ব্লক মার্কেটে ২৫ কোটি টাকার লেনদেন

ডেস্ক রিপাের্ট : ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) বৃহস্পতিবার ব্লক মার্কেটে মোট ২৮ কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিগুলোর মোট ৬০ লাখ ৪ হাজার ৮৯১টি শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যার আর্থিক মূল্য ২৫ কোটি ৮৪ লাখ টাকা।

ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার ব্লক মার্কেটে সবচেয়ে বেশি টাকার লেনদেন হয়েছে গ্রামীণফোন লিমিটেডের শেয়ার। কোম্পানিটি ৭ কোটি ৯২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন করেছে।

যমুনা ব্যাংক ৫ কোটি ৩৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন করে তালিকার দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে।

ইস্টার্ণ ইন্স্যুরেন্স ৩ কোটি ৫৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন করে তালিকার তৃতীয় স্থানে রয়েছে।

ব্লক মার্কেটে লেনদেন করা অন্য কোম্পানিগুলো হচ্ছে- অগ্নি সিস্টেমস, বিএটিবিসি, বিবিএস কেবলস, বেক্সিমকো ফার্মা, সিএপিএমআইবিবিএল মিউচ্যুয়াল ফান্ড, কনফিডেন্স সিমেন্ট, ডিবিএইচ, এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্স, এস্ককয়ার নিট কম্পোজিট, ফু-ওয়াং ফুড, গোল্ডেন হার্ভেস্ট অ্যাগ্রো, হামিদ ফেব্রিক্স, আইএফআইসি, লংকাবাংলা ফিন্যান্স, এম.এল ডাইং, মুন্নু সিরামিক, নিটল ইন্স্যুরেন্স, প্যারামাউন্ট ইন্স্যুরেন্স, পাইওনিয়র ইন্স্যুরেন্স, প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল, রিপাবলিক ইন্স্যুরেন্স, সোনারবাংলা ইন্স্যুরেন্স, স্কয়ার ফার্মা, এসএস স্টিল ও ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড।

মরিশাসে সড়ক দুর্ঘটনায় ৪ বাংলাদেশি নিহত

ডেস্ক রিপাের্ট : ভারত মহাসাগরে দ্বীপ রাষ্ট্র মরিশাসে সড়ক দুর্ঘটনায় ৪ বাংলাদেশি কর্মী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় বেশ কয়েকজন গুরুতর আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে কাজে যোগ দিতে যাওয়ার সময় রাজধানী পোর্ট লুইসের কাছে পেইল এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

দুর্ঘটনায় হতাহতদের বিস্তারিত পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে পাওয়া যায়নি। নিহতের সবাই হাইবেক কনস্ট্রাকশন নামের একটি কোম্পানিতে নির্মাণ শ্রমিক ছিলেন।

নিহত শ্রমিকদের ক্ষতিপূরণ নিশ্চিত করা হবে বলে মরিশাসে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার রেজিনা আহমেদ জানিয়েছেন।

তথ্যমন্ত্রী বললেন- সাংবাদিকরা জাতিকে পথ দেখায়, খুলে দেয় তৃতীয় নয়ন

নিজস্ব প্রতিবেদক : তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, উন্নত রাষ্ট্র গঠনে নবপ্রজন্মের মনন তৈরিতে গণমাধ্যমের ভূমিকা অনন্য। প্রকৃতপক্ষে সাংবাদিকরা জাতিকে পথ দেখায়, মানুষের তৃতীয় নয়ন খুলে দেয়।

বৃহস্পতিবার (৫ নভেম্বর) দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির রজতজয়ন্তী উপলক্ষে আয়োজিত ‘বঙ্গবন্ধুর ওপর লেখা প্রদর্শনীর সমাপনী ও ডিআরইউ সম্মাননা প্রদান’ অনুষ্ঠানে রাজধানীর সরকারি বাসভবন থেকে অনলাইনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় একথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমাদের সম্মিলিত লক্ষ্য হচ্ছে একটি উন্নত রাষ্ট্র গঠন করা, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশ রচনা করা, ২০৪১ সাল নাগাদ বাংলাদেশকে একটি উন্নত রাষ্ট্রে রূপান্তরিত করা। এবং সেই উন্নত রাষ্ট্রে রূপান্তরিত করতে হলে একটি উন্নত প্রজন্মেরও প্রয়োজন, যে প্রজন্ম বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করবে। আর সেই নতুন প্রজন্মের মনন তৈরিতে, দেশকে সঠিকখাতে প্রবাহিত করতে রাষ্ট্রের চতুর্থস্তম্ভ গণমাধ্যম এবং সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

আমাদের স্বাধিকার আন্দোলন থেকে স্বাধীনতা সংগ্রাম ও পরবর্তীতে দেশ গঠনে সাংবাদিকদের অনবদ্য ভূমিকা ছিল উল্লেখ করে ড. হাছান বলেন, ‘আজকের প্রেক্ষাপটে নতুন প্রজন্মের মনন তৈরি, সমাজে তৃতীয় নয়ন খুলে দেয়া, সমাজের অসঙ্গতিগুলো তুলে ধরা, দায়িত্ববানদেরকে আরো দায়িত্ববান করা, সঠিকভাবে রাষ্ট্র পরিচালনার ক্ষেত্রে সাংবাদিকরা অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

হাছান মাহমুদ বলেন, “প্রধানমন্ত্রী একারণে সাংবাদিকদের প্রতি মমত্ববোধ থেকে এই করোনাকালে তাদের সহায়তার জন্য বিশেষ তহবিল গঠন করেছিলেন এবং সেই তহবিল থেকে আমরা সহায়তা করে যাচ্ছি, যেটি ভারত, পাকিস্তন, নেপাল, শ্রীলংকা কোনো দেশেই করা হয়নি।” ‘প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ও তার নেতৃত্বাধীন সরকারও সমালোচনাকে সমাদৃত করার সংস্কৃতি লালন করে’ স্মরণ করিয়ে মন্ত্রী বলেন, তবে যদি শুধুই সমালোচনা হয়, ভালো কাজের প্রশংসা না হয়, তাহলে যারা ভালো কাজ করে, তারা উৎসাহ হারিয়ে ফেলবে, সেজন্য সমালোচনার পাশাপাশি ভালো কাজের প্রশংসাও প্রয়োজন।

তথ্যমন্ত্রী এসময় ২৫ বছর পূর্তি অনুষ্ঠানমালা সুন্দর ও সফলভাবে সম্পাদন, বিশেষ করে বঙ্গবন্ধুর ওপর লেখার ওপর সম্মাননা প্রদানের আয়োজনের জন্য ডিআরইউকে অভিনন্দন জানান এবং তাদের ভবিষ্যৎ সাফল্য কামনা করেন।

বিভিন্ন বক্তার আলোচনার প্রেক্ষিতে তিনি জানান, ‘গণমাধ্যমকর্মী আইন এবং সম্প্রচার আইনের খসড়া দু’টি অনেকদিন আগে আইন মন্ত্রণালয়ে দেয়া হয়েছিল। গণমাধ্যমকর্মী আইনের খসড়াটি আইন মন্ত্রণালয় থেকে ভেটিং করে আন্ত:মন্ত্রণালয় সভার মাধ্যমে চূড়ান্ত করার পরামর্শসহ আমাদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

তিনি বলেন,‘আমরা কাজ শুরু করেছি। গণমাধ্যমকর্মী আইন পাশ হলে প্রিন্ট, ইলেক্ট্রনিক ও অনলাইনের সকল সাংবাদিকের আইনি সুরক্ষা নিশ্চিত হবে। সম্প্রচার আইন হলে এর আওতায় সম্প্রচার কমিশনের মাধ্যমে দেশের সম্প্রচারখাত পরিচালিত হবে।’ এসময় মুজিব বর্ষেও বিভিন্ন কমিটিতে সম্পৃক্ত বহুসংখ্যক সাংবাদিককে তাদের অবদানের জন্য ধন্যবাদ জানান ড. হাছান।
মন্ত্রী অনুসন্ধানী রিপোর্টের ওপর গুরুত্ব আরোপ করে বলেন, এ ধরণের রিপোর্টের জন্য বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটকে পুরস্কারের ব্যবস্থা করতে এবং পিআইবির নিজস্ব বাজেটের মাধ্যমে আরো বেশি সংখ্যক সাংবাদিকদের প্রশিক্ষণ দিতে বলা হয়েছে।

ডিআরইউ সভাপতি রফিকুল ইসলাম আজাদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ চৌধুরী’র পরিচালনায় বিএফইউজে’র সাবেক সভাপতি মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কুদ্দুস আফ্রাদ বিশেষ অতিথি হিসেবে ও ডিআরইউ সদস্যবৃন্দ অনুষ্ঠানে যোগ দেন। তথ্যমন্ত্রীর পক্ষে বিশেষ অতিথি মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল ১৫জন সাংবাদিকের হাতে ডিআরইউ সম্মাননা তুলে দেন। দৈনিক বর্তমানের চিফ রিপোর্টার্স মোতাহার হোসেন সম্মাননাপ্রাপ্তদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন।

ডিআরইউ’র অনুষ্ঠানে বক্তব্যের পর মন্ত্রী তার সরকারি বাসভবনে উপস্থিত সাংবাদিদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, মতপ্রকাশের নামে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত কোনোভাবেই সমর্থনযোগ্য নয়। তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এসময় বলেন, ‘মতপ্রকাশের স্বাধীনতার নামে কারো ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়া কিম্বা হযরত মুহাম্মদ (সা:)কে ব্যঙ্গ করে কোনো চিত্র প্রকাশ করা কোনোভাবেই সমর্থনযোগ্য নয় ও এটি করা উচিত নয়। একইসাথে ধর্মের নামে কাউকে হত্যা করাও আমরা সমর্থন করি না, বলেন তিনি। মন্ত্রী আরো বলেন, মতপ্রকাশের স্বাধীনতা যেমন থাকতে হবে, তেমনি আমার স্বাধীনতা যেন অন্যের অনুভূতিতে আঘাত না দেয়, সেটিও লক্ষ্য রাখতে হবে।

এর আগে এদিন সকালে বঙ্গবন্ধু ও মহাত্মা গান্ধীকে নিয়ে আন্তর্জাতিক ডিজিটাল প্রদর্শনীর বিষয়ে ভারতের মহাত্মা গান্ধী ডিজিটাল জাদুঘরের কিউরেটর বিরাদ রাজারাম ইয়াজমিক এবং প্রকাশনা প্রধান তরণদ্বীপ গুন্ডির সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হন তথ্যমন্ত্রী। তথ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব জাহানারা পারভীন বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

সোনারগাঁয়ে হাজী সেলিমের দখলকৃত খাস জমি উদ্ধার

ডেস্ক রিপাের্ট : নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের মেঘনাঘাট এলাকায় হাজী সেলিমের মালিকানাধীন মদিনা গ্রুপের দখলে থাকা চার একর ৩৯ শতাংশ (১৪ বিঘা) সরকারি খাস জমি উদ্ধার করেছে উপজেলা প্রশাসন। এসময় জমিতে রাখা কয়লা, বালু, পাথরসহ টিন শেডের গোডাউন ভেঙে দখলমুক্ত করা হয়।

বৃহস্পতিবার (৫ নভেম্বর) বিকেল ৩টায় সোনারগাঁও উপজেলার চর রমজান সোনাউল্লা এলাকায় চালানো এ অভিযান করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আতিকুল ইসলাম। অভিযানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরাও উপস্থিত ছিলেন।

