adv
২৯শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৪ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

আজ বসন্ত

fal_bg_541697483ডেস্ক রিপোর্ট : ফাগুনের শুরু হতেই শুকনো পাতা ঝরল যত/ তারা আজ কেঁদে শুধায়,/ দসেই ডালে ফুল ফুটল কি গো,/ওগো কও ফুটল কত।দ -রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কবিতার এই চরণ বলে দেয় বসন্তের যাত্রা শুরুর কথা। এই কথার রেশ ধরে আমরাও বলে দিতে পারি নির্দ্বিধায় -এল বসন্তের দিন। ফুল ফুটুক আর নাই ফুটুক আজ বসন্ত। আজ পহেলা ফাল্গুন। বসন্তের প্রথম দিন।
এল বসন্ত দখিনা হাওয়ায় দোল জাগিয়ে। বসন্ত ঋতুরাজ। বসন্ত ফুল ফুটবার দিন। আজ বনে বনে ফুলে ফুলে খেলা করবে রঙিন প্রজাপতি। শীতের জীর্ণতা সরিয়ে ফুলে ফুলে সেজে উঠেছে এখন প্রকৃতি। গাছে গাছে নতুন পাতা, স্নিগ্ধ সবুজ কচি পাতা। ধীর গতিতে চলা বাতাস জানান দিচ্ছে নতুন কিছুর। আজ সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে অভিষেক ফাল্গুনের।
শীতের খোলস থেকে কৃষ্ণচূড়া, রাধাচূড়া, নাগলিঙ্গম এখন অলৌকিক স্পর্শে জেগে উঠেছে। পলাশ, শিমুলে লেগেছে আগুন রঙের খেলা। বসন্ত মানেই যৌবনের গান। প্রাণের ভেতর যে প্রাণ আছে, জীবনের ভেতরে আরেক জীবন আছে, আত্মার গহীনে যে রূপ-অরূপের আকাঙ্ক্ষা আছে, জীবন ও প্রকৃতির সমান্তরালে তাকে অনুভব ও উতসারণের নামই কি বসন্ত?
দফুল ফুটুক আর নাই ফুটুক আজ বসন্ত…। কিংবা আহা আজি এ বসন্তে কত ফুল ফোঁটে কত বাঁশি বাজে কত পাখি গায়..। কিংবা এতটুকু ছোঁয়া লাগে, এতটুকু কথা শুনি, তাই দিয়ে মনে মনে রচি মম ফাল্গুনী..। কিংবা ফুলের বনে যার পাশে যাই তারেই লাগে ভালো..। কিংবা আমাদের প্রিয় বাউল শাহ আবদুল করিমের দবসন্ত বাতাসে..সই গো বসন্ত বাতাসে, বন্ধুর বাড়ির ফুলের গন্ধ আমার বাড়ি আসে…।দ
এসব অমর পংক্তিমালা আমাদের দেহে-মনে-বোধে-মননে তরঙ্গায়িত হবে বারবার। জীবনে দোলা জাগাবে। মননে ও প্রকৃতিতে জেগে উঠবে মায়ার খেলা প্রাণের খেলা ভালবাসার খেলা। ফাল্গুনের এই ডাকে,  বসন্তের এই আবাহনে সাড়া না দিয়ে কি পারা যায়?
বড় কঠিন নগরের বাস্তবতা। বসন্তে জেগে ওঠা অপরূপ প্রকৃতি চোখে দেখার সুযোগ পায় না নগরবাসী। কোকিলের ডাক, রঙিন কৃষ্ণচূড়া আর আমের মুকুলে অবগাহণ করে বইয়ের পাতায়। তবু ফালগুনের প্রথম দিনে খুঁজে পেতে চায় বসন্তের আবহ। গায়ে হলুদ জামা আর বাসন্তী রঙের শাড়ি জড়িয়ে হাতে হাত রেখে বেরিয়ে পড়ে তারা। হায়রে বসন্ত!
রাজধানীর বিবর্ণ প্রান্তরে বিকশিত হতে চায় ফাল্গুনী তরঙ্গে। পায়ে পায়ে ছুটে আসে। মানুষের পদভারে মুখরিত হয়ে উঠে শাহবাগ চারুকলা কিংবা অন্য কোন আকর্ষণীয় প্রাঙ্গণ। উৎসবে মিলিত হয়। মিশে যায় বসন্ত শোভাযাত্রায়।
নাগরিক ব্যস্ততা এড়িয়ে একটু নিরালা মিললেই ভেসে আসে কোকিলের কুহু, মৃদুমন্দ হাওয়ায় ভেসে আসা ফুলের গন্ধ জানিয়ে দিয়ে যায় ঋতুরাজের আগমনী। বসন্ত মানে তো শুধু পলাশ আর শিমুল ফুলের রং ছড়ানোই নয়, বসন্ত তো ঝরা পাতার, ঝরা ফুলের আনন্দ-গানও। যে নিজের জীবনের পূর্ণতার সমাপ্তির পাশাপাশি গেয়ে ওঠে নতুনের আগমনের গান। দআজ কি তবে এসেছে সে নবীন বেশে।/ আজ কি তবে এত ক্ষণে জাগল বনে যে গান ছিল মনে মনে।/ সেই বারতা কানে নিয়ে/ যাই চলে এইবারের মতো।দ

এই কংক্রিটের নগর জীবনে বসন্তের দেখা না মিললেও তাকে জীবনচরণে জড়িয়ে রাখেন কিন্তু নগরবাসীই। এই ফাগুনের প্রথম দিনটি যেন বাঙালির কাছে এক উৎসবের দিন। গাছে পলাশের রং না ছড়াক মেয়েদের শাড়িতে, ছেলেদের পাঞ্জাবিতে সেই রং ঠিকই রাঙিয়ে তোলে চারপাশ। ঘরের বাইরে বেরিয়ে আসার ডাক পাঠায় গানে গানে দওরে ভাই, ফাগুন এসেছে বনে বনেদ। উৎসবের রঙে তরুণরা মাতিয়ে রাখে শাহবাগ, চারুকলা, টিএসসি কিংবা অমর একুশে গ্রন্থমেলা।
নগরজীবনের এই কোলাহলে মানুষ নিষ্প্রাণ, হিসেবী, প্রকৃতি-বিচ্ছিন্ন। ফাগুনের এইদিনে তাই সবাই যেন প্রকৃতির সান্নিধ্য পেতে চায়, মিলতে চায় প্রিয়জনের সঙ্গে। সেই মিলবার তাগিদে সারাদিন ধরে নগরীর বিভিন্নস্থানে বসন্ত উৎসবে মেতে বাঙ্গালি আমন্ত্রণ জানায় নতুন সজীব প্রাণময় প্রকৃতিকে। সবার মন গেয়ে ওঠে – দসুখে আছে যারা/ সুখে থাক তারা/ সুখের বসন্ত/ সুখে হোক সারা।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
February 2015
M T W T F S S
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
232425262728  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া