যেসব পাসওয়ার্ড হ্যাক করা সহজ

ডেস্ক রিপোর্ট : ‘পাসওয়ার্ড’ নিয়ে আমরা অনেকেই বিশেষ মাথা ঘামাই না। যে পাসওয়ার্ড সহজে মনে রাখা যায়, সেটিকেই আমরা সাধারণত বেছে নিয়ে থাকি। আর এতেই অনেকক্ষেত্রে লুকিয়ে থাকে বিপদ। আমরা এমনকিছু পাসওয়ার্ড দিয়ে বসি, যা সহজেই হ্যাকাররা ব্রেক করে ফেলে।

পাসওয়ার্ড ম্যানেজার ‘নর্ডপাস’-এর প্রতিবেদনে সম্প্রতি এবছর ব্যবহৃত এমনই ২০০টি পাসওয়ার্ডের কথা প্রকাশ্যে আনা হয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে সর্বপ্রথম ‘123456’, এটি ২৩ মিলিয়ন বার ব্যবহৃত হয়েছে। ব্যবহারের দিক থেকে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ‘123456789’ পাসওয়ার্ডটি। তৃতীয় স্থানে রয়েছে ‘picture1’।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালেও ‘123456’ পাসওয়ার্ডটি শীর্ষস্থানে ছিল। এর থেকেই বোঝা যাচ্ছে, গত ৫ বছরে বিশেষ কিছু পরিবর্তন হয়নি। চলুন দেখে নেওয়া যায় এবছর (2020) সবথেকে ব্যবহৃত ২০টি পাসওয়ার্ড। ‘123456′, ‘123456789′, ‘picture1′, ‘password’, ‘12345678′, ‘111111′, ‘123123′, ‘12345′, ‘1234567890′, ‘senha’, ‘1234567′, ‘qwerty’, ‘abc123′, ‘Million2′, ‘000000′, ‘1234′, ‘iloveyou’, ‘aaron431′, ‘password1′, এবং ‘qqww1122’।

এছাড়াও প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, ‘aaron431′ পাসওয়ার্ডটি ৯০ হাজার বার, chocolate পাসওয়ার্ডটি ২১ ৪০৯বার, pokemon পাসওয়ার্ডটি ৩৭হাজার বার ব্যবহৃত হয়েছে।

হোয়াটসঅ্যাপে আসছে ‘রিড লেটার’ ফিচার

ডেস্ক রিপাের্ট : ফেসবুকের মালিকানাধীন জনপ্রিয় মেসেজিং প্লাটফর্ম হোয়াটসঅ্যাপ নিত্যনতুন তাদের প্লাটফর্ম আপডেট করে। এরই ধারাবাহিকতায় নতুন ফিচার আনতে চলেছে প্রতিষ্ঠানটি। সাত দিন আগের মেসেজ মুছে যাওয়া, হোয়াটসঅ্যাপ পে, শপিং ফিচারের পর এবার নয়া ইমোজি, অ্যাডভান্সড ওয়ালপেপার নিয়ে আসতে চলেছে এই মেসেজিং অ্যাপে। এছাড়াও আসবে ‘‌রিড লেটার’ নামে একটি ফিচার।

রিড লেটার ফিচারটি আনা হচ্ছে ভ্যাকেশন মোড ফিচারের জায়গায়। এই ফিচারটিতে ইউজাররা আর্কাইভড চ্যাটে নতুন মেসেজ এলেও তার নোটিফিকেশন দেখাবে না। তবে এখানেই শেষ নয়, একাধিক নতুন ইমোজিও আনতে চলেছে হোয়াটসঅ্যাপ।

