১৫ই অক্টোবর, ২০১৮ ইং | ৩০শে আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

adv

‘বিদেশে ৭৮ বাংলাদেশি মৃত্যুদণ্ডের অপেক্ষায়’

খন্দকার মোশাররফ হোসেন বিদেশে ৭৮ বাংলাদেশি মৃত্যুদণ্ডের অপেক্ষায়, যাবজ্জীবন ২৭৬নিজস্ব প্রতিবেদক : বিভিন্ন অপরাধের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার দায়ে বিশ্বের ৪৭টি দেশে বসবাসরত প্রবাসীদের মধ্যে ৭৮ বাংলাদেশির মৃত্যুদণ্ড এবং ২৭৬ জনের যাবজ্জীবন সাজা হওয়ার বিষয়টি সংসদে স্বীকার করেছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন।
জাতীয় সংসদের চতুর্থ অধিবেশনে বৃহস্পতিবার স্বতন্ত্র সদস্য হাজী মো. সেলিমের এ সংক্রান্ত প্রশ্নে উত্থাপিত তথ্য স্বীকার করে এক্ষেত্রে সরকারের নেয়া উদ্যোগ ব্যাখ্যা করেন মন্ত্রী।
মন্ত্রী সংসদকে জানান, সৌদি আরবসহ বিভিন্ন দেশে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত বাঙালিদের মধ্যে ২৯ জন কর্মীর মৃত্যুদণ্ড রহিতকরণের জন্য সমঝোতা হয়েছে। ইতোমধ্যে ক্ষমাপত্র দূতাবাসগুলোতে পাঠানো হয়েছে।
এরমধ্যে দুবাইয়ে দণ্ডিত ২৩ জনের মধ্যে ১৯ জন এবং কুয়েতে দণ্ডিত ১২ জনের মধ্যে ১০ জনের জন্য ক্ষমাপত্র পাঠানো হয়েছেন। ক্ষমাপ্রাপ্তদের মধ্যে ২১ জন কর্মীর মৃত্যুদণ্ড সংশ্লিষ্ট আদালত কর্তৃক রহিত করা হয়েছে। বাকি ৮ জনের রায় অপেক্ষমাণ।
মন্ত্রী সংসদেকে আরও জানান, হত্যাজনিত অপরাধের কারণে সৌদি আরবে ১২ জন, সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে ২৩ জন, আবুধাবিতে ১ জন, কুয়েতে ১২ জন, বাহরাইনে ১ জন ও সিঙ্গাপুরে ১ জনসহ মোট ৫০ জন কর্মীকে সংশ্লিষ্ট দেশের আদলত কর্তৃক মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়। এছাড়া হত্যার অভিযোগে সৌদি আরবে ১০ জন, কুয়েতে ১ জন, দুবাইয়ে ১৫ জন, ওমানে ৩ জন, কাতারে ৩ জন, মিশরে ১ জন ও বাহারাইনে ১ জনসহ মোট ৩৫ জন বাংলাদেশির বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট দেশের আদলতে মামলা বিচারাধীন রয়েছেন। অভিযুক্ত এসব বাংলাদেশি নাগরিকদের মুক্তকরণের জন্য দূতাবাসের মাধ্যমে আইনগত সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে।
তিনি সংসদকে আরও জানান, মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে শরিয়া আইন বলবৎ থাকায় রায়ের আগে বা পরে সংশ্লিষ্ট কোর্ট ক্ষমার বিষয়ে উভয় পরিবারের মতামত গ্রহণ করে থাকে। এক্ষেত্রে দূতাবাস হতে বিষয়টি জানার পর ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের মাধ্যমে অভিযুক্ত ও নিহতের ওয়ারিশের মধ্যে সমঝোতার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়।
প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী সংসদকে জানান মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর বাইরে সিঙ্গাপুরে ১ জন কর্মীকে মৃত্যদণ্ড দেয়া হলেও পরবর্তীতে আপিল রায়ে এ দণ্ড স্থগিত করে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়।
এর আগে হাজী মো. সেলিম প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রীর কাছে জানতে চান, (ক)‘ইহা সত্য কি না যে, বিভিন্ন অপরাধে বিশ্বের ৪৭টি দেশের মধ্যে আরব আমিরাতে ১৯ জন, কাতারে ৭ জন, জর্ডানে ৫ জন, বাহরাইনে ৩জন, ওমানে ২ জন, কুয়েতে ৩ জন, মিশরে ১ জন, মালয়শিয়ায় ৬ জন এবং সিঙ্গাপুরে ২ জনসহ মোট ৭৮ জন বাংলাদেশীকে মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত করা হইবে; আমিরাতে ১০৪ জনসহ ২৭৬ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়। আমিরাতের কারাগারে এক হাজারের বেশি বাংলাদেশি বিচারের অপেক্ষায় বন্দী আছে।’ (খ)‘ উত্তর হ্যাঁ সূচক হলে, তাদের মুক্তি বা সাজা মওকুফের লক্ষ্যে বাংলাদেশ সরকার কী কী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে এবং কতটুকু সফল হয়েছে।’
জবাব দিতে গিয়ে প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী লিখিত জবাবে ‘হ্যাঁ’ উল্লেখ করে সরকারের গৃহীত কার্যক্রম ও সাফল্য ব্যাখ্যা করেন।

 

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
অক্টোবর ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« সেপ্টেম্বর    
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া