২০শে আগস্ট, ২০১৯ ইং | ৫ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

adv

আদাবরে ৩ ভুয়া ডাক্তারের কারাদণ্ড

full_1094572486_1434533593নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর আদাবর থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে র‌্যাবের ভ্রাম্যমান আদালত ২ জন ভুয়া ডাক্তার ও একজন দন্ত ডাক্তারের কারাদণ্ড ও জরিমানা করেছে। 
দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- মো. শফিউল্লাহ খান, মো. তরিকুল ইলসাম ও এমএম রাশেদুজ্জামান। মঙ্গলবার রাত ১১টার সময় এ অভিযান পরিচালতি হয়। 
এ সময়ে তাদের প্রত্যেককে এক বছর কারাদণ্ড ও একলাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে ৩ মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। র‌্যাবের ভ্রাম্যমান আদালতের পরিচালনা করেন  র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আনিসুর রহমান।
র‌্যাব সূত্র জানায়, মঙ্গলবার রাত ১১টার সময় র‌্যাবের একটি ভ্রাম্যমান আদালত রাজধানীর আদাবর থানার বায়তুল আমান হাউজিং, আদাবরের ১০ নম্বর রোডের খান মেডিসিন কর্ণারে অভিযান চালায়। 
ওই ফামের্সির ডাক্তার পরিচয় দানকারী মো. শফিউল্লাহ খান ২০০৩ সাল হতে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক পরিচয় দিয়ে চিকিৎসার নামে সাধারণ মানুষকে প্রতারিত করে আসছে। শফিউল্লাহ তার ভিজিটিং কার্ডে পিইউএএসএসএম (ঢাকা), ডিপ্লোমা মেডিসিন, ঢাকা, ইএইচএম ডিগ্রি উল্লেখ করেন। 
তার ভিজেটিং কার্ডে উল্লেখিত ডিগ্রি সংক্রান্তে কাগজপত্র দেখতে চাইলে তিনি কোন কাগজপত্র দেখাতে পারেননি। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মাষ্টার্স পাশ বলে জানান। তার দোষ স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো. আনিসুর রহমান বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল অপরাধ আইন ২০১০ এর ২৮(১) ধারা মোতাবেক শফিউল্লাহকে এক বছর কারাদণ্ড ও একলাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে ৩ মাসের কারাদণ্ড দেন।
 এদিকে একই ভ্রাম্যমান আদালত রাজধানীর আদাবর থানার সুনিবিড় হাউজিংয়ের ১৬ নম্বর রোড, আদাবরে অবস্থিত জয় ফার্মেসিতে অভিযান পরিচালনা করেন। ওই ফার্মেসির ডাক্তার পরিচয় দানকারী মো. তরিকুল ইলসাম ২০০৬ সাল হতে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক পরিচয় দিয়ে এ ফার্মেসিতে চিকিৎসার নামে সাধারণ মানুষকে প্রতারিত করে আসছে। 
তরিকুল তার ভিজিটিং কার্ডে এমএসএইচ, মা ও শিশু স্বাস্থ্য ডিগ্রি উল্লেখ করেন। তার ডিগ্রি সংক্রান্তে কাগজপত্র দেখতে চাইলে তিনি কোন কাগজপত্র দেখাতে পারেননি। তবে তিনি এইচএসসি পাশ বলে জানান। 
তার দোষ স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো. আনিসুর রহমান বাংলাদেশ মেডিকেল এণ্ড ডেন্টাল কাউন্সিল অপরাধ আইন ২০১০ এর ২৮(১) ধারা মোতাবেক তরিকুলকে এক বছর কারাদণ্ড ও একলাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে ৩ মাসের কারাদণ্ড দেন। 
অপর দিকে রাজধানীর উত্তর আদাবর ২৮ নম্বর রোড, কাঁচা বাজারের সামনে নাহিদ ডেন্টাল সার্জারিতে (রিলায়েন্স ফার্মেসি-২) র‌্যাবের ভ্রম্যমান আদালত অভিযান পরিচালনা করেন। ওই ফার্মেসির এমএম রাশেদুজ্জামান নিজেকে দন্ত চিকিৎসক হিসেবে পরিচয় দিয়ে আসছেন। তিনি প্রায় ৪ বছর যাবত সাধারণ মানুষকে প্রতারিত করে আসছেন। 
এছাড়াও তিনি আগত রোগিদের তিনি ব্যবস্থা পত্র দিয়ে থাকেন। ভিজেটিং কার্ডে ডিডিটি-এস(ঢাকা), এসটিএফ, এএসপিএম(মাদ্রাজ) ডিগ্রি উল্লেখ করলেও এ ডিগ্রি সংক্রান্তে কাগজপত্র দেখতে চাইলে তিনি কোন কাগজপত্র দেখাতে পারেননি। তিনি স্বেচ্ছায় জানান তার পেশাগত কোন ডিগ্রি নেই। 
জিজ্ঞাসাবাদে আরো জানান তিনি একটি ফার্মেসিতে কাজ করতেন। পরে নিজেকে ডাক্তার পরিচয় দিয়ে এ ডেন্টাল ফার্মেসি চিকিৎসার নামে সাধারণ মানুষকে প্রতারিত করে আসছেন। তার দোষ স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আনিসুর রহমান বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল অপরাধ আইন ২০১০ এর ২৮(১) ধারা মোতাবেক রাশেদুজ্জামানকে এক বছর কারাদণ্ড ও একলাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে ৩ মাসের কারাদণ্ড দেন। 
র‌্যাবের ভ্রাম্যমান আদালতে আরো উপস্থিত ছিলেন র‌্যাব-২ এর উপ-পরিচালক ড. মো. দিদারুল আলম, স্বাস্থ্য অধিদফতরের উপ-পরিচালক ডা. স্বপন কুমার তপাদার।

 
 
 

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
আগষ্ট ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« জুলাই    
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া