সম্প্রতি অ্যাডভান্সড ওয়ালপেপার ফিচার নিয়ে এসেছে হোয়াটসঅ্যাপ। এই ফিচারে ইউজাররা সহজেই প্রত্যেকটি চ্যাটের জন্য আলাদা আলাদা ওয়ালপেপার সেট করতে পারবেন। ইতিমধ্যে কিছু বেটা ভার্সনে এই ফিচারের দেখাও মিলেছে। অনেকদিন ধরেই এই ফিচারটি নিয়ে কাজ করছিল হোয়াটসঅ্যাপ। এছাড়া ইউজাররা ৩২ টি ব্রাইট ওয়ালপেপার এবং ২৯টি ডার্ক ওয়ালপেপারও পেয়ে যাবেন নয়া ফিচারে। এছাড়া ইচ্ছেমতো ওয়ালপেপার তৈরি করারও ব্যবস্থা থাকছে।

‘শিখবে সবাই’ মিরপুর ব্রাঞ্চের ২ বছর পূর্তি উদযাপন

ডেস্ক রিপাের্ট : দেশের ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণদাতা প্রতিষ্ঠান ‘শিখবে সবাই’ এর মিরপুর শাখার ২ বছর পূর্তি উদযাপন করা হয়েছে। কোভিড-১৯ স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে বর্ষপূর্তির অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে ‘শিখবে সবাই’ এর সদস্য ও শিক্ষার্থীরাও উপস্থিত ছিলেন।

দেশের অন্যতম এই প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠানটি জানায়, ‘শিখবে সবাই’ এর মিরপুর শাখায় এই পর্যন্ত ৫২টি ব্যাচে প্রায় ১৫ শতাধিক শিক্ষার্থী প্রশিক্ষণ নিয়েছেন। এদের মধ্যে বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে সফলভাবে ক্যারিয়ার গড়েছেন প্রায় সাত শতাধিক শিক্ষার্থী। মিরপুর শাখায় সপ্তাহের সাতদিন বিভিন্ন স্কিলের প্রশিক্ষণ চলে।

ফেসবুকে ‘শিখবে সবাই ফ্রিল্যান্সার কমিউনিটি’ গ্রুপে শিক্ষার্থীরা নিয়মিত তাদের সাফল্যের গল্প তুলে ধরেন।

দেশের বেকারত্ব দূরীকরণের লক্ষ্যে আইটি সেক্টরে বিভিন্ন দক্ষতা উন্নয়নমূলক প্রশিক্ষণ নিয়ে কাজ করছে ‘শিখবে সবাই’। এ পর্যন্ত প্রায় আট হাজারের বেশি শিক্ষার্থী প্রতিষ্ঠানটি থেকে প্রশিক্ষণ নিয়েছে। যার মধ্যে প্রায় সাড়ে তিন হাজারের বেশি শিক্ষার্থী বিভিন্ন অনলাইন এবং অফলাইন মার্কেটপ্লেসে সফলতার সঙ্গে কাজ করছেন।

‘শিখবে সবাই’ এর চিফ অপারেটিং অফিসার আব্দুল কাদের বলেন, ‘প্রতিষ্ঠার পর থেকেই আমরা বেকারত্ব দূরীকরণে কাজ করছি। সরকারের নেয়া পদক্ষেপ ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ বিনির্মাণে শিখবে সবাই বদ্ধপরিকর।’

প্রতিষ্ঠানটি জানায়, এ পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন স্কিলে প্রশিক্ষণ নিয়ে বাংলাদেশে বসে প্রায় ১.২ মিলিয়ন মার্কিন ডলারেরও বেশি অর্থ উপার্জন করেছেন। ফলে ভাগ্য পরিবর্তন হয়েছে অনেক পরিবারের।

স্পেসএক্সের নতুন অভিযানে ‘মহাকাশে নতুন যুগের সূচনা’

ডেস্ক রিপাের্ট : চার নভোচারী নিয়ে ইন্টারন্যাশনাল স্পেস স্টেশন (আইএসএস)-এর উদ্দেশে রবিবার স্পেসএক্সের একটি রকেট সফলভাবে উৎক্ষেপণ করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে এ অভিযান পরিচালিত হয়। একে মহাকাশ অভিযানে নতুন যুগের সূচনা বলে উল্লেখ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ সংস্থা নাসা।

