adv
১০ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সন্ত্রাস কাকে বলে কত প্রকার দেখিয়ে দেয়া হবে

image_73172_0রংপুর: সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের জন্য বিএনপিকে দায়ী করে নবনিযুক্ত পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী, জাতীয় পার্টির (জাপা) কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য মশিউর রহমান রাঙ্গা বলেছেন, ‘গত ৫ জানুয়ারি নির্বাচনের আগে এরশাদের মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে লালমনিরহাট থেকে ফেরার পথে তার ওপর হামলা করা হয়েছিলো। এ হামলার জন্য বিএনপিকে দায়ী করে তিনি হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করে বলেন, ‘সন্ত্রাস কাকে বলে কত প্রকার তা দেখিয়ে দেয়া হবে।’

শনিবার দুপুরে রংপুর নগরীর সেন্ট্রাল রোড এলাকায় জেলা জাপা কার্যালয়ে আয়োজিত সংবর্ধণা সভায় তিনি একথা বলেন। মন্ত্রী হিসেবে শপথ নেয়ার পর এই প্রথম তাকে সংবর্ধণা দেয় জেলা জাপা।

পার্টির চেয়ারম্যানকে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত হিসেবে নিয়োগ দেয়া প্রসঙ্গে নবনিযুক্ত প্রতিমন্ত্রী বলেছেন, ‘আমরাই প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করে মন্ত্রীর মর্যাদায় এরশাদকে বিশেষ দূত হিসেব নিয়োগ করিয়েছি।’ এ যাবত যা করা হয়েছে সবই পার্টির চেয়ারম্যানের নির্দেশেই করা হয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘তার কথা ছাড়া আমরা কোনো কাজ করিনি। ভবিষ্যতেও করবো না।

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে ‘রওশন এরশাদপন্থী’ হিসেবে ব্যাপকভাবে আলোচিত জাপার এ নেতা বলেন, ‘এরশাদের সঙ্গে আগেও ছিলাম, এখনও আছি, ভবিষতেও থাকবো। তিনি বলেন, ‘চেয়ারম্যান যখনই বলবেন, তখনই পদত্যাগ করবো।’ নির্বাচনের আগের পার্টির ধোঁয়াশা পরিস্থিতি ব্যাখ্যা করেন কেন্দ্রীয় এ নেতা বলেন, ‘এরশাদের নির্দেশে নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছিলাম। তার নির্দেশেই মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের আবেদন করি। কিন্তু যেহেতু নিজে মনোনয়ন প্রত্যাহারের সময় ছিলাম না, সে কারণে আমার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের আবেদন গ্রহণ করা হয়নি।’

একইভাবে দলের চেয়ারম্যান এরশাদের মনোনয়নপত্র দাখিল ও প্রত্যাহারের আবেদন করার কথা উল্লেখ করে রাঙ্গা বলেন, ‘অবরোধের কারণে এরশাদ তার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করতে পারেননি। কিন্তু নির্বাচন কমিশনের আইন অনুাযায়ী প্রার্থী স্বয়ং উপস্থিত না হলে প্রত্যাহারের আবেদন গ্রহণ করা হয়না। সে কারণে তার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের আবেদন গ্রহণ করা হয়নি।’

প্রতিমন্ত্রী রাঙ্গা রংপুরবাসীকে সৌভাগ্যের অধিকারী হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আর বিরোধীদলের নেত্রী রওশন এরশাদ দুজনেই রংপুরের পুত্রবধূ। তাদের কাছে রংপুরের মানুষের অনেক চওয়া পাওয়া আছে।’ তিনি দুই নেত্রীর কাছে রংপুরের উন্নয়নের ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।  

মন্ত্রী বলেন, ‘এরশাদের স্লোগান হচ্ছে ৬৮ হাজার গ্রাম বাঁচলে বাংলাদেশ বাঁচবে। সেই মন্ত্রণালয় আমাকে দেয়া হয়েছে। গ্রামের মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করে যাবো।’ তিনি বলেন, ‘জাতীয় পার্টি ঐক্যমতের সরকারে যোগ দিয়েছে। এর মানে এটা নয় সরকারের সব কাজে সমর্থন দেয়া। কোনো অন্যায় দেখলে কিংবা দেশের স্বার্থ বিরোধী কোনো কর্মকাণ্ড করা হলে তার সমালোচনা করা হবে।’

বিগত চারদলীয় জোট সরকারের সমালোচনা করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি প্রধান বিরোধী দলে থাকাকালে সংসদে দেশের জনগণ ভালো কিছু দেখে নাই। শুধু গালাগালি আর কাগজ ছোড়াছুড়ি। এ রাজনীতি জাতীয় পার্টি করবে না।’ গঠনমূলক সমালোচনা করে জাতীয় পার্টি দেশের জনগণের পক্ষে সব সময় থাকবে বলে তিনি অঙ্গীকার করেন।

রংপুর জেলা জাপার সভাপতি আবুল মাসুদ চৌধুরী নান্টুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন- মহানগর জাপার সাধারণ সম্পাদক সালাহ উদ্দিন কাদেরী, জাপা নেতা সামসুল আলম প্রমুখ। এর আগে রাঙ্গা সভাস্থলে এসে পৌঁছলে তাকে বিপুল সংবর্ধণা দেয়া হয়। 

জয় পরাজয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
January 2014
M T W T F S S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া