মাস্ক পরা বাধ্যতামুলক করতে এবার ভ্রাম্যমাণ আদালত

নিজস্ব প্রতিবেদক : সরকার মহামারি করোনার মধ্যে ঘরের বাইরে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করলেও নানা অজুহাতে অনেক মানুষ এখনো মাস্ক ব্যবহার করছেন না। তাই ঘরের বাইরে সবার মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে মাঠ প্রশাসনকে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার নির্দেশ দিয়েছে সরকার।

সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম এই তথ্য জানান।

সরকারের পক্ষ থেকে মানুষকে সচেতন করতে আরও বেশি প্রচার চালানো হবে বলেও জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

সোমবার সকাল ৮টা পর্যন্ত দেশে করোনাভাইরাসে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে দুই লাখ ৬০ হাজার ৫০৭ জন। এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত তিন হাজার ৪৩৮ জনের মৃত্যুর তথ্য দিয়েছে সরকার।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন,‘মন্ত্রিসভায় জেনারেল আলোচনা হয়েছে যে, মানুষকে অন্তত সচেতন থাকতে হবে। এর মধ্যে দেখা গেছে যে অনেক মানুষের মধ্যে সচেতনতাটা একটু কমে গেছে, সেটা আরও বৃদ্ধি করতে হবে।’

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে সচেতন থাকার ওপর গুরুত্বারোপ করে আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, ‘এগুলো ক্যাম্পেইনে নিয়ে আসা এবং যথাসম্ভব কোনো কোনো ক্ষেত্রে যদি মোবাইল কোর্ট করা যায় এসব বিষয় নিয়ে রবিবার সচিব কমিটিতে আলাপ-আলোচনা করে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।মাঠ প্রশাসনকেও বলে দিয়েছি যে, এনফোর্সমেন্টে যেতে হবে।’

ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার পক্ষে যুক্তি দিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘একেবারে ম্যাসিভ কোনো ক্ষেত্রে মোবাইল কোর্ট করে যদি পানিশমেন্ট দেয়া হয়, এই জিনিসটা প্রচার করার জন্য যে আজকে মাস্ক না পরার জন্য বা সেইফটি মেজার্স না নেয়ার জন্য এতগুলো লোককে বাসে বা বাজারে বা লঞ্চে পানিশমেন্ট দেয়া হয়েছে, এগুলো যদি প্রচারে যায়, তাহলে মানুষও…। মাস্ক পকেটে থাকে, কিন্তু মানুষ পরে না।’

সবাই যাতে মাস্ক ব্যবহার করে সে বিষয়ে সরকারের পক্ষ থেকে আরও প্রচার চালানো হবে বলেও জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

সচিব বলন, ‘বিশেষ করে তথ্য মন্ত্রণালয়কে আরও ম্যাসিভ প্রচারের জন্য বলা হয়েছে। ফিজিক্যালি মাঠে গিয়ে মাইক দিয়ে, বিলবোর্ড দিয়ে যাতে মানুষ আরেকটু সতর্ক হয়। রেডিও, টেলিভিশন সব জায়গায়.. তথ্য মন্ত্রণালয়কে বিশেষভাবে বলা হয়েছে। সচিব কমিটির মিটিংয়ে খুব স্ট্রংলি রেকমেন্ড করেছি।’

জয় পরাজয় আরো খবর