এটি উদ্যোক্তা ইলন মাস্কের অর্থায়নে গড়ে ওঠা প্রাইভেট কোম্পানি স্পেসএক্সের মনুষ্যবাহী দ্বিতীয় ফ্লাইট, যা এখন থেকে নাসার নভোচারীদের মহাকাশে প্রেরণ করবে।

রাশিয়ার সুয়োজ রকেটের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের নির্ভরতার নয় বছর পর এটি চালু হলো।

নাসা বলছে, বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের পরিচালনায় লো-আর্থ অরবিটে নভোচারীদের রুটিন যাত্রায় নতুন যুগের সূচনা হলো।

এ অভিযানে অংশ নেওয়া চার নভোচারীর তিনজন আমেরিকান ও একজন জাপানের।

জাপানিজ স্পেস এজেন্সি (জাক্সা)-র সঙ্গে কাজের অভিজ্ঞতা রয়েছে জাপানি নভোচারী সোইচি নোগুচির। নতুন এ অভিযানের মাধ্যমে তিনি বিরল রেকর্ড গড়লেন। পৃথিবী থেকে মহাশূন্যে ভ্রমণে তিনটি ভিন্ন ধরনের মহাকাশযান ব্যবহার করলেন তিনি। এর আগে সুয়োজ ও শাটলযানে ভ্রমণ করেন নোগুচি।

চার নভোচারীকে নিয়ে ফ্যালকন রকেট ও ড্রাগন ক্যাপসুল কেনেডি স্পেস সেন্টার ত্যাগ করে রবিবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টা ২৭ মিনিটে। মহাকাশ স্টেশনে পৌঁছতে সময় লাগবে একদিনেরও বেশি। চার নভোচারী সেখানে আগে থাকা এক মার্কিন ও দুই রাশিয়ান নভোচারীর সঙ্গে যোগ দেবেন।

নাসার সঙ্গে মহাকাশ গবেষণায় ৩০০ কোটি ডলারের উচ্চাভিলাষী চুক্তি রয়েছে স্পেসএক্সের। এর আওতায় নভোচারীদের জন্য ট্যাক্সি সেবার উন্নয়ন, পরীক্ষা ও উড্ডয়নের পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছে ইলন মাস্কের প্রতিষ্ঠানটি।

ফেসবুক, গুগলের মতো সামাজিক মাধ্যম থেকে বাংলাদেশ সরকার কেন রাজস্ব আদায় করতে পারছে না

ডেস্ক রিপাের্ট : গুগল, ফেসবুক, ইউটিউবসহ ইন্টারনেট-ভিত্তিক আন্তর্জাতিক প্লাটফর্মগুলোতে বাংলাদেশ থেকে বিজ্ঞাপনসহ অন্যান্য যেসব লেনদেন হচ্ছে, বাংলাদেশ সরকারের ব্যবস্থাপনায় ঘাটতির কারণে সেসব থেকে রাজস্ব আদায় করা যাচ্ছে না।

টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার বিবিসিকে বলেছেন, আন্তর্জাতিক এ ধরনের প্রতিষ্ঠানগুলো উৎস কর বা ভ্যাট এবং শুল্ক না দেয়ায় সরকার এবং দেশীয় গণমাধ্যম ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

এ বিষয়ে আদালতের নির্দেশনার পরদিন সোমবার জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের কর্মকর্তারা বলেছেন, ভ্যাট আদায়ে জটিলতা চিহ্নিত করে তা নিরসনের ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

এর আগে রোববার হাইকোর্ট ভ্যাট এবং শুল্ক আদায়ে কয়েকদফা ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেয়।

গুগল, ফেসবুক, ইউটিউবসহ ইন্টারনেট ভিত্তিক প্লাটফর্ম ব্যবহারকারীর সংখ্যা বাংলাদেশে বেড়েই চলেছে। – বিবিসি

