adv
১২ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৯শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

কাদের ​মির্জার প্রতিদ্বন্দ্বী আ.লীগ নেতা মিজানুর রহমান বাদল কারাগারে

ডেস্ক রিপাের্ট : নোয়াখালী জেলা গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয়ে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল। শুক্রবার দুপুরে তোলা ছবি। -পূর্বপশ্চিম

নাশকতার এক মামলায় ডিবি পুলিশের হাতে গ্রেপ্তারের পর জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদলকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

শুক্রবার (১২ মার্চ) দুপুর ১টায় নোয়াখালী জুডিশিয়াল কোর্টের বিচারক সোয়েব উদ্দিন খাঁন একটি মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এছাড়া আরো তিনটি মামলায় তার জামিন আবেদন নাকচ করে দেন বিচারক।

এর আগে বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টার দিকে নোয়াখালী প্রেসক্লাব এলাকা থেকে বাদলকে তুলে নেয়ার অভিযোগ করেন তার ছোট ভাই রহিম উল্লাহ চৌধুরী বিদ্যুৎ। তবে পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেন বলেছিলেন, এ বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না।

পরে পৌরসভা ভবনে হামলা-ভাঙচুর, গুলি, নাশকতাসহ চারটি মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

নোয়াখালী জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হোসাইন আহমেদ বলেন, একটি নাশকতা মামলায় বৃহস্পতিবার (১১ মার্চ) বিকেলে আটক করা হয় বাদলকে। পরে আইনানুগভাবে শুক্রবার দুপুরে তাকে আদালতে সোপর্দ করা হয়। শুনানি শেষে বিচারক জামিনের আবেদন নাকচ করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার দীপক জ্যোতি খীসা বলেন, গ্রেপ্তারকৃত মিজানুর রহমান বাদলকে চাপরাশিরহাট পূর্ব বাজারে পুলিশের ওপর হামলার ঘটনা মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। পরে নোয়াখালী বিচারিক সোয়োব উদ্দিন খানের আদালতে পাঠানো হলে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

১৯ ফেব্রুয়ারি কোম্পানীগঞ্জের চাপরাশিরহাট বাজারে বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা ও মিজানুর রহমানের সমর্থকদের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এ সময় গুলিবিদ্ধ হন সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২০ ফেব্রুয়ারি রাতে তিনি মারা যান। ৯ মার্চ রাত ৯টার দিকে উপজেলার বসুরহাট পৌরসভা চত্বরে উভয় পক্ষের মধ্যে পুনরায় গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান যুবলীগের কর্মী আলাউদ্দিন (৩২)।

আওয়ামী লীগের বিবদমান এই দুই গ্রুপের নিয়ন্ত্রণ করছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোটভাই পৌর মেয়র আবদুল কাদের মির্জা এবং উপজেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল।

১৬ জানুয়ারির পৌর নির্বাচনে বসুরহাট পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হন কাদের মির্জা। এই নির্বাচনের আগে দল ও নেতা-কর্মীদের নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করে আলোচনায় আসেন তিনি।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া