adv
৮ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২৩শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দেখুন এই দশ তেলুগু ছবি

বিনােদন ডেস্ক : নিশ্চয় তেলেগু সিনেমার কথা অনেক শুনেছেন। এবার আপনি দেখতেও চান। কিন্তু বুঝতে পারছেন না কোনো ছবিগুলো দেখবেন। নিচে সাম্প্রতিক নয়টি ছবির নাম দেওয়া হলো। সঙ্গে ছয় দশকের পুরোনো একটি ছবি। কেন? কারণটিও দেওয়া হলো।

এখানে নেই ব্লকবাস্টার ‘বাহুবলি’ বা হিট ‘অর্জুন রেডি’। তালিকার ছবিগুলোও জনপ্রিয়, আপনাকে ঋদ্ধও করবে। আর তালিকাটি হাফপোস্ট অবলম্বনে।

গুডাচারি (২০১৮): ভিন্ন ভিন্ন পরত যুক্ত চরিত্রে এ সিনেমায় দেখা যায় সবিতা ঢুলিপালাকে। ছবির নায়ক আদিভি শেষ, অভিনয়ের পাশাপাশি গল্প ও চিত্রনাট্য সামলেছেন তিনি। নানা কারণে সিনেমাটি উপভোগ্য। এর একটি হলো খুবই সতর্কভাবে সাজানো সাসপেন্স। আড়াই ঘণ্টার এই স্পাই থ্রিলার দেখা শুরু করলে চেয়ার ছেড়ে নড়া আসলেই মুশকিল।

আবে (২০১৮): একই সিনেমার মধ্যে বিষয় বৈচিত্র্যের দারুণ নজির। সমলিঙ্গের সম্পর্ক, হয়রানি, আসক্তি ও মানসিক আঘাত এর অন্তর্গত। অভিনয় করেছেন নিত্য মেনন, এশা রেবা, রেজিনা ক্যাসান্ড্রা, মুরালি শর্মা, কাজল আগারওয়াল, শ্রীনিবাস আভাসারালা, দেবাদর্শিনি ও প্রিয়দর্শী পুলিকন্ডাসহ অনেকে। মাছ ও বান সাই গাছ দিয়ে ছবিটিতে ভিন্ন ধরনের গতি আনা হয়েছে।

রাঙ্গাস্তালাম (২০১৮): ১৯৮০ এর দশকের প্রেক্ষাপটে নির্মিত এ ছবিতে গ্রাম্য নেতার চরিত্রে আছেন রাম চরণ। এই ছবির সময়কার নির্মাণ আপনাকে মুগ্ধ করবে। আর ক্লাইমেক্সে চোখে নিয়ে আসবে জল। বর্ণপ্রথা ও সহিংসতা কিছু প্রশ্নের সামনে দাঁড় করিয়ে দেয়।

ওহালো গুসাজুসালাডে (২০১৪): পর্দা বা বাস্তব- এমন কোনো প্রেমকাহিনি আছে যেখানে সমস্যা নেই? নাগা সুরিয়া ও রাশি খান্না তেমন এক সম্পর্ক নিয়ে হাজির। যখন জীবনে তৃতীয় ব্যক্তির অনুপ্রবেশ ঘটে তখন তারা পুরোনো দিন নিয়ে ভাবেন। মজার মজার সংলাপের সঙ্গে আছে দারুণ কিছু গান।

ফিদা (২০১৭): ইন্ডিয়ান আমেরিকান বরুণ তেজ আর তেলেঙ্গানার ছোট শহরের মেয়ে সাই পল্লবীর দেখা হয় এ সিনেমায়। বেড়ে ওঠার ফারাকের কারণে তাদের চাওয়া-পাওয়াও আলাদা। ছবিতে পারিবারিক বিয়ে ও প্রেম কাহিনি যুগপৎ পাওয়া যায়।

সিথামা বাকিটলো শিরিমালে চেটু (২০১৩): সাম্প্রতিক সময়ের তেলুগু ভাষায় দামি তারকা সমাহারে নির্মিত অন্যতম সিনেমা এটি। পারিবারিক এ সিনেমায় আছেন ভেঙ্কটেশ, মহেশ বাবু, অঞ্জলি ও সামান্থা রুথ প্রভু। দুই ভাইয়ের মাঝে জীবনের সমীকরণ ভিন্ন হলেও কিন্তু পরস্পরের জন্য দাঁড়াতে কোনো কার্পণ্য নেই।

মহন্তী (২০১৮): কার্থি ‍সুরেশ তামিল, তেলুগু ও মালায়ালাম ভাষায় ডজনখানেক সিনেমায় অভিনয় করেছেন। কিন্তু বলা হয় ‘মহন্তী’ তাকে সুপারস্টার বানিয়েছে। এখানে তার চরিত্রের নাম সাবিত্রী। জনপ্রিয় নায়িকা কোমা থেকে জেগে উঠে দেখেন কয়েক বছর কেটে গেছে। এ ছাড়া পেশাগত উত্থান-পতনের গল্পও এটি।

মায়াবাজার (১৯৫৭): তেলুগুতে নির্মিত অন্যতম সিনেমা এটি। এ সিনেমার বিয়ের গান ‘বিবাহ ভোজানাম্বু’ আজও শোনা যায়। তবে মনে রাখতে হবে তখনকার দিনে আজকের মতো কম্পিউটারের ডিজাইন করা ভিজ্যুয়াল ইফেক্টস ছিল না।

যদি সত্যিকারে সিনেমাটিক অভিজ্ঞতা নিতে চান- ‍দেখুন ‘মায়াবাজার’ ও ‘মহন্তী’। কারণ ছবি দুটি আপনাকে তেলুগু সিনেমার একটি অধ্যায় সম্পর্কে অবগত করবে।

ভালে ভালে মাগাদিভয় (২০১৫): নানি একই সময়ে দুটো বিষয় মনে করতে পারে না। আপনি যদি তাকে চিপস ও দুধ নিতে বলেন, সে সেখান থেকে একটি নেবে। এই সমস্যাকে কমেডির মাধ্যমে তুলে ধরা হয়েছে সিনেমায়।

সুরিয়া ভার্সেস সুরিয়া (২০১৫): ত্বকের রোগের কারণে সূর্যের আলোয় বেরোতে পারে না নিখিল সিদ্ধার্থ। এই কারণে তার কোনো বন্ধু নেই। ইভিনিং কলেজে ভর্তি হলে তার বন্ধু হন এক মধ্যবয়সী পুরুষ ও এক অটো চালক। এর মধ্যে একটি প্রেমের গল্পও আছে, যা একই সঙ্গে সুরিয়ার আত্মবিশ্বাসের পরীক্ষা। এই ছবির আপনাকে হাসাবে, সতেজ করবে।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
April 2019
M T W T F S S
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
2930  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া