adv
২০শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

পাকিস্তান সংসদের শোক প্রস্তাবে তীব্র নিন্দা প্রধানমন্ত্রীর

cz20131218212353ঢাকা: কাদের মোল্ল‍ার ফাঁসির প্রতিবাদে পাকিস্তানের সংসদে নেওয়া শোক প্রস্তাবের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার সন্ধ্যায় গণভবনে ১৪ দলের এক যৌথ সভার সূচনা বক্তব্যে তিনি এ নিন্দা জানান।

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার কাজ চলছে। পাকিস্তান এর বিরুদ্ধে নিন্দা প্রস্তাব করার কে? তাদের মনে রাখতে হবে বাংলাদেশ একটি স্বাধীন দেশ। এখানে তাদের কিছু দোসর থাকতে পারে, সেটা ভিন্ন কথা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন,  বিএনপি নেত্রীর মুখোশ আজ বাংলাদেশের মানুষের কাছে উন্মোচন হয়ে গেছে। এর মাধ্যমে প্রমাণ হয়েছে বিএনপি-জামায়াতের সঙ্গে পাকিস্তানের গাঁটছড়া সর্ম্পক।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়া-গোলাম আযম গং-এ যারা আছে তারাই পাকিস্তানের দোসর হিসেবে অতীতেও কাজ করেছে, এখনও কাজ করছে। বিএনপি-জামায়াতের আমল ছিল ৭১’র পাকিস্তানি পরাজিত শক্তির রাজত্ব।

পাকিস্তান যখন কাদের মোল্লার ফাঁসির বিরুদ্ধে পার্লামেন্টে শোক প্রস্তাব আনে তখনই তাদের চেহারা মানুষের কাছে পরিষ্কার হয়ে যায়।

পাকিস্তানের দালালদের ঠাঁই বাংলাদেশের মাটিতে হবে না, ঘোষণা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপিনেত্রীর মুখোশ আজ দেশের মানুষের কাছে উন্মোচিত হয়ে গেল। আমরা ক্ষমতায় এসে প্রতিটি ক্ষেত্রে উন্নয়ন করি। আর বিএনপি সব অর্জন নস্যাৎ করে দেয়। আমরা বিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়াই আর তারা এসে কমায়।

বিএনপি ক্ষমতায় এলেই লুটপাট, জঙ্গিবাদ, দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়। আমি দেশবাসীকে শান্ত থাকার অনুরোধ জানাচ্ছি। তারা যে হত্যা, তাণ্ডব চালাচ্ছে এর প্রতিরোধ আমরা করবোই।

‘জাতি আজ অভিশাপ মুক্ত হলো’- এ মন্তব্য করে হাসিনা বলেন, তাদের (জনগণকে) আর যুদ্ধাপরাধীদের নির্বাচনে ভোট দিতে হবে না। সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচনের প্রস্তুতি চলছে এবং সেই মোতাবেক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ভণ্ডুল করার জন্য দেওয়া হরতাল-অবরোধ জনগণ আর মানবে না। দেশবাসীকে এ ব্যাপারে আরও সচেতন থাকার আহ্বান জানাচ্ছি।

পাকিস্তানি দালালদের অস্তিত্ব এদেশে আর থাকবে না। অনেক ত্যাগের বিনিময়ে আমরা স্বাধীনতা অর্জন করেছি। স্বাধীনতার সুফল সবার কাছে পৌঁছে দেওয়া হবে।

চলন্ত বাসে পেট্রোলবোমা ছুড়ে মানুষকে পুড়িয়ে মারা কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আজও দিনাজপুর ৬ আসনের এমপির পেট্রোল পাম্প, ট্রাক আগুনে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। ধ্বংস করা হয়েছে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান।

শেখ হাসিনা বলেন, গণতন্ত্র, সাংবিধানিক প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকুক, আমরা সে লক্ষ্যেই কাজ করছি। আমি সমঝোতার জন্য বিরোধী দলকে আহ্বান জানিয়েছি, ফোন দিয়েছি। কিন্তু তারা নির্বাচনে আসলো না।

তিনি বলেন, হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা থাকায় জামায়াত নির্বাচনে অংশ নিতে পারবে না। জামায়াতকে ছাড়া বিএনপি নির্বাচনে আসবে না। বিএনপি নেত্রীর একমাত্র এজেন্ডা যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষা করা। যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষা করতে তারা সারাদেশে মানুষ হত্যা করছে, তাণ্ডব চালাচ্ছে।

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগ নেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী, আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত,  সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম,  আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী, মোহাম্মদ নাসিম, নূহ-উল আলম লেনিন, গওহর রিজভী,  মাহবুব-উল আলম হানিফ, আব্দুর রাজ্জাক, দীপু মনি, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুস সোবহান গোলাপ প্রমুখ।

এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন শরিক দলের- রাশেদ খান মেনন, হাসানুল হক ইনু, দীলিপ বড়ুয়া, শরীফ নুরুল আম্বিয়া, আনিসুর রহমান মল্লিক, ফজলে হোসেন বাদশা, মাঈনউদ্দিন খান বাদল, ডা. ওয়াজেদুল ইসলাম, হাজি আব্দুস সামাদ, নুরুর রহমান সেলিম প্রমুখ।

জয় পরাজয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
December 2013
M T W T F S S
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
3031  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া