অনলাইনে দারাজের অবৈধ ক্যাসিনো বাণিজ্য

ডেস্ক রিপাের্ট : চমকের ছড়াছড়ি। মাত্র ১ টাকায় ১৬ লাখ টাকার গাড়ি! এমন লোভনীয় অফারে, কার না ভাগ্যটা পরীক্ষা করে নিতে ইচ্ছা করে। আর এভাবেই প্রতারণার ফাঁদে ফেলে সবাইকে বোকা বানিয়ে কুইজ আর ক্যাম্পেইনের নামে জুয়ার আসর চালাচ্ছে অনলাইন শপ দারাজ। কোনো অনুমতি ছাড়াই চলছে এসব অনৈতিক কার্যক্রম। মানুষকে আকৃষ্ট করতে টিভি পর্দায় ঘুরছে জুয়ার স্পিন। এসব বন্ধে টাস্কফোর্স গঠনের পরামর্শ দিয়েছেন অপরাধ বিজ্ঞানীরা।

ক্যাসিনো কিং হিসেবে পরিচিত এনু, রুপন বা সম্রাটরা র্যা বের অভিযানে ধরা পড়েছে। তবে বসে নেই জুয়াড়িরা। এবার লোভের ফাঁদে ফেলে ক্যাসিনোর ভোল পাল্টিয়ে প্রকাশ্যে চলছে ভিন্ন ধরনের এক টাকার গেম। এমন অভিযোগ উঠেছে অনলাইন শপ দারাজের বিরুদ্ধে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও টিভি পর্দায় বহুমুখী প্রচারের মাধ্যমে প্রতারণার ফাঁদ পেতেছে তারা। মাত্র এক টাকায় দামি গাড়ি, মোটরসাইকেল ও মোবাইলসহ বহু অফারের ছড়াছড়ি। আর এতেই হুমড়ি খেয়ে পড়ছেন অনেকেই।

দেশে দারাজের প্রধান বাণিজ্যিক কর্মকর্তা ফুয়াদ আরেফিন নিশ্চিত করেছেন ক্যাম্পেইনের অনুমতি নেই তাদের।
অনলাইন শপগুলো ব্যবসার নামে মানুষকে ঠকাচ্ছে। তবে এটি নিয়ন্ত্রণের দায়িত্ব ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের নয় বলে জানান মন্ত্রী।

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, অনলাইনের পুরো বিষয়টা যদিও আমরা শুরু করেছিলাম আইসিটি ডিভিশন থেকে। তবে এটার পুরো কর্মকাণ্ড বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের।
এ বিষয়ে বাণিজ্যমন্ত্রীর সঙ্গে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করেও তাকে পাওয়া যায়নি।
মানুষকে লোভের ফাঁদে ফেলে টাকা হাতিয়ে নেয়া, সরাসরি প্রতারণা বলে মনে করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রিমিনোলজি বিভাগের শিক্ষক খন্দকার ফারজানা।

তিনি বলেন, এই ব্যবসায়িক প্রতারণাকে আমি মনে করি জুয়া বা ক্যাসিনোর শামিল। স্পেশাল টাস্কফোর্স এর কথা আমরা অনেকদিন ধরে বলছি। যদি এটার বাস্তবায়ন করা না হয় তবে প্রলোভন দেখিয়ে সাধারণ মানুষকে ফাঁদে ফেলার যে একটি ব্যবসায়িক কার্যকলাপ শুরু হয়েছে, সেটা বন্ধ করা সম্ভব হবে না।
লোভে পড়ে প্রতারণার ফাঁদে পা না দিতে সবাইকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন এই বিশেষজ্ঞ। – আরটিভি

ঘরে বসে অ্যাপেই পরীক্ষা করা যাবে কোভিড-১৯!

