রিভালদোর আশঙ্কা, লিওনেল মেসির বার্সেলোনায় এটাই শেষ মৌসুম

স্পোর্টস ডেস্ক : দল বদল নিয়ে মেসির সঙ্গে বার্সেলোনা ক্লাবের মধ্যে জল কম ঘোলা হয়নি। এরপরও কী বার্সেলোনার সঙ্গে লিওনেল মেসি চুক্তি নবায়ন করবেন? বিশ্বকাপজয়ী ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি রিভালদোর তা মনে হচ্ছে না। বেশ কিছু কারণে চলতি মৌসুম শেষেই মেসি ন্যু ক্যাম্প ছাড়বেন বলে আশঙ্কা করছেন সাবেক এই ফুটবলার।

স্প্যানিশ পরাশক্তি বার্সার সঙ্গে আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড মেসির মধুর সম্পর্ক আর নেই। গত মৌসুমের শেষে ক্লাব ছাড়তে চেয়েছিলেন তিনি। শেষ পর্যন্ত বাধ্য হয়ে রেকর্ড ছয়বারের ব্যালন ডি’অর জয়ী তারকা থেকে গেলেও চুক্তি নবায়নের বিষয়ে কোনো অগ্রগতির খবর নেই। আগামী বছরের জুনে শেষ হয়ে যাচ্ছে দুপক্ষের মধ্যকার চুক্তির মেয়াদ।
ফলে মেসি ইংলিশ পরাশক্তি ম্যানচেস্টার সিটি নাকি ফরাসি চ্যাম্পিয়ন প্যারিস সেইন্ট জার্মেইতে (পিএসজি) যোগ দেবেন? এ নিয়ে চলছে অনেক জল্পনা-কল্পনা।

তাছাড়া করোনাভাইরাসের কারণে আর্থিকভাবে ভীষণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বার্সেলোনা। তাদের দশা কল্পনাতীত করুণ। বিশাল আর্থিক ঘাটতি পোষাতে খেলোয়াড়দের বেতন ব্যাপক আকারে কমাতে হবে তাদেরকে। নইলে আগামী জানুয়ারিতে দেউলিয়াও হয়ে যেতে পারে ক্লাবটি।
বর্তমানে ৭০ কোটি পাউন্ডেরও অধিক দেনা রয়েছে বার্সার। দলটির খরচের সিংহভাগ ফুটবলারদের বেতন-ভাতায় ব্যয় হয়। তাই পারিশ্রমিক বাবদ তারা যে ১০০ কোটি পাউন্ড খরচ করে, তাতে লাগাম টানতে চাইছে কাতালানরা। সবমিলিয়ে ১৭ কোটি পাউন্ডের কিছু বেশি পরিমাণ অর্থ বাঁচাতে হবে তাদেরকে। এই লক্ষ্য অর্জনে ক্লাবটির সব খেলোয়াড়কে বেতনের ন্যূনতম ৩০ শতাংশ কমাতে হবে।

ঋণের বোঝা বইতে থাকা বার্সেলোনার পক্ষে বাড়তি বেতন তো দূরের কথা, মেসিকে তার বর্তমান বেতনে ধরে রাখার সামর্থ্যও নেই ক্লাবটির। কিছু দিন আগে এমনটাই জানিয়েছিলেন ক্লাবটির সভাপতি হওয়ার দৌড়ে থাকা টনি ফ্রেইজা।

সবকিছু মিলিয়ে রিভালদো মনে করছেন, দুপক্ষের মধ্যে নতুন চুক্তি স্বাক্ষরের সম্ভাবনা ক্ষীণ, বার্সেলোনা ইতোমধ্যে একবার বেতন কাটার বিষয়ে খেলোয়াড়দের সঙ্গে সমঝোতা করেছে এবং ফের সকলের বেতন কাটার চেষ্টা করেছে যা স্কোয়াড বাতিল করে দিয়েছে। সুতরাং, খেলোয়াড়দের জন্য এটা নতুন কিছু নয়। কিন্তু বেতন বাড়ানোর বদলে কমিয়ে দিয়ে মেসির সঙ্গে নতুন চুক্তি নিয়ে ঐকমত্যে পৌঁছানোর ক্ষেত্রে বিষয়টি কঠিন হবে। ডেইলি স্টার/ মার্কা

জয় পরাজয় আরো খবর