার ৪ তলা ভবনে  দোতালায় পাওয়া যায়।তবে ওই ১৩ জনের মধ্যে এক শ্রমিককে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না বলে জানান তিনি।

সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৪

ডেস্ক রিপোর্ট : নারায়ণগঞ্জ জেলার  সোনারগাঁওয়ের ত্রিবর্দীতে যাত্রীবাহী বাস উল্টে চার জন নিহত হয়েছেন। এ দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ১৫ যাত্রী।বুধবার সকাল পৌণে ৯টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের তিনজনের নাম-পরিচয় জানা গেছে। তারা হলেন-বাসের হেলপার এবং মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ার মনির হোসেনের  ছেলে জনি (৩০), কুমিল্লার গৌরিপুরের ফজর আলীর স্ত্রী পারুল (২৮),  স্থানীয় চৈতী কম্পোজিট মিলের অপারেটর হাসান (২৮) এবং অজ্ঞাত (৩০)।স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ঢাকার সায়েদাবাদ থেকে দাউদকান্দি যাচ্ছিল। সোনারগাঁওয়ের ত্রিবর্দীতে পৌঁছালে চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে বাসটি উল্টে যায়। এতে চার ওই বাসের হেলপার জনি, যাত্রী পারুল, হাসান, এবং অজ্ঞাত একজন মারা যান।আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় ক্লিনিক ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে।