adv
২৪শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মানবিক বিভাগ থেকে এইচএসসি পাস করে ডাক্তার, ভিজিট ৭০০ টাকা

ডেস্ক রিপাের্ট: ভুয়া নাম পদবি ব্যবহার করে দীর্ঘদিন যাবৎ চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছেন অমর শীল (৩৫) নামে এক ব্যক্তি। অবশেষে ধরা পড়লেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইয়াসির আরাফাতের কাছে।

শনিবার (১৯ আগস্ট) দুপুরে বেগমগঞ্জের জেনারেল মা ও শিশু হাসপাতালে ভুয়া চিকিৎসক অমর শীলকে দুই বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এ সময় সেবা গ্রহীতার জীবন বিপন্নকারী কাজের অপরাধে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

দণ্ডপ্রাপ্ত অমর শীল চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জ উপজেলার উলিপুর গ্রামের মৃত গৌরেন্দ্র শীলের ছেলে।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা যায়, অমর শীল ২০০৩ সালে চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জ উপজেলার বলাখাল জেএন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মানবিক বিভাগ থেকে এসএসসি ও ২০০৫ সালে হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ থেকে মানবিক বিভাগ থেকে এইচএসসি পাস করেন। পরে তিনি আর পড়াশোনা করেন নি। অমর শীল জেনারেল মা ও শিশু হাসপাতালের নীচ তলায় ডা. মো. এনামুল হক নামে চার মাস যাবৎ রোগী দেখছিলেন। রোগী প্রতি ৭০০ টাকা করে ভিজিট নিতেন তিনি। এর আগে তিনি মাইজদী ট্রাস্ট ওয়ান হাসপাতালে চেম্বার করতেন বলে জানান।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার দুপুরে বেগমগঞ্জের জেনারেল মা ও শিশু হাসপাতালে যান ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট ও বেগমগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. ইয়াসির আরাফাত। অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় অমর শীলকে দুই বছরের কারাদণ্ড ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে এক লাখ টাকা অর্থদণ্ড করেন তিনি।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ম্যাজিস্ট্রেট ও বেগমগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. ইয়াসির আরাফাত ঢাকা পোস্টকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় বেগমগঞ্জ উপজেলার স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. অসীম কুমার দাস ও বেগমগঞ্জ মডেল থানার পুলিশ সদস্যরা সহায়তা করেন।

জয় পরাজয় আরো খবর

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া