adv
৯ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৪শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

মুশফিকদের লক্ষ্য জয়

নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রস্তুতি ম্যাচ হলেও সংযুক্ত আরব আমিরাত ও আয়ারল্যান্ডকে হারিয়ে মানসিকভাবে বেশ এগিয়ে গেছে বাংলাদেশ। আফগানিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচের আগে এমন জয় প্রয়োজন ছিল মনে করেন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম।শনিবার অনুশীলন শেষে এই ম্যাচ নিয়ে আশাবাদ প্রত্যাশা জানালেন মুশফিক, শেষ কয়েকটি ম্যাচ আমরা ভালো খেলেও সফল হতে পারিনি। তবে প্রস্তুতি ম্যাচে যেভাবে চেয়েছিলাম সেভাবে শুরুটা না হলেও শেষ টা ভালো হয়েছে।আমাদের ব্যাটিং, বোলিং ও ফিল্ডিং সব দিক থেকে আমরা এখন আগের চেয়ে অনেক ভালো বলব। খেলোয়াড়রা খেলার মধ্যে আছে। এই ধারবাহিকতা ধরে রাখতে চাইব আমরা। এটা টি- টোয়েন্টি ফরম্যাট। এখানে যে ভালো খেলবে সেই জিতবে। আমরা মুখিয়ে আছি। ইনশাআল্লাহ আমরা একটা ভালো সূচনা হবে।আফগানিস্তান বড় বড় দলগুলোকে ভড়কে দেওয়ার মতোই। তাই অনেকের কাছে বাংলাদেশের জন্য উদ্বোধনী  ম্যাচটিই অগ্নিপরীক্ষা। এই ম্যাচেই টুর্নামেন্টের স্বাগতিকদের চূড়ান্ত মীমাংসা হবে কি না এমন প্রশ্নে এই ব্যাটিং তারকা বলেন,না আমার কাছে ওই রকম মনে হয়না। প্রত্যকটি ম্যাচ আমরা জয়ের জন্যে খেলব। আর যেহেতু কালকের ম্যাচটি আগানিস্তানের সঙ্গে তাই চাইবো প্রথম ম্যাচটি জয় দিয়ে শুরু করতে।  নেপাল ও হংকংও প্রস্তুতি ম্যাচে ভালো খেলেছে। হংকং তো দুটি ম্যাচই জিতেছে। আমার মনে হয় তারা খুব শক্তিশালী দল। আমাদের লক্ষ্য থাকবে গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন হওয়া।এই ম্যাচ নিয়ে দলের মধ্যে খুব বেশি চাপ নেই জানালেন মুশফিক,আমার মনে হয় না খুব বেশি চাপ আছে। আন্তর্জাতিক ম্যাচ চাপতো থাকবেই। বাংলাদেশ গত দুবছর যেভাবে ক্রিকেট খেলছে আমার মনে হয় চাপটা এ কারণে আসছে। আমরা গত কয়েক ম্যাচ সেই প্রত্যাশা পূরণ করতে পারিনি। ওই প্রত্যাশা অনুযায়  যেন খেলতে পারি সেই চেষ্টা থাকবে। আর দর্শকদের সমর্থন তো থাকবেই, আশা করি ভালো শুরু হবে।আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে সাকিব আল হাসানকে নিয়ে ১১৬ রানের জুটি গড়েছিলেন মুশফিক। এমন জুটিই প্রত্যাশা করছেন মূল ম্যাচেও। টপ অর্ডারই তার বড় ভরসা।আগের সংবাদ সম্মেলনে আফগান অধিনায়ক মোহাম্মদ নবী জানিয়েছিলেন বাংলাদেশের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি পরিসংখ্যানে তারাই এগিয়ে। এটা  কোনো হুমকি কি না এমন প্রশ্নে মুশফিক বলেন,আমার মনে হয় টি- টোয়েন্টিতে প্রত্যেকটি দল সমানে সমান। দক্ষতার দিক থেকে নির্ভর করে ওই দিনে কে ভালো করছে। তার উপর নির্ভর করে কে দলকে ধরে  রেখেছে। আমার মনে হয় আমাদের চেয়ে ওরা অনেক বেশি টি-টোয়েন্টি  খেলেছে। জয়ের সংখ্যায় এগিয়ে থাকলেও ওদের চেয়ে আমাদের অভিজ্ঞতা অনেক বেশি। দক্ষতার দিক থেকেও আমরা ওদের চেয়ে অনেক এগিয়ে। আমরা আত্মবিশ্বাসী আছি ওদের চেয়ে আমরা ভালো করবো। বাকিটা আল্লাহর কাছে।ম্যাচের জন্য টিম কম্বিনেশন নিয়ে স্বাগতিক অধিনায়ক বলেন,টিম কম্ভিনেশন তো আছেই। আমাদের যথেষ্ট ব্যাটিং ও বোলিং অলরাউন্ডার আছে। সাব্বির রহমান ও মুমিনুল হক যদি থাকে তবে টপ অর্ডারে থাকবে। টি-টোয়েন্টিতে আমরা সবসময় স্বাভাবিক খেলা খেলে থাকি। আমরা চেষ্টা করব সেরা একাদশ নিয়ে দল হবে।আবারও উইকেটের পেছনে গ্লাভস হাতে দেখা যাবে মুশফিককে, কালকে আমি কিপিং করার চেষ্টা করব। আর টিমের মধ্যে সবাই ভালো আছে।

 

জয় পরাজয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া