adv
২২শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৭ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আলপনার বুকে চলে গাড়ি

নিজস্ব প্রতিবেদক : সন্ধ্যা থেকে রাতভর মানিক মিয়া অ্যাভিনিউতে  হাজার হাজার নগরবাসীর সমবেত আলপনা আঁকা হলেও সোমবার দুপুরে আর দর্শনার্থীরা আলপনার দেখা পাচ্ছে না। রাতের আলপনা দিনের বেলায় এখন গাড়ির যন্ত্রণায় পরিণত হয়েছে।
প্রখর রোদে সংসদ ভবনের সামনে ছেলে-মেয়েরা যুগলবদ্ধ হয়ে বসে আছে। আবার কেউ রাতে আঁকা আলপনায় দাঁড়িয়ে ছবি তুলছেন। লালপাড়ে সাদা শাড়ি ও অ্যাশ রঙের পাঞ্জাবিতে সহস্র নারী-পুরুষ শিল্পীকে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে গান গাওয়ার দৃশ্য দেখলে যে কারোই চোখ জুড়িয়ে যাবে।
গাজীপুর থেকে ঢাকায় সংসদের সামনে ঘুরতে আসা দশনার্থী কামাল ও জেমি  বলেন, রাতে আলপনা দেখতে না পারলেও দিনের বেলায় আলপনা দেখতে এসেছি। তাও দেখতে পারছি না। আলপনা উপর দিয়ে এখন গাড়ি চলছে, এ কারণ দেখে মজা পাচ্ছি না। তারা দাবি করেন, আলপনাটি সারাদিন দশনার্থীদের জন্য দেখার পরিবেশ করা উচিত। প্রয়োজনে যানবাহন চলাচল বন্ধ করতে হবে।
জাতীয় সংসদ ভবনের সামনের রাজপথে প্রথম আলো-এয়ারটেলের বাংলা নববর্ষ বরণের আলপনা। রাত জেগে আলপনা আঁকতে মানিক মিয়া অ্যাভিনিউতে সমবেত হাজার হাজার উৎসাহী নগরবাসীর সামনে জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী কালো পিচঢালা পথের বুক রাঙিয়ে তুলতে রংতুলির টানে আলপনা আঁকার এই বিপুল কর্মযজ্ঞের উদ্বোধন করেন। স্পিকার কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘রাঙিয়ে দিয়ে যাও, যাও যাও গো এবার যাবার আগে’গানটি উদ্ধৃত করে ১৪২০ বঙ্গাব্দকে বিদায় জানান।
প্রথম আলো ও এয়ারটেলের যৌথ আয়োজনে এবং বার্জার পেইন্টস, এশিয়াটিক ৩৬০ মার্কেটিং কমিউনিকেশন ও প্রথম আলো বন্ধুসভার বন্ধুদের সহযোগিতায় রাতভর তৃতীয়বারের মতো মানিক মিয়া অ্যাভিনিউতে আলপনা আঁকা হয়।
আলপনা আঁকার এই উদ্যোগ শুরু হয়েছিল ১৪১৮ বঙ্গাব্দের ৩০ চৈত্র রাতে। সেবার ১৪১৯-কে স্বাগত জানিয়ে ‘আঁকব আমরা, দেখবে বিশ্ব’শীর্ষক আলপনা আঁকা হয়েছিল দুই লাখ ৬০ হাজার বর্গফুটজুড়ে। গত বছর ‘আলপনায় বৈশাখ’ শীর্ষক আলপনা আঁকা হয়েছিল তিন লাখ বর্গফুটজুড়ে। নগরবাসী বিপুল সাড়া দিয়েছিলেন গত দুই বছর। এবার ‘আলপনায় বৈশাখ-১৪২১’নামের এই অঙ্কনকর্মে আগের চেয়েও বেশি সাড়া মিলেছে। সন্ধ্যার পর থেকেই উৎসাহী আঁকিয়েরা জাতীয় সংসদের দক্ষিণ পাশে সমবেত হতে থাকেন। এবার আঁকা হয় তিন লাখ ২৬ হাজার বর্গফুটে।
আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের আগে মঞ্চের লাল কার্পেটে এসে আলপনা নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানান শিল্পী ও উদ্যোক্তারা। বরেণ্য শিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী, সমরজিৎ রায়চৌধুরী, মনিরুজ্জামান ও অশোক কর্মকারের নেতৃত্বে তিন শতাধিক নবীন শিল্পী অংশ নেন আলপনা আঁকায়।
শিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী, সমরজিৎ রায়চৌধুরী, বার্জার পেইন্টস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রূপালী চৌধুরী, এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেডের চিফ মার্কেটিং অফিসার রাজনিশ কওল, হেড অব মার্কেটিং মীর নওবত আলী, এশিয়াটিক ৩৬০ মার্কেটিং কমিউনিকেশনের চেয়ারম্যান আলী যাকের ও প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমান সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেন।

 

জয় পরাজয় আরো খবর

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া