adv
২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মোমেনের চিঠি: ‘অযাচিত চাপের প্রেক্ষাপটে জাতিসংঘের সহযোগিতা প্রত্যাশা করে বাংলাদেশ’

ডেস্ক রিপাের্ট: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ বলে জাতিসংঘকে জানিয়েছে বাংলাদেশ। এছাড়া, অযাচিত রাজনৈতিক চাপের প্রেক্ষাপটে, জাতিসংঘের সহযোগিতামূলক ভূমিকা প্রত্যাশাও করেছে বাংলাদেশ।

দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন এক চিঠিতে এ কথা জাতিসংঘকে জানান। গত ১৯ নভেম্বর চিঠিটি লেখা হয় এবং ২০ নভেম্বর জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী মিশন তা প্রেরণ করে।

জাতিসংঘ মহাসচিবের কার্যালয়ের প্রধান আর্লে কোর্টনে রাট্রে এর কাছে পাঠানো চিঠিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন বলেন, “আমরা আশা করি সংস্থার কর্মকর্তারা জাতিসংঘের বিশ্বাসযোগ্যতা ও সম্মান সমুন্নত রাখতে নির্দলীয় অবস্থান, সততা ও বস্তুনিষ্ঠতার সর্বোচ্চ মান বজায় রাখবেন।

আব্দুল মোমেন লিখেছেন, “যদি জাতিসংঘের প্রতিবেদনগুলো মিথ্যা ও বস্তুনিষ্ঠ না হয় এবং যদি সত্য ভিত্তিক না হয়, তবে কর্মকর্তারা বিশ্বাসযোগ্যতা হারাতে পারেন; আর এটা জাতিসংঘ ব্যবস্থার জন্য একটি খারাপ লক্ষণ হবে।”

চিঠিতে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে, বিভিন্ন মহল থেকে আমরা যে অযৌক্তিক, অযাচিত ও স্বার্থান্বেষী রাজনৈতিক চাপের সম্মুখীন হচ্ছি।

তিনি বলে, এমন প্রেক্ষাপটে আশা করি; জাতিসংঘের সচিবালয়, সংস্থা ও কান্ট্রি অফিসসহ জাতিসংঘের বিভিন্ন ব্যবস্থা; বাংলাদেশ যাতে উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় অবিচল থাকতে পারে, সেই বিষয়ে গঠনমূলক ও সহযোগিতামূলক ভূমিকা পালন করবে।

চিঠিতে ড. মোমেন লিখেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণতন্ত্রের একজন নির্ভীক কর্মী এবং তিনি ভোটাধিকার, খাদ্যের অধিকার এবং একটি উন্নত জীবনের অধিকার নিশ্চিত করতে অনেক কষ্ট করছেন।”

পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন বলেন, “শেখ হাসিনা তার ১৫ বছরের শাসনামলে উপনির্বাচন, জাতীয় নির্বাচন, আঞ্চলিক নির্বাচন, মেয়র নির্বাচনসহ হাজার হাজার নির্বাচন পরিচালনা করেছেন। এসব নির্বাচনে বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনা ছাড়া সবই অবাদ ও সুষ্ঠু হয়েছে।”

আব্দুল মোমেন উল্লেখ করেন, “বাংলাদেশ তার নাগরিকদের মানবাধিকার এবং মৌলিক স্বাধীনতার প্রচার ও সুরক্ষায় দৃঢ়ভাবে বিশ্বাসী।”

তিনি বলেন, “আমরা আশাবাদী, জাতীয় পর্যায়ে সবার জন্য একটি শান্তিপূর্ণ, ন্যায়সঙ্গত, অন্তর্ভুক্তিমূলক পদ্ধতি প্রতিষ্ঠা এবং আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে, সমৃদ্ধ ভবিষ্যত নিশ্চিত করার বিষয়ে বাংলাদেশের প্রচেষ্টায় বিশ্বস্ত অংশীদার হিসেবে কাজ করে যাবে জাতিসংঘ ব্যবস্থা।”

আব্দুল মোমেন জাতিংঘকে লেখা তার চিঠিতে বলেন, “বাংলাদেশ গণতন্ত্র, মানবাধিকার, ন্যায়বিচার ও মানবিক মর্যাদা সমুন্নত রাখার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে। এটি বিশ্বের একমাত্র দেশ; যে দেশ গণতন্ত্র, মানবাধিকার ও ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার জন্য ৩০ লাখ জীবন উৎসর্গ করেছে।”

ড. মোমেন বলেন, শান্তিপূর্ণ উপায়ে আন্তর্জাতিক শান্তি ও নিরাপত্তা বজায় রাখার পক্ষে একটি শক্তিশালী কণ্ঠস্বর হিসাবে, বাংলাদেশ সবসময় তার অবস্থান বজায় রেখেছে।

চিঠিতে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন “বাংলাদেশ জাতিসংঘের একটি সক্রিয় ও সহায়ক সদস্য রাষ্ট্র। আমাদের জনগণের রাজনৈতিক অগ্রগতি ও আর্থ-সামাজিক মুক্তির লক্ষ্যে; আমাদের জাতীয় যাত্রায় জাতিসংঘ সহযোগিতা ও সহায়তা অব্যাহত রাখবে বলে উচ্চ প্রত্যাশা রয়েছে।”

জয় পরাজয় আরো খবর

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
December 2023
M T W T F S S
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া