ডেস্ক রিপাের্ট : শরীরে করোনাভাইরাস বাসা বেঁধেছে কি না সেটা বোঝা কঠিন। কোভিড টেস্ট ছাড়া নিশ্চিত হওয়ার উপায় নেই। এই সমস্যা মেটাতেই এবার অভিনব অ্যাপ বানিয়ে ফেললেন গবেষকদের একটি দল। যা আপনার কাশি পরীক্ষা করেই বলে দেবে আপনি সংক্রমিত কি না।

ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির এক দল গবেষকরাই এই কীর্তি করে দেখিয়েছেন। একাধিক রিপোর্টে জানা গিয়েছে তাদের নয়া আবিষ্কারের কথা। গবেষকরা মেশিন লার্নিং এবং আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সকে কাজে লাগিয়ে কোভিড-১৯ চিহ্নিত করছেন। উপসর্গহীনদের দেহেও সংক্রমণ থাকলে, বলে দেবে অ্যাপটি। করোনা আক্রান্ত না হলেও আশ্বস্ত করবে। অ্যালজাইমার গবেষণায় ব্যবহৃত এআই ফ্রেমওয়ার্কই এই অ্যাপের ক্ষেত্রেও ব্যবহার করা হয়েছে। করোনা সাধারণত শরীরের যে সমস্ত অংশে থাবা বসাতে পারে, যেমন ফুসফুস, ভোকাল কর্ড ইত্যাদির কাজ সঠিকভাবে চলছে কি না, বলে দিতে পারে এই এআই।

এই অ্যাপটি তৈরি করার জন্য দীর্ঘ পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলে। স্মার্টফোনের মাধ্যমে রেকর্ড করা প্রায় ৭০ হাজার সর্দি-কাশির শব্দকে কোভিড চিহ্নিতকরণের পরীক্ষায় কাজে লাগানো হয়। এর ফেলে প্রায় ২ লক্ষ কাশির নমুনা টেস্ট করা হয়। দেখা যায়, ২৫০০ করোনা আক্রান্ত। যার মধ্যে অনেকেই আবার উপসর্গহীন।

গবেষকরা জানাচ্ছেন, এই আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্স ব্যবহার করে, বিনামূল্যে তৎক্ষণাৎ নির্ভুল রিপোর্ট পাওয়া সম্ভব। যদিও এটি এখনও অ্যাপ স্টোরে আসেনি। আনুষ্ঠানিকভাবে অ্যাপটির নামও ঘোষণা করা হয়নি। তবে করোনা চিকিৎসা ক্ষেত্রে এই অ্যাপ যে নয়া দিশা দেখাবে, তা বলাই বাহুল্য।

মঙ্গলে ৪০০ বছর আগে জলাধার ছিল

ডেস্ক রিপাের্ট : লাল গ্রহ মঙ্গলে পানির উৎপত্তি হয়েছিল আনুমানিক ৪৪০ কোটি বছর আগে। উল্কাপিণ্ডের অংশ খতিয়ে দেখে এমনটাই দাবি করেছেন জাপানের একদল গবেষক। ফলে সম্প্রতি লাল গ্রহ নিয়ে গবেষণায় সেখানে যে তিনটি জলধারার চিহ্ন পাওয়া গিয়েছে, তা কি এত কোটি বছর আগেকারই? প্রশ্ন উঠছে।

কিন্তু উল্কার সঙ্গে মঙ্গল গ্রহের কী সম্পর্ক? বেশ কিছু বছর আগে সাহারা মরুভূমি থেকে বিজ্ঞানীরা একজোড়া উল্কাপিণ্ড আবিষ্কার করেছিলেন। ওই প্রাচীন উল্কাপিণ্ডগুলোর নামকরণ করা হয়েছিল যথাক্রমে এনডব্লিউএ ৭০৩৪, এনডব্লিউএ ৭৫৩৩। দফায় দফায় নানাবিধ পরীক্ষানিরীক্ষার পর জানা যায়, সেই উল্কাপিণ্ডগুলো আদপে মঙ্গল গ্রহজাত। কারণ, তাতে যে ধরনের শিলাসমূহের উপস্থিতি রয়েছে, তা কেবলমাত্র পৃথিবীর পড়শি গ্রহটিতেই মেলে।

