adv
২রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৮ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশের বন্ধু সাইমন ড্রিংয়ের চিরবিদায়

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বাংলাদেশের বন্ধু ব্রিটিশ সাংবাদিক সাইমন ড্রিং মারা গেছেন। ১৯৭১ সালে বাঙালি জাতির উপর পাকিস্তানি বাহিনীর বর্বরতার খবর বিশ্ববাসীর কাছে তুলে ধরেছিলেন এই সাহসী সাংবাদিক। গত শুক্রবার রোমানিয়ার একটি হাসপাতালে অস্ত্রোপচারের সময় তার মৃত্যু হয়। লন্ডন থেকে সাংবাদিক সৈয়দ নাহাস পাশা তার নিজ ফেসবুক অ্যাকাউন্টে দেওয়া একটি স্ট্যাটাসে সাইমন ড্রিংয়ের মৃত্যুর খবরটি প্রকাশ করেন। এছাড়া আরো একাধিক সূত্র সংবাদমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে সাইমন ড্রিং গণহত্যার প্রত্যক্ষদর্শী প্রথম বিদেশি সাংবাদিক। জীবন বিপন্ন রেখে সরেজমিন প্রতিবেদন তৈরি করে সারাবিশ্বকে জানিয়ে দেন পাকিস্তানি বাহিনীর লোমহর্ষক নির্যাতন ও গণহত্যার কথা।

সাইমন ড্রিং ষাটের দশক থেকে দীর্ঘসময় বিবিসিতে যুদ্ধ বিষয়ক সাংবাদিকতা করেছেন। বিশ্বের বিভিন্ন সংঘাতময় দেশের যুদ্ধের ওপর প্রতিবেদন তৈরি করেছেন। সাইমন মাত্র ১৮ বছর বয়সে ব্যাংককের ওয়ার্ল্ড নিউজপেপারে সম্পাদনা সহকারি হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন। তিনি ভিয়েতনাম যুদ্ধে রয়টার্স এবং অন্যান্য সংবাদ সংস্থাগুলোর জন্য রিপোর্ট করেন।

বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে জনমত তৈরি কাজ করেছিলেন সাইমন ড্রিং। ২৫ মার্চ রাতে পাকিস্তানি সেনাবাহিনী নিরস্ত্র বাঙালির উপর যে বর্বরোচিত হামলা চালিয়েছিল সে বিষয়ে প্রতিবেদন লিখেছিলেন। যা ডেইলি টেলিগ্রাফ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছিল। তার প্রতিবেদনের মাধ্যমেই বিশ্ববাসী জানতে পারে পাকিস্তানি বাহিনীর বর্বরতার কথা।

১৯৪৫ সালে সাইমন ড্রিংয়ের জন্ম ইংল্যান্ডে। তিনি তার সাংবাদিকতা ক্যারিয়ারে দেখেছেন ২২টি যুদ্ধ, অভ্যুত্থান ও বিপ্লব। ১৯৯৭ সালে ড্রিং বাংলাদেশের প্রথম বেসরকারি স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেল একুশে টেলিভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ছিলেন। বাংলাদেশে আধুনিক টেলিভিশনের নতুন ধারা তৈরিতে তার অবদান রয়েছে।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া