adv
৪ঠা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৯শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে জিতলে ছয়ে বাংলাদেশ

BDক্রীড়া প্রতিবেদক : নিউজিল্যান্ড সিরিজ জিতে গেছে। বাংলাদেশের সিরিজ জেতার সম্ভাবনা নেই। ডাবলিনের ক্লনটার্ফ ক্রিকেট গ্রাউন্ডে আজকের বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড ম্যাচটা তাই ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রেক্ষাপটে মূল্যহীন। কিন্তু বাংলাদেশ আর নিউজিল্যান্ডের জন্য তা নয়।

চ্যাম্পিয়নস ট্রফির আগে বাংলাদেশ দল দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে পাকিস্তান ও ভারতের বিপক্ষে। আর অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের সঙ্গে নিউজিল্যান্ড দল তো প্রতিপক্ষ হবে আসল টুর্নামেন্টেই। আজকের ম্যাচ তাই আক্ষরিক অর্থেই প্রস্তুতি ম্যাচ হয়ে দাঁড়িয়েছে দুই দলের জন্য। বাংলাদেশের জন্য এ ম্যাচের গুরুত্ব বাড়ছে আরও একটি কারণে। নিউজিল্যান্ডকে হারাতে পারলে শ্রীলঙ্কাকে টপকে ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ের ৬ নম্বরে উঠে যাবে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল। ২০১৯ বিশ্বকাপে সরাসরি খেলা নিয়ে অকারণ জুজুটাও আর থাকবে না।

এত হিসাব মাথায় না আনলেও মাশরাফি চোখ রাখছেন জয়ে। চ্যাম্পিয়নস ট্রফির আত্মবিশ্বাসে রসদ জোগাতেই বিকল্প ভাবনা মাথায় ঢুকতে দিচ্ছেন না বাংলাদেশ অধিনায়ক, ‘প্রতিটি ম্যাচই গুরুত্বপূর্ণ। তবে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির আগে একটা ম্যাচ জিততে পারলে অবশ্যই ভালো লাগবে। সবার আত্মবিশ্বাস ভালো থাকবে। চ্যাম্পিয়নস ট্রফির আগে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ আছে। তবু এই ম্যাচটা ভালোভাবে শেষ করতে পারলে, জিতে যেতে পারলে মানসিকভাবে সবাই আরও এগিয়ে থাকবে।’

জয় পেতে একটা কাজই করার দেখেন বাংলাদেশ অধিনায়ক—পরিকল্পনা অনুযায়ী খেলা। আইপিএল-ফেরত খেলোয়াড়েরা যোগ দেওয়ায় এই ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের শক্তি বাড়ছে। তবে নিজেদের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে পারলে জয় আসবে বলেই মনে করেন মাশরাফি।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে আগের ম্যাচের ব্যাটিং-বোলিং নিয়ে হতাশা আছে মাশরাফির, ‘প্রথম ম্যাচে খুব কাছাকাছি গিয়েছিলাম। কিছু কিছু জায়গায় যদি আরও ভালো হতো, যেমন ব্যাটিংয়ের কিছু জায়গায়, আমার বোলিং…। সবাই মিলে আরেকটু ভালো করতে পারলে হয়তো ম্যাচটা জিততে পারতাম।’ পরের ম্যাচে স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে জয় সে হতাশা আবার কিছু কমাচ্ছেও। বাড়াচ্ছে আত্মবিশ্বাসও, ‘শ্রীলঙ্কা থেকেই বোলিংয়ে উত্থান-পতন হচ্ছে। এটা থাকবেই। উইকেটের ওপর অনেক কিছু নির্ভর করে। তারপরও বেশির ভাগ ম্যাচে আমরা ভালো বোলিং করেছি। আগের ম্যাচে যে রকম বোলিং করেছি, সে রকম করলে আমাদের ব্যাটসম্যানদের কাজটা অনেক সহজ হয়ে যাবে।’

আয়ারল্যান্ড থেকে শেষ ম্যাচে জয় নিয়ে ইংল্যান্ড যেতে পারলে তো খুবই ভালো। চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচে একটু হলেও মনস্তাত্ত্বিক সুবিধা পাবে বাংলাদেশ দল। আর র‌্যাঙ্কিংয়ে উন্নতিটা তো নগদ লাভ। তবে জয় না পেলেও এই সিরিজে খেলার আসল উদ্দেশ্য পূরণ হয়েছে বলে মনে করেন মাশরাফি, ‘সীমিত সুযোগ-সুবিধার মধ্যেও এখানে আমরা সর্বোচ্চ প্রস্তুতিই নিয়েছি।’

তবে সংবাদ সম্মেলনে মাশরাফি শেষ যে কথাটা বললেন, সেটি আবার বলছে অন্য কথা, ‘আমার কাছে মনে হচ্ছে, আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে ইংল্যান্ডের কন্ডিশনের কোনো মিল থাকবে না। সেটা হলে হয়তো-বা সেখানে গিয়ে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচকে ভালোভাবে কাজে লাগাতে হবে।’

আয়ারল্যান্ডে এই ত্রিদেশীয় সিরিজের পরও তাহলে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির জন্য পুরো প্রস্তুত নয় বাংলাদেশ! ইংল্যান্ডে গিয়ে নতুন করে শুরু করতে হবে সবকিছু!

 

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া