এই ধরনের শিলা অতি-বিরল শ্রেণির। বিক্রি হলে প্রতি গ্রামে দাম উঠতে পারে ১০ হাজর ডলার পর্যন্ত। সম্প্রতি এর মধ্যে এনডব্লিউএ ৭০৩৪ পিণ্ডটির ৫০ গ্রাম অধিগ্রহণ করা হয় আন্তর্জাতিক বিজ্ঞানীদের একটি দলের তরফে, আরও ভালভাবে পরীক্ষা করার জন্য। ওই দলেই ছিলেন ইউনিভার্সিটি অব টোকিওর অধ্যাপক তাকাশি মিকৌচি। গবেষণার পরে মিকৌচি বলছেন, ‘আমরা ওই নমুনা নিয়ে চারটি আলাদা আলাদা স্পেকট্রোস্কোপিক পরীক্ষা করেছি। আর তাতেই মিলেছে অভূতপূর্ব ফলাফল।’

মিকৌচির দাবি, শিলার গঠন সংক্রান্ত ওই পরীক্ষায় প্রমাণিত হয়েছে যে মঙ্গল গ্রহে জলাধার সৃষ্টি হয়েছিল ঠিকই, কিন্তু অন্তত ৪৪০ কোটি বছর আগে। তার পর্যবেক্ষণ প্রকাশিত হয়েছে ‘সায়েন্স অ্যাডভান্সেস’ নামের জার্নালে।

এতদিন বিজ্ঞানীদের ধারণা ছিল যে, মঙ্গলে পানির উৎপত্তি হয় অন্তত ৩৭০ কোটি বছর আগে। মিকৌচি ও তার দল জানিয়েছে, উল্কাপিণ্ডগুলোতে যে আগ্নেয় শিলা মিলেছে, তার উৎপত্তি হয়েছে ম্যাগমা থেকে। এতে শিলার জারণ হয়েছে বলে প্রমাণও মিলেছে। কিন্তু এই জারণ প্রক্রিয়া তখনই সম্ভব, যখন সেখানে পানির অস্তিত্ব থাকবে।

দুর্দান্ত ক্যামেরা ও অনবদ্য প্রসেসরের ফোন আসছে

ডেস্ক রিপোর্ট : দুর্ধর্ষ ক্যামেরা ও অনবদ্য প্রসেসরের ফোন আসছে অপো। মডেল অপো কে৭এক্স। সম্প্রতি ফোনটির ফাস্ট লুক প্রকাশ পেয়েছে। ফোনটির ফার্স্ট লুক থেকেই বোঝা যাচ্ছে যে, অপোর নতুন ফোনের পেছনে থাকছে রেক্টাঙ্গুল্যার ক্য়ামেরা ব্লক। তবে পিছনে কোনও ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর থাকছে।

ফাস্ট লুক থেকে একটা বিষয় পরিষ্কার যে, ডিসপ্লে-তেই এটি এমবেড করা থাকবে।

স্মার্টফোন লঞ্চের খবর চীনের উইবোতে একটি টিজার ভিডিয়ো প্রকাশের মধ্যে দিয়েই নিশ্চিত করে জানিয়েছে চাইনিজ স্মার্টফোন ব্র্যান্ড অপো।
হার্ডওয়্যারের দিক থেকেই এই স্মার্টফোনে একাধিক পরিবর্তন করতে চলেছে। টিজার থেকে আরও জানা গিয়েছে যে, এই ফোনে ৫জি সুবিধা উপলব্ধ হবে।

অপো কে৭এক্স ফোনের স্পেসিফিকেশনস নিয়ে অপোর পক্ষে অফিশিয়ালি এখনও অবধি কিছুই জানানো হয়নি। তবে টেক ওয়েবসাইট গিজমো চায়না জানিয়েছে, টিনা সার্টিফিকেশন ওয়েবসাইটে নতুন এই ফোনের মডেল নম্বর PERM00 ।

