adv
৪ঠা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৯শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

পর্তুগাল ও যুক্তরাষ্ট্র নাটকীয় ম্যাচ

(পর্তুগাল ২ যুক্তরাষ্ট্র ২) স্পোর্টস ডেস্ক : শেষ মুহূর্তের গোলে বিশ্বকাপে টিকে থাকল পর্তুগাল। পুরো ম্যাচে নিষ্প্রভ থাকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর ক্রসে গোল করে দলের হার এড়ান ভারেলা। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ২-২ গোলের ড্রয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডে যাওয়ার সম্ভাবনা টিকে থাকল দুই দলেরই।
শুরুতেই গোল করে পর্তুগালকে এগিয়ে নিয়েছিলেন নানি। দ্বিতীয়ার্ধে জার্মেইন জোন্সের গোলে সমতা ফেরানো যুক্তরাষ্ট্রকে এগিয়ে নেন ক্লিন্ট ডেম্পসি। ইনজুরি সময়ে গোল করে পর্তুগালকে প্রথম পয়েন্ট এনে দেন ভারেলা।
দুই ম্যাচ শেষে চার পয়েন্ট করে নিয়ে প্রথম দুটি স্থানে আছে যুক্তরাষ্ট্র ও জার্মানি। গ্র“প পর্বের শেষ ম্যাচে মুখোমুখি হবে এই দুটি দল। একই সময়ে অন্য ম্যাচে মুখোমুখি হবে ১ পয়েন্ট নিয়ে পরের দুটি স্থানে থাকা পর্তুগাল ও ঘানা।
মানাউসের আরেনা আমাজনিয়ায় মাত্র পঞ্চম মিনিটেই এগিয়ে যায় পর্তুগাল। বিপদমুক্ত করতে গিয়ে উল্টো দলকে বিপদে ফেলেন জিওফ ক্যামেরন। ডি বক্সে তার কাছ থেকে বল পেয়ে যান নানি। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড উইঙ্গারের জোরালো শট ফেরানোর কোনো সুযোগই ছিল না টিম হাওয়ার্ডের। ১৩তম মিনিটে জোরালো শট লক্ষ্যের রাখতে পারেননি ক্লিন্ট ডেম্পসি। আর ১৮তম মিনিটে কর্নারের বিপক্ষে রক্ষা করেন বেতো।

পর্তুগালের রক্ষণভেঙে ডি বক্সে ঢুকতে না পারায় দূরপাল্লার শটে বেতোর পরীক্ষা নিচ্ছিল যুক্তরাষ্ট্র। বেশিরভাগ শট লক্ষ্যে না থাকলেও নিজেদের রক্ষণে আরো খেলোয়াড় আনতে বাধ্য হয় পর্তুগাল।
৩৬তম মিনিটে প্রথম সত্যিকারের সুযোগটি পেয়েছিলেন রোনালদো। তবে সেটি ফিফা বিশ্বসেরা ফুটবলারের ‘ট্রেডমার্ক’ প্রচেষ্টা ছিল না। রোনালদোর শট ফেরাতে কোনো সমস্যাই হয়নি হাওয়ার্ড।
প্রথমার্ধের শেষ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেই ফেলছিল পর্তুগাল। নানির জোরালো শট ঠিকভাবে ফেরাতে পারেননি হাওয়ার্ড। কিন্তু জালে না গিয়ে বারে লেগে ফিরলে হতাশায় পুড়তে হয় আগের ম্যাচে জার্মানির কাছে ৪-০ গোল বিধ্বস্ত হওয়া পর্তুগালকে।
দ্বিতীয়ার্ধের পর ৪৮তম মিনিটে ডিফেন্ডারের ভুলে সুযোগ পেলেও কাজে লাগাতে পারেননি এদার। বারের ওপর দিয়ে মারেন মাত্র ১৬তম মিনিটে হেল্দার পোস্তিগার বদলি নামা এই স্ট্রাইকার।
৫৫তম মিনিটে পর্তুগালকে রক্ষা করেন রিকার্দো কস্তা। গ্রাহাম সুসিকে ঠেকাতে এগিয়ে গিয়েছিলেন বেতো। পারেননি, সুসি খুঁজে পান মাইকেল ব্র্যাডলিকে। খোলা জালে শট নিয়েছিলেন তিনি, কিন্তু অবিশ্বাস্যভাবে লাইন থেকে বল ফিরিয়ে দেন কস্তা।
৬২তম মিনিটে আবার সুযোগ পেয়েছিলেন রোনালদো। কিন্তু এবারো লক্ষ্যে রাখতে পারেননি পর্তুগালের সবচেয়ে বড় তারকা। ডি বক্স থেকেও অনেক বাইরে মেরে সুযোগ নষ্ট করেন তিনি।
দুই মিনিট পর সমতা ফেরান জোন্স। ডি বক্সের ঠিক বাইরে থেকে জোরালো বাঁকানো শটে পর্তুগালের জাল খুঁজে নেন বেসিকতাসের এই মিডিফিল্ডার। বল ফেরানোর কোনো সুযোগই ছিল না বেতোর।
৮১তম মিনিটে তম মিনিটে এগিয়ে যায় যুক্তরাষ্ট্র। সুসির শট থেকে নিচু হয়ে বুক দিয়ে জালে জড়ান ডেম্পসি। দেশের প্রথম ফুটবলার হিসেবে বিশ্বকাপের তিনটি ভিন্ন আসরে গোল পেলেন তিনি।
ইনজুরি সময়ের পঞ্চম মিনিটের খেলা চলছিল। ত্রিশ সেকেন্ডেরও কম সময় বাকি। ২-১-এ পিছিয়ে থাকা পর্তুগালের শেষ চেষ্টা। ডানদিক থেকে রোনালদোর নিঁখুত ক্রসে ভারেলার হেড, যুক্তরাষ্ট্রের জালে জড়ালে বিশ্বকাপে টিকে থাকে পর্তুগাল।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া