অভিযান শেষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আতিকুল ইসলাম জানান, ১৪ বিঘা জমিতে রাখা কয়লা, পাথর, বালুসহ যেসব অবৈধ টিন শেডের স্থাপনা ছিলো তা ভেঙে ফেলা হয়েছে। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সরকারি সাইনবোর্ড টাঙ্গিয়ে দেয়া হয়েছে। এই সরকারি সম্পতি আজ পুরোপুরি সরকারের দখলে রয়েছে। এই জমির জন্য ২০১৮ সালে বরাদ্দের জন্য আবেদন করেছিলো হাজী সেলিম, সেই আবেদন জেলা প্রশাসন গ্রহণ করেনি।

এর আগে গত রোববার বিকেলে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করে ৩ দিনের মধ্যে অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নেয়ার নির্দেশ দেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি)।- ইটিভি

মার্কিন নির্বাচন – প্রতিটি ভোট গণনার দাবিতে বিক্ষোভ, নিউইয়র্কে গ্রেফতার ৫০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রে নির্বাচন পরবর্তী বিক্ষোভ উত্তাল হয়ে উঠেছে। কয়েকটি অঙ্গরাজ্যে বিক্ষোভের ঘটনা ঘটেছে। শুধুমাত্র নিউইয়র্ক থেকে ৫০ জন বিক্ষোভকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। নিউ ইয়র্কে ‘প্রতিটি ভোট গুণতে হবে’ দাবি নিয়ে একটি নির্বাচনি শোভাযাত্রা থেকে সহিংসতা শুরু হয়।

পোর্টল্যান্ড,ওরেগনে প্রতিটি ভোট গণনার দাবিতে ট্রাম্পবিরোধী বিক্ষোভ সহিংস হয়ে উঠলে ন্যাশনাল গার্ড সক্রিয় হয়। এবিসি নিউজউ জানিয়েছে পোর্টল্যান্ড থেকে ১১জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শহরটি থেকে আতশবাজি, হাতুড়ি এবং রাইফেল জব্দ করেছে পুলিশ।

এদিকে অ্যারিজোনায় গণনা বন্ধের দাবিতে বিক্ষোভ করেছে ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থকরা। রাজ্যটির সবচেয়ে বড় কাউন্টি মেরিকোপায় ট্রাম্প সমর্থকরা বিক্ষোভ করছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ট্রাম্পের ব্যালট পুড়িয়ে দেয়ার সংবাদে তারা সেখানে জড়ো হয়।

এনবিসি জানিয়েছে, সেখানে ৩ শতাধিক ট্রাম্প সমর্থক রয়েছেন। তারা সাংবাদিক ও নির্বাচন পরিচালনা কর্মীদের বাধা দেয়ার চেষ্টা করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হতে ৫৩৮ ইলেকটোরাল কলেজ ভোটের মধ্যে ২৭০টিতে জয় দরকার। ৫০ অঙ্গরাজ্যের মধ্যে ৪৫টির ফল ঘোষণা করা হয়েছে। এতে এ পর্যন্ত বাইডেন পেয়েছেন ২৬৪ ইলেকটোরাল ভোট। আর ট্রাম্প পেয়েছেন ২১৪টি। প্রেসিডেন্ট হতে বাইডেনের দরকার ৬ ইলেকটোরাল ভোট, আর ট্রাম্পের দরকার ৫৬টি।

ইসলামী ব্যাংক ময়মনসিংহ জোনের উদ্যোগে শরী‘আহ্ পরিপালন বিষয়ক ওয়েবিনার অনুষ্ঠিত

ডেস্ক রিপাের্ট : ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের ময়মনসিংহ জোনের উদ্যোগে ‘ব্যাংকিং কার্যক্রমে শরী‘আহ্ পরিপালন’ শীর্ষক ওয়েবিনার সম্প্রতি অনুষ্ঠিত হয়। ব্যাংকের রিস্ক ম্যানেজমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব:) ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল মতিন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন ব্যাংকের অ্যাডিশনাল ম্যানেজিং ডাইরেক্টর মুহাম্মদ কায়সার আলী। ওয়েবিনারে প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য দেন ব্যাংকের শরী‘আহ্ সুপারভাইজরি কমিটির সদস্য সচিব প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আব্দুস সামাদ। আরো বক্তব্য দেন ব্যাংকের শরী‘আহ্ সুপারভাইজরি কমিটির সদস্য মোহাম্মদ হারুনার রশিদ।

ময়মনসিংহ জোনপ্রধান বসির আহাম্মদ এর সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন ব্যাংকের এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট মোঃ শামসুল হুদা। ময়মনসিংহ জোনের শাখাপ্রধান, নির্বাহী ও কর্মকর্তাগণ ওয়েবিনারে অংশগ্রহণ করেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তি – একদিনে করোনায় আরও ১৭ মৃত্যু, আক্রান্ত ১ হাজার ৮৪২ জন

নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশে করোনায় (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে আরও ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মারা গেছেন ৬ হাজার ২১ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৮৪২ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪ লাখ ১৬ হাজার ৬ জন।

বৃহস্পতিবার (৫ নভেম্বর) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এদিকে সারা বিশ্বে এখন পর্যন্ত ৪ কোটি ৮৪ লাখ ৭৪ হাজার ৩২ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন ১২ লাখ ৩১ হাজার ৫৭৩ জন। বিপরীতে সেরে উঠেছেন ৩ কোটি ৪৬ লাখ ৯৯ হাজার ৮৬৩ জন। বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৬ হাজার ২১ জনের। মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ১৬ হাজার ৬ জন।

সৌমিত্রর কন্যাকে নেটিজেনদের আক্রমণ

বিনোদন ডেস্ক : প্রখ্যাত অভিনেতা সৌমিত্র চ্যাটার্জির সংকট এখনো কাটেনি। দীর্ঘ এক মাস ধরে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন তিনি।

এ অভিনেতার চারবার ডায়ালাইসিস করানো হয়েছে, তৈরি হয়েছে কিডনি জটিলতা। এর স্থায়ী সমাধানের চেষ্টা করছেন চিকিৎসকরা। সৌমিত্রকে নিয়ে পুরো পরিবার দুশ্চিন্তায় সময় পার করছেন। কিন্তু এর মধ্যে ভুয়া খবর ও কুরুচিকর মন্তব্যের শিকার হলেন সৌমিত্রর কন্যা পৌলমী বোস। তাকে নিয়ে রীতিমতো কুৎসা রটাচ্ছেন নেটিজেনরা।

তারই কিছু স্ক্রিনশট সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন পৌলমী। ‘সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের মেয়েকে চেনেন?’ শিরোনামে একটি খবরের স্ক্রিনশট পোস্ট করেছেন পৌলমী। এই খবরের পোস্ট ঘিরে তৈরি হয়েছে প্রতিক্রিয়া। যা রীতিমতো আক্রমণাত্মক ও অপমানজক।

একজন মন্তব্যে লিখেছেন—সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় আমাদের গর্ব। কিন্তু তার মেয়ে বাবার নাম ভাঙিয়ে নাটকে চান্স পায়। আর ছেলেটা তো ড্রাগ অ্যাডিক্টেড। এখানে উত্তম কুমারের সঙ্গে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের খুব মিল। কারো ছেলেই মানুষ হয়নি। তবু গৌরব সিরিয়াল করে খুব নাম করেছে কিন্তু সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের বংশের কেউ হাল ধরার নেই।

এমন বেশকিছু স্ক্রিনশট শেয়ার করেছেন পৌলমী। ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন—এগুলো ইগনোর করা যেতেই পারে! আমি একটুও বিচলিত নই। কিন্তু ভুলভাল খবরের একটা লিমিট থাকে। বিশেষত যখন আমার বাবা ভয়ংকর লড়াই করছেন। তখন কিছু মানুষ কোনো ফ্যাক্ট না জেনে কুৎসা রটাচ্ছেন।

করোনা সংকটের কারণে দীর্ঘ দিন টলিউড ফিল্মইন্ডাস্ট্রির শুটিং বন্ধ ছিল। সতর্কতা মেনে সম্প্রতি শুটিংয়ের অনুমতি মেলে। যথাযথ সুরক্ষা মেনে শুটিংয়ে ফিরেছিলেন সৌমিত্র। নিজেকে নিয়ে তৈরি একটি তথ্যচিত্রের শুটিং করছিলেন। এর মধ্যে তিনি করোনায় আক্রান্ত হন। গত ৬ অক্টোবর এই শিল্পীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এবার ‘যমজে’ চার রূপে মোশাররফ করিম

বিনোদন ডেস্ক : সময়ের জনপ্রিয় অভিনেতা মোশাররফ করিম। ক্যারিয়ারে অসংখ্য দর্শকপ্রিয় নাটক উপহার দিয়েছেন তিনি। তার অভিনীত অন্যতম নাটক ‘যমজ’। এ সিরিজের প্রথম নাটকে দ্বৈত চরিত্রে অভিনয় করেন তিনি। এরপর জনপ্রিয়তা বিবেচনা করে নির্মিত হয়েছে ১৩টি সিক্যুয়েল।

প্রতি ঈদে এ নাটককে ঘিরে দর্শকের আলাদা আগ্রহ লক্ষ্য করা যায়। কিন্তু করোনার কারণে গত ঈদে নির্মিত হয়নি এ নাটকের কোনো সিক্যুয়েল। বিরতি ভেঙে নির্মিত হচ্ছে ‘যমজ ১৪’। এর আগের সিক্যুয়েলে তিনটি চরিত্রে দেখা গেছে মোশাররফ করিমকে। কিন্তু নতুন সিক্যুয়েলে চারটি চরিত্রে হাজির হবেন এই অভিনেতা।

‘যমজ ১৪’ রচনা করেছেন অভিনেতা-নির্মাতা কচি খন্দকার। এতে অভিনয়ও করছেন তিনি। বরাবরের মতো এবারো এটি নির্মাণ করছেন আজাদ কালাম। গত ১ নভেম্বর গাজীপুরের পুবাইলে নাটকটির দৃশ্যধারণের কাজ শুরু হয়েছে।

এরই মধ্যে শুটিংয়ে অংশ নিয়েছেন মোশাররফ করিম। এ অভিনেতা বলেন—‘যমজ’ নাটকের জন্য সব সময় আলাদা করে সময় রাখি। গল্প, চরিত্র নিয়ে আলাদা করে ভাবি। ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও গত ঈদে নাটকটি নির্মাণ সম্ভব হয়নি। এজন্য আগেই নাটকটির শুটিং করে রাখলাম।

‘যমজ-১৪’ নাটকে নতুন করে যুক্ত হয়েছেন অভিনেত্রী সারিকা। এতে তাকে জবা চরিত্রে দেখা যাবে। বরাবরের মতো এবারো বাংলাভিশনে প্রচার হবে এ নাটক।

নিজের ইউটিউব চ্যানেলে সাকিব, বিশ্বকাপের আগেই নিষিদ্ধ হতে পারতাম

স্পোর্টস ডেস্ক : জানতেন সামনে আসছে খারাপ কোন খবর। আইসিসির তদন্তকারী কর্মকর্তা আর তিনি ছাড়া জানতেন না আর কেউই। বুকের উপর অনেক বড় এক ভার বয়ে নিয়ে গত বিশ্বকাপে খেলেছিলেন সাকিব আল হাসান। অথচ সব সামলে বিশ্বকাপে ৮ ম্যাচে তৃতীয় সর্বোচ্চ ৬০৬ রান করে ফেলেন তিনি। যা ছিল তার কাছে ভীষণ কঠিন এক চ্যালেঞ্জ। এমনকি বিশ্বকাপের আগেও নিষিদ্ধ হওয়ার শঙ্কা ছিল তার।

