adv
২০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইরাকে শ্রমিক পাঠানো বন্ধ রাখছে বাংলাদেশ

ডেস্ক রিপোর্ট : প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী খন্দকার মোশারফ হোসেন জানিয়েছেন, তারা ইরাকে জনশক্তি প্রেরণ বন্ধ রাখছেন এবং পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছেন।
তবে বেসরকারি জনশক্তি রপ্তানিকারকরা বলছেন ইরাকের যেখানে সমস্যা হচ্ছে তা বাগদাদ থেকে অনেক দূরে এবং সেখানে বাংলাদেশি খুব কমই থাকেন। সুতরাং রপ্তানি পুরো বন্ধ করার প্রয়োজন ছিল না।
ইরাকে একসময় প্রচুর বাংলাদেশি কাজ করলেও যুদ্ধের প্রেক্ষাপটে প্রায় সবাই দেশে ফেরত এসেছিলেন। পরবর্তীতে যুদ্ধ শেষ হলে ২০০৯ সাল থেকে আবারো বাংলাদেশি জনশক্তি সেখানে যাওয়া শুরু করে এবং সরকারি হিসেবে সেই সংখ্যা বলা হচ্ছে ১৫ থেকে বিশ হাজারের মতো। তবে সম্প্রতি ইরাকের পূর্বাঞ্চলীয় দিয়ালায় নিজেদের অবস্থান আরো জোরদার করছে ইসলামি জঙ্গিগোষ্ঠী আইসিস।
মসুল এবং সাদ্দাম হোসেনের জন্মস্থান তিকরিতে তাদের অবস্থান সংহত করার পর, আইসিস এখন রাজধানী বাগদাদের দিকে অগ্রসর হওয়ার হুমকি দিয়েছে। এমন প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশি শ্রমিকদের নিরাপত্তার কথা ভেবে জনশক্তি রপ্তানি আপাতত বন্ধ রাখার কথা বিবিসিকে জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী খন্দকার মোশারফ হোসেন।
গত কয়েক বছরে ইরাকে কাজ করার সুযোগ সৃষ্টি হবার পর থেকে বেশ কিছু বেসরকারি প্রতিষ্ঠানও সেখানে নিয়মিত শ্রমিক পাঠিয়েছে এবং অনেকে বাংলাদেশী শ্রমিক সেখানে যাওয়ার অপেক্ষায় ছিলেন।
কিন্তু প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী মি. হোসেন বলছেন এতে করে খুব একটা অনিশ্চয়তা যে সৃষ্টি হবে তা তিনি মনে করেন না।
অবশ্য জনশক্তি রপ্তানিকারকদের সংগঠন বায়রার মহাসচিব মনসুর আহমেদ কালাম বিবিসিকে বলছিলেন সরকারের সিদ্ধান্ত হয়তো সঠিক কিন্তু এটাও ঠিক যে ইরাকের এই সংকট রপ্তানিকারকদের কিছু ক্ষতির মুখোমুখি করবে।
মি কালাম জানান ইরাকের সংকটের কারণে যাওয়ার অপেক্ষায় থাকা প্রায় ৮ থেকে ১০ হাজার শ্রমিক আটকে পড়বে বলে তারা অনুমান করছেন।
তবে সরাসরি ইরাকে জনশক্তি রপ্তানি করেন এমন একজন জনশক্তি রপ্তানিকারক ফেমেক্স ট্রেড এসোসিয়েটসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুর রহমান খান বলছেন ইরাকের যেখানে সমস্যা হচ্ছে তা বাগদাদ থেকে অনেক দূরে।
ফলে সব জায়গায় লোক পাঠানো বন্ধের সিদ্ধান্ত না নিলেও হতো। অবশ্য প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী মি হোসেন জানিয়েছেন পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়া পর্যন্ত তারা সতর্ক দৃষ্টি রাখবেন এবং নিরাপদ পরিবেশ সৃষ্টি হলেই কেবল আবারো লোক পাঠানোর বিষয়টি ভাববেন তারা। – বিবিসি।

জয় পরাজয় আরো খবর

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া