বাবার দ্বিতীয় বিয়ে অবসাদে ফেলেছিল সুশান্তকে

বিনোদন ডেস্ক : বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত মারা গেছে দুই মাস হতে চলল। কিন্তু মৃত্যুতদন্ত এখনো শেষ হয়নি। প্রতিদিনই বেরিয়ে আসছে কোনো না কোনো নতুন তথ্য। বর্তমানে এই অভিনেতার মৃত্যুতদন্তের ভার রয়েছে সিবিআইয়ের হাতে। শুরুর দিকে যাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল, পর্যায়ক্রমে তাদের আবারও ডাকা হচ্ছে। তবে পুলিশ সবচেয়ে বেশি নজর রাখছে সুশান্তের চর্চিত প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তীর দিকে।

তারই মধ্যে শোরগোল শুরু হয়েছে শিবসেনার মুখপাত্র সঞ্জয় রাউতের মন্তব্যকে ঘিরে। তিনি দাবি করেছেন, সুশান্তের সঙ্গে তার বাবা কে কে সিংয়ের সম্পর্ক ভালো ছিল না। মায়ের মৃত্যুর পর বাবার পুনরায় বিবাহ মেনে নিতে পারেননি তিনি। যে কারণে পিতা-পুত্রের আবেগটা তাদের সম্পর্কের মধ্যে ছিল না। যার কারণে সুশান্ত তাদের পাটনার বাড়িতে খুব কম যেতেন।

এদিকে সুশান্তের মৃত্যুতদন্তের হলফনামা তৈরি করেছে মুম্বাই পুলিশ। শিগগিরই তা জমা পড়বে সুপ্রিম কোর্টে। অন্যদিকে বিহার পুলিশ তদন্তে নেমেই সিবিআই চাইছিল। এভাবে তারা মহারাষ্ট্র সরকারের তদন্তে বাধার সৃষ্টি করলো এবং একটা রাজ্যকে অপমান করল বলেও দাবি সঞ্জয় রাউতের। এছাড়া তিনি বলেন, সিবিআই যে সবসময় সত্যি কথা বলে এমনটা নয়। গত কয়েক বছরে নানা তদন্তে সিবিআইয়ের ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে।

এর আগে ছেলের মৃত্যুর একমাস পর বিহার পুলিশের কাছে সুশান্তের চর্চিত প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তী ও তার পরিবারের পাঁচ সদস্যের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেন অভিনেতার বাবা কেকে সিং। তার ছেলেকে আত্মহত্যার প্ররোচনা দিয়েছেন রিয়া এবং সেই সঙ্গে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে উধাও কয়েক কোটি টাকা- এই মর্মে অভিযোগ দায়ের করেন তিনি। তদন্তের দায়ভার পেয়েই মুম্বইয়ে যায় চার তদন্তকারীর একটি দল। সেখানে তারা সুশান্ত ঘনিষ্ঠ কিছু মানুষের সঙ্গে কথা বলেন।

কিন্তু রিয়া চক্রবর্তীর কোনও খোঁজ পাননি তারা। তদন্তে মুম্বাই পুলিশের বিরুদ্ধেও উঠেছে অসহযোগিতার অভিযোগ। যার জন্য বিহারের মুখ্যমন্ত্রী ও রাজ্যপালের অনুরোধে সুশান্তের মৃত্যু তদন্তের ভার যায় সিবিআইয়ের হাতে। এর পরই মৃত্যু ছাপিয়ে বিতর্ক শুরু মুম্বাই বনাম বিহারের। সুশান্তের ডায়েরির ছেঁড়া পাতা থেকে শুরু করে রিয়ার কল হিস্ট্রি ঘেটে এমন সব তথ্য সামনে আসছে যা দেখে হতবাক আমজনতা।

জয় পরাজয় আরো খবর