adv
২৪শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিরাট কোহলি ও আনুশকার চোখে আনন্দাশ্রু

স্পোর্টস ডেস্ক: মাস ছয়েক আগের ঘটনা। দেশের মাটিতে ওয়ানডে বিশ্বকাপের ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরে যায় ভারত। সতীর্থ আর সমর্থকদের মতোই বেদনায় মুষড়ে পড়লেন টুর্নামেন্টজুড়ে অবিশ্বাস্য পারফর্ম করা বিরাট কোহলি। ডাগ-আউটে গিয়ে জড়িয়ে ধরলেন জীবনসঙ্গী আনুশকা শর্মাকে। দুজনের চোখ ভিজে উঠলো জলে। সময়ের পালাবদলে আবারও দুজনের চোখে জল দেখা গেল। তবে বিষাদে নয়, আনন্দের আতিশয্যে।

গত শনিবার চেন্নাই সুপার কিংসকে ২৭ রানে হারিয়ে অবিশ্বাস্যভাবে প্লে অফে উঠে গেছে এখনও পর্যন্ত শিরোপার স্বাদ না পাওয়া রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। শুধু তাই নয়, হার দিয়ে আইপিএল শুরু করেছিল ফাফ ডুপ্লেসিসের দল। এরপর এক জয়ের পর আবার টানা ৬ ম্যাচে হার। এতে পয়েন্ট টেবিলের একেবারে তলানীতে গিয়ে ঠেকেছিল বেঙ্গালুরু। সেই অবস্থা থেকে টানা ৬ ম্যাচ জিতে প্লে অফে ওঠা তো রূপকথার গল্পকেও হার মানায়।

ঘরের মাঠে চেন্নাইয়ের মতো দলকে হারানোর চেয়ে বড় আনন্দ কী হতে পারে? সেই রোমাঞ্চকর আনন্দের স্বাদ পেতে এদিনও গ্যালারিতে ছিলেন বলিউড স্টার আনুশকা। অবিশ্বাস্য এক ম্যাচ জিতে নিজের আবেগকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারেননি কোহলি। তার চোখে দেখা যায় আনন্দ অশ্রু। গ্যালারিতে বিজয়ের আনন্দে উদ্বেলিত আনুশকার চোখদুটিও ছলছল করছিল। আনন্দে ভাসছিলেন বেঙ্গালুরুর সমর্থকেরা।

চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করে ৫ উইকেটে ২১৮ রান তুলেছিল বেঙ্গালুরু। ব্যাট হাতে ধ্বংসাত্মক ছিলেন এখন পর্যন্ত টুর্নামেন্টের সর্বাধিক রান সংগ্রাহক বিরাট কোহলি। জবাবে চেন্নাই ৭ উইকেটে ১৯১ রান তুলতে সক্ষম হয়। অথচ, কোনোভাবে ২০১ রান করতে পারলেই চেন্নাই নেট রানরেটে এগিয়ে প্লে অফ নিশ্চিত করতে পারতো। এজন্য শেষ ওভারে তাদের করতে হতো মাত্র ১৭ রান। সেটা আর হয়ে ওঠেনি।

বিরাট কোহলিদের সামনে এখন এলিমিনেটর ম্যাচ। তাদের প্রতিপক্ষ হবে পয়েন্ট টেবিলের তৃতীয় অবস্থানে থাকা দল। ওই ম্যাচ জিতলে কোহলিরা চলে যাবে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে। আর কোয়ালিফায়ার জিতলেই মিলবে ফাইনালের টিকিট।

জয় পরাজয় আরো খবর

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
May 2024
M T W T F S S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া