টিনার সেই লিস্টিং থেকে সেই ডিভাইসের স্পেসিফিকেশন নিয়ে বেশ কিছু তথ্য জানা গিয়েছে।

মনে করা হচ্ছে, এই ফিচার্সগুলোই অপো কে৭এক্স স্মার্টফোনের। ফোনে থাকছে ৬.৫ ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস ডিসপ্লে, যার পিক্সেল রেজোলিউশন ১০৮০x২৪০০0 পিক্সেল। ফোনের প্রসেসর অক্টাকোর। ৬ জিবি ও ৮ জিবি র‌্যাম ভার্সনে ফোনটি পাওয়া যাবে। ফোনটি চলবে অ্যানড্রয়েড ১০ অপারেটিং সিস্টেমে।

ক্যামেরার দিক থেকেও ফোনটি অসাধারণ হতে চলেছে। অপো কে৭এক্স স্মার্টফোনের প্রাইমারি ক্যামেরা ৪৮ মেগাপিক্সেল, তার সঙ্গেই এতে থাকছে একটি ৮ মেগাপিক্সেলের সেকেন্ডারি ক্যামেরা এবং একটি আলট্রাওয়াইড সেন্সর। এছাড়াও একটি ২ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরাও থাকছে। ম্যাক্রো এবং ডেপথ সেন্সর সহযোগে ফোনের ক্যামেরা ইউজারকে অনবদ্য অভিজ্ঞতা দিতে চলেছে। সেলফির জন্য ফোনের সামনে থাকছে একটি ১৬ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা।

ব্যাকআপের জন্য ফোনটিতে ৪৯১০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার আওয়ারের ব্যাটারি দেয়া হয়েছে।

গুগলের পিক্সেল ৫ ফোনে অনবদ্য ফিচার

ডেস্ক রিপোর্ট : অনবদ্য ফিচারের ফোন গুগল পিক্সেল ৫। মেটাল বডির এই স্মার্টফোনে রয়েছে ওয়্যারলেস চার্জিং ফিচার। গুগল এক বিবৃতিতে জানিয়েছে কীভাবে কাজ করবে চার্জিং ফিচার।

পিক্সেল ৫ স্মার্টফোনের ঠিক যেখানে অ্যালুমিনিয়াম শেল রয়েছে, তার মধ্যেই একটি বড় কাটআউট রয়েছে। সেই কাটআউটেই কাজ করবে ওয়্যারলেস চার্জিং কয়েল।

এনগ্যাজেট এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, পিক্সেল ৫ ফোনের বাইরের বায়ো-রেজিন প্লাস্টিক আসলে গ্রাহককে এক নিরবচ্ছিন্ন পৃষ্ঠের অভিজ্ঞতা দেবে।

পিক্সেলের অন্যান্য স্মার্টফোনের মতোই এর ডিজাইন। তবে বদল রয়েছে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ ফিচার্সে। ভলিউম রকারের কাছে নতুন ৫জি অ্যান্টেনা যোগ করেছে গুগল। গুগল পিক্সেল ৪ স্মার্টফোনের স্ক্রিন বা ডিসপ্লে নিয়ে যে অভিযোগগুলো জমা হচ্ছিল, সেগুলো দূর করতে গুগল পিক্সেল ৫ স্মার্টফোনের ডিসপ্লে আরও ত্রুটিবিচ্যুতিহীন করেছে এই টেকজায়ান্ট।

এছাড়াও রয়েছে আরও বেশ কিছু অনবদ্য ফিচার। পিক্সেল ৪ এর মতোই পিক্সেল ৫এও ব্যবহার করা হচ্ছে মেইনবোর্ড। এই বোর্ডের সাহায্যেই ফোনের ব্যাটারি হতে চলেছে আরও শক্তিশালী। তবে টেক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, গুগলের স্মার্টফোনের জন্য এই নতুন ওয়্যারলেস চার্জিংয়ের পন্থা নিঃসন্দেহে নতুনত্ব রয়েছে।

১৫১