ক্রিকেট থেকে এক বছরের নির্বাসন শেষ করে সাকিব জানালেন,ভীষণ অস্বস্তি নিয়ে বিশ্ব আসরে খেলতে গিয়েছিলেন তিনি। আইসিসির দুর্নীতি বিরোধী ইউনিটের তদন্তের জালে ২০১৮ সালের নভেম্বর থেকেই আটকা পড়েন সাকিব। জুয়াড়ির প্রস্তাব গোপন করছেন, তদন্তে বেরিয়ে আসার পর তার জেরা চলছিল লম্বা সময় ধরে। বিশ্বকাপ খেলতে গিয়েছিলেন যেকোনো সময় নিষেধাজ্ঞা আসার শঙ্কা নিয়ে। অবশ্য বিশ্বকাপ শেষের অনেকটা পরে ২০১৯ সালের ২৯ অক্টোবর আইসিসির রায়ে নিষিদ্ধ হন তিনি।

সেই খারপ সময় হয়েছে অতীত। বুধবার রাতে নিজের ইউটিউব চ্যানেলে ভক্ত ও সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সাকিব জানান কতটা অস্বস্তিতে ছিলেন গেল বিশ্বকাপে, আমার তো মনে হয় খুবই চ্যালেঞ্জিং (সব জেনে বিশ্বকাপ খেলা)। কারণ অনেক দিন থেকেই এটার তদন্ত চলছিল। নিয়মিত ওরা আমার সঙ্গে যোগাযোগ করছিল, স্বাভাবিকভাবে আমার জন্য খুব অস্বস্তিকর ছিল। এটা কখনই একজন খেলোয়াড়ের সুন্দর একটা অনুভূতি না। সেদিক থেকে অবশ্যই অনেক কঠিন সময় ছিল।
অথচ অমন কঠিন পরিস্থিতিতেও তার ব্যাটিং ও বোলিং ছিল বিস্ময়কর সাফল্যে রাঙানো। গোটা বিশ্বকাপে তারচেয়ে বেশি রান করেছেন কেবল রোহিত শর্মা ও ডেভিড ওয়ার্নার। তারা তার থেকে ম্যাচও খেলেছেন বেশি। ৮ ম্যাচে করেছেন ৫ ফিফটি আর ২ সেঞ্চুরি।

নিষেধাজ্ঞার মধ্যে পড়তে যাচ্ছেন, এটা জেনেই কি তার অমন বিস্ফোরক পারফরম্যান্স? অনেকেরই কৌতূহল ছিল তা। তবে সাকিব জানান, বিশ্বকাপের আগেও নিষিদ্ধ হতে পারতেন। বিশ্বকাপে পারফর্ম করেছেন নিজের নামের প্রতি সুবিচার করতে, ওই ঘটনা বিশ্বকাপের পারফরম্যান্সের প্রভাবক, এরকম না। তবে তদন্ত শুরু হয়েছিল নভেম্বর ডিসেম্বরের (২০১৮ সালের) দিকে। বিশ্বকাপের আগেও আমি নিষিদ্ধ হতে পারতাম। সেটা হয়নি। কিন্তু ওটা কখনই মাথায় কাজ করেনি যে ওটার (নিষেধাজ্ঞা আসছে) জন্য ভাল করতেই হবে।

বিশ্বকাপে আমার ভাল কিছু করা দরকার ছিল। কারণ এর আগে যতগুলো বিশ্বকাপ খেলেছি বলার মত কিছু করিনি। নিজের নামের পাশে যেহেতু একটা রেপুটেশন আছে। কখনই মনে হয়নি বিশ্ব পর্যায়ে সেই রেপুটেশন তুলে ধরতে পারছিলাম। বয়সটাও আমার পক্ষে ছিল। যে বয়সে মানুষ সেরা ছন্দে থাকে। – ডেইলি স্টার