adv
৮ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৫শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সু চির নোবেল ফেরত নেয়ার দাবি ইন্দোনেশিয়ার

SUCHIঅান্তর্জাতিক ডেস্ক : মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চির নোবেল পুরস্কার ফেরত নেয়ার দাবি জানিয়েছে ইন্দোনেশিয়া। দেশটির দেড় শতাধিক দুর্নীতি বিরোধী কর্মী এ সংক্রান্ত একটি পিটিশন দাখিল করেছে। বিবিসি টুডের মুসলিম উপস্থাপক সাংবাদিক মিশাল হুসেনকে দেয়া ২০১৩ সালের একটি সাক্ষাতকারে রোহিঙ্গা ইস্যুতে নীরব থাকা নিয়ে প্রশ্নের জবাবে সু চি ইসলাম বিরোধী মন্তব্য করায় এ দাবি তোলেন তারা। খবর জাকার্তা গ্লোবস ও গ্লোবাল ইন্দোনেশিয়ান ভয়েসের।
সম্প্রতি ইন্ডেপেডেন্টর সাংবাদিক পিটার পপহ্যাম এক সাক্ষাতকারে রোহিঙ্গা প্রসঙ্গে মিশাল হুসেনের জোরালো প্রশ্নে সু চি মেজাজ হারান ও তাকে বিড়বিড় করে ক্রোধের সঙ্গে বলতে শোনা যায়, ‘একজন মুসলিম যে আমার সাক্ষাতকার নেবে এটা আমাকে কেউ বলেনি।’ ‘দ্য লেডি অ্যান্ড দা জেনারেলস : অং সান সু চি অ্যান্ড বার্মার স্ট্রাগল ফর ডেমোক্রেসি’ বইতে এ তথ্য ফাঁস করেন। গত শুক্রবার ব্রিটিশ সংবাদপত্র গার্ডিয়ানে খবরটি প্রকাশের পর তা নিয়ে বিশ্বময় তোলপাড় চলছে।
সু চি শান্তির নামে অশান্তি ছড়াচ্ছেন বলেও দাবি করা হয়। মিয়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলিমদের নিয়ে বহুদিন নীরব ছিলেন সু চি। তবে সাংবাদিক মিশালের করা প্রশ্নে চটে উঠলেন কেন? আবার কেনই বা মুসলিম সাংবাদিককে সাক্ষাতকার দেয়ায় বিব্রত হলেন তিনি?
নরওয়ের নোবেল কমিটির কাছে এ পিটিশন হস্তান্তরের আগে জনমত গঠন করতে ই-পিটিশন তৈরি করেন দেশটির কর্মীরা। ইতিমধ্যে ওই পিটিশনের সমর্থনে বিশ্বব্যাপী প্রায় ২৬ হাজার কর্মী স্বাক্ষর করেছেন। প্রাথমিকভাবে বিশ্বের বৃহত্তম পিটিশন প্লাটফর্ম ‘চেঞ্জ ডট কমে’ এ আরজি করা হয়েছে। পিটিশানটি ২০১৬ সালের নরওয়ে নোবেল কমিটির চেয়ারম্যান কাচি কুলমান ফাইভ ও ডেপুটি চেয়ারম্যান বেরিট রেইস এন্ডারসিনের কাছে পেশ করা হবে।
সু চির নোবেল ছিনিয়ে নেয়ার এ আবেদনটির প্রধান সমন্বয়ক করা হয়েছে ইন্দোনেশিয়ান করাপশান ওয়াচের (আইসিডব্লিউ) কর্মী ইমরসন উনথোকে। উনথোর সঙ্গে ইন্দোনেশিয়ার প্রখ্যাত লেখক গোয়েনাওয়ান মোহাম্মদ ও  অর্থনীতিবিদ দিদিক জে রাচবিনি। পিটিশন পেপারে দাবি করা হয়েছে, শান্তির প্রতীক হিসেবে দেয়া সু চির নোবেল ছিনিয়ে নেয়া হোক।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া