adv
২৩শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইসলামী ব্যাংকের গ্রাহকদের আস্থা ধরে রাখার তাগিদ

I Bডেস্ক রিপাের্ট : ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের চট্টগ্রাম উত্তর ও দক্ষিণ জোন এবং আগ্রাবাদ ও খাতুনগঞ্জ করপোরেট শাখার ব্যবসায় উন্নয়ন সম্মেলন ২৬ এপ্রিল ২০১৭, বুধবার চট্টগ্রামের একটি হোটেলে অনুষ্ঠিত হয়।

ব্যাংকের চেয়ারম্যান আরাস্তু খান প্রধান অতিথি হিসেবে সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।

ভাইস-চেয়ারম্যান প্রফেসর সৈয়দ আহসানুল আলম, এক্সিকিউটিভ কমিটির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব:) ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল মতিন ও পরিচালক প্রফেসর ড. মো. সিরাজুল করিম বিশেষ অতিথি হিসেবে এতে বক্তব্য দেন।

ম্যানেজিং ডাইরেক্টর ও প্রধান নির্বাহী মো. আব্দুল হামিদ মিঞার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ডেপুটি ম্যানেজিং ডাইরেক্টর মো. মাহবুব-উল-আলম ও মোহাম্মদ মনিরুল মওলা এবং এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট ও করপোরেট ইনভেস্টমেন্ট ডিভিশন-১ প্রধান মুহাম্মদ কায়সার আলী, এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট ও চট্টগ্রাম উত্তর জোনপ্রধান মো.    মোস্তাফিজুর রহমান সিদ্দিকী, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জোনপ্রধান মো. নিজামুল হক ও আগ্রাবাদ কর্পোরেট শাখা প্রধান মোহাম্মদ শহীদ উল্লাহ উপস্থিত ছিলেন।

ব্যাংকের নির্বাহীবৃন্দ, চট্টগ্রাম অঞ্চলের ৪৪টি শাখার ব্যবস্থাপক, ইনভেস্টমেন্ট ইনচার্জ ও নির্বাচিত কর্মকর্তারা সম্মেলনে অংশগ্রহণ করেন। সম্মেলনে জোন ও শাখাসমূহের পারফর্ম্যান্সে সন্তোষ প্রকাশ করে আমানত সংগ্রহ, বিনিয়োগ সম্প্রসারণ ও রেমিট্যান্স সেবা বৃদ্ধিসহ সামগ্রিক ব্যবসায়িক লক্ষ্য অর্জনে শাখাসমূহকে আরও তৎপর হওয়ার তাগিদ দেয়া হয়।

আরাস্তু খান প্রধান অতিথির ভাষণে বলেন, ইসলামী ব্যাংকের শক্তিশালী শরিয়াহ্ সুপারভাইজরি কমিটি ও ক্যাপিটাল বেইজ রয়েছে। শরিয়াহ পরিপালন, মানসম্মত সেবা এবং সততার নীতি অনুসরণের কারণে গ্রাহকরা ইসলামী ব্যাংককে বিশ্বাস করে। গ্রাহকদের এ আস্থা ধরে রাখতে তিনি ব্যাংকারদের আরও বেশি যত্নবান হওয়ার পরামর্শ দেন। ব্যাংকের আমানত বৃদ্ধি, বিনিয়োগ সম্প্রসারণ, রেমিট্যান্স ও পল্লী উন্নয়ন প্রকল্প সেবা আরও গতিশীল করতে তিনি ম্যানেজারদের দিকনির্দেশনা দেন।

প্রফেসর সৈয়দ আহসানুল আলম বলেন, সম্পদ বিতরণে বন্টনমূলক সুবিচারনীতি বাস্তবায়ন কেবল ইসলামী অর্থনীতির বিকাশেই সম্ভব। ইসলামী ব্যাংক এ লক্ষ্যেই কাজ করছে। ইসলামী ব্যাংককে দেশের উন্নয়ন ইঞ্জিন উল্লেখ করে তিনি এসএমই ও পল্লী বিনিয়োগ বৃদ্ধির উপর গুরুত্বারোপ করেন। দেশের গণমানুষের উন্নয়ন ও গরিবি হঠানোর জন্য পল্লী উন্নয়ন প্রকল্পের প্রসারে নির্দেশনা দেন তিনি। ইসলামী অর্থনীতির উন্নয়নে ব্যাংকের ডিপোজিট বৃদ্ধি করতে সংশিষ্ট সবাইকে নির্দেশ দেন তিনি।

মেজর জেনারেল (অব.) ইঞ্জিনিয়ার আবদুল মতিন বলেন, ইসলামী ব্যাংক বিশ্বের শীর্ষ ১০০০ ব্যাংকের অন্যতম। সব মানুষের ব্যাংক হিসেবে এ ব্যাংক দেশের সামগ্রিক কল্যাণ ও উন্নয়নে কাজ করছে।  

মো. আব্দুল হামিদ মিঞা সভাপতির ভাষণে বলেন, ব্যাংকের সব কার্যক্রমে শতভাগ শরিয়াহ নীতি ও  ব্যাংকিং নীতিমালা পরিপালন করতে হবে। এ ব্যাংকের সেবা পৌঁছে দিতে তিনি শাখা ব্যবস্থাপকদের প্রতি জোর আহ্বান জানান।  

জয় পরাজয় আরো খবর

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া