১৯শে জুন, ২০১৯ ইং | ৫ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

adv

মাশরাফির নেতৃত্বে ভিন্ন বাংলাদেশকে দেখবে বিশ্ব -বললেন অনীল কুম্বলে

স্পাের্টস ডেস্ক : শোয়েব আখতার, রশিদ লতিফ, রমিজ রাজার পর এবার অনীল কুম্বলের কন্ঠে মাশরাফি বন্দনা। ভারতের কিংবদন্তি লেগস্পিনার কুম্বলে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাকে ‘আদর্শ’ নেতার খেতাব দিয়েছেন। আর মাশরাফির নেতৃত্বে বাংলাদেশ দলটিকে যথেষ্ট শক্তিশালী মনে করছেন ভারতের সাবেক এই কোচ। তিনি বলেন, ‘মুর্তজা অনেক ভালো একজন নেতা। সে দলকে সংঘবদ্ধ করতে পারে। মাশরাফি সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে সক্ষম। তার নেতৃত্বে আপনি ভিন্ন বাংলাদেশকে দেখতে পাবেন। বাংলাদেশকে হালকাভাবে নিতে পারেন না আপনি। গত কয়েক বছর ধরে দারুণ ক্রিকেট খেলছে তারা।’

ক্যারিয়ারের চতুর্থ ওয়ানডে বিশ্বকাপ খেলতে যাচ্ছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে মাশরাফি এক প্রেরণার নাম। ডান হাঁটুতে এতগুলো অস্ত্রোপচারের পরও দেশের টানে খেলে যাচ্ছেন। ২০০৭ বিশ্বকাপে ভারতকে হারিয়ে সুপার সিক্সে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে বাংলাদেশ। ওই ম্যাচে দারুণ বোলিং করেছিলেন মাশরাফি। ঘরের মাটিতে ২০১১ বিশ্বকাপ মিস করেন চোটের কারণে। তবে ২০১৫ সালে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত আসরে মাশরাফির নেতৃত্বে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে বাংলাদেশ গড়ে ইতিহাস। তার নেতৃত্বে আন্তজার্তিক কোনো আসরে প্রথম বারের মতো শিরোপার স্বাদপায় বাংলাদেশ।

গত সপ্তাহে আয়ারল্যন্ডে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে এই শিেেরাপা জেতে টাইগাররা। এখন পর্যন্ত ২০৯ ওয়ানডেতে মাশরাফি নিয়েছেন ২৬৫ উইকেট। গত সপ্তাহে আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ জেতার পর পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার ও বর্তমান ক্রিকেট ধারাভাষ্যকার রমিজ রাজা মাশরাফির নেতৃত্ব গুণ নিয়ে মন্তব্য করেছিলেন। রজিম বলেন, ‘মাশরাফি একজন অনবদ্য অধিনায়ক। ঠাণ্ডা মেজাজে খেলা পরিচালনা করে। কঠিন পরিস্থিতিতে সঠিক সিদ্ধান্তটা নিয়ে থাকে।’ এর আগে ‘লড়াকু’ মাশরাফির প্রশংসায় পাকিস্তানের সাবেক গতিতারকা শোয়েব আখতার বলেন, ‘আমার মতে ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের সেরা অধিনায়ক মাশরাফি।’

পাকিস্তানের সাবেক উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান রশিদ লতিফও মাশরাফির ভূয়সী প্রশংসা করে করেন। তিনি বলেন, ‘পায়ে বড় ধরনের ইনজুরি থাকা সত্ত্বেও মাশরাফি দলকে ঐক্যবদ্ধভাবে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। একজন চোটাক্রান্ত ক্রিকেটারের জন্য এটা বেশ কঠিন কাজ। বাংলাদেশে তার অনেক সুনাম রয়েছে। ২০১৪, ২০১৫, ২০১৬ সালে দারুণ ক্রিকেট খেলেছে বাংলাদেশ। তারা ঘরের মাঠে ভারত, পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা এবং নিউজিল্যান্ডকে হারিয়েছে ওয়ানডেতে। ২০১৫ বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডকে বিদায় করে দিয়েছিল তারা। বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা দারুণ স্ট্রাইক রোটেট করে খেলতে পারে যেটি তাদের একটি প্লাস পয়েন্ট।’

আয়ারল্যান্ডের মাটিতে কিছুদিন আগে ত্রিদেশীয় সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ। টুর্নামেন্টের প্রতি ম্যাচেই টাইগাররা দাপুটে পারফরম্যান্স দেখায়। এরপর ভারতের সাবেক ক্রিকেটার ও বর্তমান ক্রিকেট বিশ্লেষক আকাশ চোপড়া বলেন, বিশ্বকাপে সেমিফাইনাল খেলার জোর সম্ভাবনা আছে বাংলাদেশের। এর আগে পাকিস্তানের শোয়েব আখতারও বলেন, বিশ্বকাপে তাক লাগিয়ে দিতে পারে টাইগাররা। তবে শোয়েব একটা শর্ত দিয়েছিলেন। বলেছিলেন, বড় ম্যাচের চাপ সামলাতে না পারার ব্যর্থতা কাটিয়ে উঠতে হবে বাংলাদেশকে। আর গতকাল কুম্বলে বলেন, ‘বড় ম্যাচে চাপ সামলে উঠাটা বাংলাদেশের বড় চ্যালেঞ্জ।’ ২রা জুন দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বাংলাদেশ বিশ্বকাপে তাদের প্রথম ম্যাচে খেলতে নামবে। রাউন্ড রবিন লীগ পদ্ধতিতে এবারের টুর্নামেন্টে অন্তত ৯টি ম্যাচ খেলার সুযোগ পাবেন মাশরাফি-সাকিবরা। আর পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ চারে থাকতে পারলে মিলবে সেমিফাইনালের টিকিট।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
জুন ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« মে    
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া