adv
১২ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৯শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

অর্থ কষ্টে আছেন মহানায়ক উত্তম কুমারের সহ-অভিনেতা!

বিনােদন ডেস্ক : অভাবের তাড়নায় রাস্তায় ভিক্ষা পর্যন্ত করেছেন টলিউডের ৭০ বছরের অভিনেতা শংকর চৌধুরীকে। একদিন উত্তম কুমার, সলিল চৌধুরীর মতো মানুষের সঙ্গে কাজ করেছিলেন। কিন্তু আজ নিদারুণ দারিদ্র্যে হাত পাততে বাধ্য হয়েছেন। প্রবীণ অভিনেতার এই করুণ কাহিনী নিজের ফেসবুক ওয়ালে তুলে ধরেন টেলিভিশনের ‘বামাক্ষ্যাপা’ নামে সব্যসাচী চৌধুরী।

শনিবার (১ মে) সকাল এগারোটার দিকে শংকর চৌধুরীর ছবি পোস্ট করেন সব্যসাচী।

তিনি জানান, দীর্ঘ ৫০ বছরের অভিনয় জীবন ৭০ বছরের শংকর বাবুর। এর পরই লেখেন, ‘দেখা হলেই এখনো পুরনো দিনের গল্প বলেন, উত্তম কুমার, সলিল চৌধুরী আরো কতজনের সঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতা বলেন। দুঃখ করে বললেন, বাংলার থিয়েটারটা শেষ হয়ে গেল, এক কালে মাস মাইনে ছিল, বোনাস ছিল। দিল্লি ও বম্বে থেকে নাম করা অভিনেতারা আসতেন, আর এখন হলগুলো দেখলে কষ্ট হয়।’

সর্বশেষে ‘সৌদামিনীর সংসার’ ধারাবাহিকে কাজ করেছেন শংকর চৌধুরী। তার আগে ‘মহাপীঠ তারাপীঠ’ ধারাবাহিকেও তিন দিনের কাজ করেছিলেন বলে জানান সব্যসাচী। কিন্তু তার পরই কাজ ছিল না। খাবারের পয়সাটুকু না থাকায় হাতিবাগানের মোড়ে হাত পেতেছিলেন প্রবীণ অভিনেতা।

নিজের স্ত্রী এবং ছোট নাতিকে নিয়ে থাকেন গৌরীবাড়ির মোড়ে এক জরাজীর্ণ বাড়িতে। সে কথা সব্যসাচীকে জানান তিনি। তার বাড়ির ঠিকানা, ফোন নম্বর এবং টাকা পাঠানোর একাধিক মাধ্যমের কথা জানিয়েছিলেন ‘মহাপীঠ তারাপীঠ’ ধারাবাহিকের অভিনেতা। সাহায্যের জন্য এগিয়ে এসেছিলেন ক্যানসার অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা শর্মাও।

সব্যসাচীর এই পোস্টেই কাজ হয়। বিকেল চারটার দিকে আবার ফেসবুকে সে কথা জানিয়ে সব্যসাচী লেখেন, ‘১২ ঘণ্টা আগে শংকর ঘোষালকে নিয়ে পোস্টটি করেছিলাম। এই ১২ ঘণ্টায় শংকরদার অ্যাকাউন্টে প্রায় ৪০ হাজার টাকা ঢুকেছে, তার বাড়িতে আগামী এক মাসের খাবার ঢুকেছে। ওষুধপত্রও চলে আসবে আজকালের মধ্যে। সবচেয়ে বড় কথা, একটা কাজেরও ব্যবস্থা হয়েছে।’

এক খুদে স্কুলপড়ুয়া ১১ টাকা পাঠিয়েছে বলেও জানান সব্যসাচী।

সূত্র: সংবাদ প্রতিদিনি।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
May 2021
M T W T F S S
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
31  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া