adv
১৬ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১লা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

গণঅনশন কর্মসূচিতে মির্জা ফখরুল – প্যারোল বুঝি না, খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি চায় বিএনপি

নিজস্ব প্রতিবেদক : একটি দুর্নীতি মামলায় দণ্ডিত হয়ে এক বছরেরও বেশি সময় ধরে কারাগারে বন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তির বিষয়টি নাচক করে দিয়েছে তার দল। দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জানিয়েছেন, তারা খালেদা জিয়ার কোনো প্যারোল চান না, তার নিঃশর্ত মুক্তি চান।

রােববার খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপি আয়োজিত গণঅনশন কর্মসূচিতে ফখরুল এসব কথা বলেন। রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউটে এই কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।

গত ১ এপ্রিল বিএনপি নেত্রীকে উন্নত চিকিৎসাসেবা দেয়ার জন্য পুরান ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডের কারাগার থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে আনা হয়েছে। সেখানে তার চিকিৎসা চলছে। এর মধ্যেই তাকে প্যারোলে মুক্তির প্রসঙ্গটি সামনে আসে। গতকাল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল জানান, এ ধরনের কোনো আবেদন তারা এখনো পাননি। পেলে বিবেচনা করবেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা বলেছি, খালেদা জিয়াকে নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে। তবে আমরা কোনো প্যারোলের কথা বলিনি। আর যেকোনো মূল্যে বেগম জিয়াকে মুক্তি করতে হবে। আর সেই জন্য মুক্তির আন্দোলন আমাদেরকে শুরু করতে হবে।’

ফখরুল অভিযোগ করেন, ‘খালেদা জিয়ার কোনো চিকিৎসা হচ্ছে না। এজন্য আমরা বিশেষায়িত হাসপাতালে চেয়েছি। কিন্তু সেটার সুযোগ দেওয়া হয়নি।’ তিনি বলেন, ‘পিজি হাসপাতাল সরকারি হাসপাতাল। সেখানে সরকারের নিয়ন্ত্রণ। এজন্য সেখানে দেশনেত্রীর চিকিৎসা সম্ভব নয়। এজন্য আমরা বিশেষায়িত হাসপাতালে তার চিকিৎসার দাবি করেছি।’

ফখরুল বলেন, ‘জামিন পাওয়া খালেদা জিয়ার অধিকার। কারণ তাকে মিথ্যা মামলায় সাজা দেয়া হয়েছে। তাছাড়া এই মামলায় অন্যরা সবাই জামিনে আছেন।’

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘আমাদের মূল কথাটি হচ্ছে যেকোনো মূল্যে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। এই মুক্তির আন্দোলন আমাদেরকে অবিলম্বে শুরু করতে হবে।’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘অবৈধ সরকারের কাছে মুক্তি দাবি করে লাভ নেই। কারণ গণতন্ত্রও বেগম জিয়ার মতোই সরকারের বাক্সে বন্দি। গণতন্ত্রও কারাগারে। তাই আমাদেরকে গণতন্ত্রকে মুক্ত করতে হবে। আর গণতন্ত্রকে মুক্ত করতে হলে আগে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে।’

মওদুদ আহমদ বলেন, ‘আমি আইনজীবী হিসেবে বলবো, আইনি প্রক্রিয়ায় বেগম জিয়াকে দ্রুত মুক্ত করা যাবে না। আন্দোলনের মাধ্যমেই খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে।’

মির্জা আব্বাস বলেন, ‘এই প্রক্রিয়ায় বেগম জিয়ার মুক্তি হবে না। তাহলে প্রক্রিয়াটা কী? যারা মুক্তি চান তাদেরকেই প্রক্রিয়াটা বের করতে হবে। কারণ দয়া ও মায়া দিয়ে বেগম জিয়াকে মুক্তি করা যাবে না।’

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, প্যারোলে বেগম জিয়ার মুক্তির জন্য বিএনপি আবেদন করলে সরকার ভেবে দেখবে। আমি বলবো, আপনাদের বেশি দিন নাই। আর আপনাদের প্রধানমন্ত্রী প্যারোলে মুক্তি নিয়েছেন। আমাদের নেত্রী বেগম জিয়া প্যারোল চেনে না। আর কখনো নেননি। আর সময় আসবে কবরে যেতেও আপনাদেরকে প্যারোল নিতে হবে। সুতরাং গণতান্ত্রিক নেত্রীর গণতান্ত্রিকভাবে মুক্তি পাবে। আর প্যারোলে মুক্তি দিলে তাহলে আপনারা আদালতে গেয়ে কেনো বাধা দেন? আমরা কারো দয়ায় খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই না। আন্দোলনের মাধ্যমেই আমরা বেগম জিয়াকে মুক্তি করবো।’

অনশনে বিএনপি নেতা মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমান উল্লাহ আমান, আব্দুস সালাম, হাবিবুর রহমান হাবিব, আবদুল আউয়াল মিন্টু, বেগম সেলিমা রহমাস, মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ, শামসুজ্জামান দুদু, এজেডএম জাহিদ হোসেন, আহমদ আযম খান, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, মুজিবর রহমান সারোয়ার, এমরান সালেহ প্রিন্স, বিলকিস জাহান শিরিন, আব্দুস সালাম আজাদ, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, শামীমুর রহমান শামীমসহ দলটি অঙ্গ-সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

কর্মসূচিতে সংহতি প্রকাশ করে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতা ও. কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী, জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান, গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসীন মন্টু প্রমুখ বক্তব্য দেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি ড. এমাজ উদ্দিন আহমেদ সবাইকে পানি পান করিয়ে অনশন ভাঙান।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
April 2019
M T W T F S S
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
2930  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া