১১ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং | ২৭শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

adv

ঢাকা রিপাের্টার্স ইউনিটির সভাপতি ইলিয়াস, সম্পাদক কবির আহমেদ

ডেস্ক রিপাের্ট : পেশাদার সাংবাদিকদের সংগঠন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) নির্বাচনে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন এসএটিভির ইলিয়াস হোসেন এবং সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার (বাসস) কবির আহমেদ খান। ভোটগণনা শেষে শুক্রবার সন্ধ্যায় ফলাফল ঘোষণা করেন মনজুরুল আহসান বুলবুল।

প্রথা অনুযায়ী প্রতিবছরের মতো এবারও ৩০ নভেম্বর সকাল ৯টা থেকে ডিআরইউর নতুন নেতৃত্ব নির্ধারণে ভোট গ্রাহণ শুরু হয়। মাঝে জুমার নামাজের জন্য এক ঘণ্টার বিরতি দিয়ে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত সদস্যরা ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন।

১ হাজার ৪৭৮ জন বৈধ ভোটারের মধ্যে এবারের নির্বাচনে ১ হাজার ১৪৮ জন ভোট দিয়েছেন।

সভাপতি পদে এসএটিভির ইলিয়াস হোসেন ৬৪১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী একাত্তর টেলিভিশনের মনির হোসেন লিটন পেয়েছেন ৪৯৬ ভোট।

সহ-সভাপতি পদে খোন্দকার কাওছার হোসেন ৪১৬ ভোট পেয়ে জয়ী হয়ছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ওসমান গণি বাবুল পেয়েছেন ৩৩২ ভোট। এ পদে অপর প্রতিদ্বন্দ্বী আবুল বাশার নুরু পেয়েছেন ৩০৭ ভোট।

সাধারণ সম্পাদক পদে বাসসের কবির আহমেদ খান ৪৫০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী এশিয়ান মেইল ২৪.ডটকমের রিয়াজ চৌধুরী পেয়েছন ৪৪০ ভোট। এ পদের অপর প্রার্থী মানবকণ্ঠের শেখ মুহাম্মদ জামাল হোসাইন (শেখ জামাল) পেয়েছেন ২৪৫ ভোট।

অর্থ সম্পাদক পদে এবারের নির্বাচনে সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন জিয়াউল হক সবুজ। তিনি পেয়েছেন ৮০৮ ভোট। তার প্রতিদ্বন্দ্বী শ্যামল কান্তি নাগ পেয়েছেন ২৬৪ ভোট।

সাংগঠনিক সম্পাদক পদে আফজাল বারী ৭১৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা হাবীবুর রহমান পেয়েছেন ৪০১ ভোট। নারী বিষয়ক সম্পাদক পদে সাজিদা ইসলাম পারুল নির্বাচিত হয়েছেন ৬৪৪ ভোট পেয়ে এবং তার প্রতিদ্বন্দ্বী সেলিনা শিউলী পেয়েছেন ৪৬০ ভোট।

প্রশিক্ষণ ও গবেষণা সম্পাদক পদে ৫৬৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছন আবদুল হাই তুহিন। তার সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা সাখাওয়াত হোসেন পেয়েছেন ৪৭৬ ভোট।

ক্রীড়া সম্পাদক পদে শফিকুল ইসলাম শামীম ৫৬৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী মাকসুদা লিসা পেয়েছেন ৫২৬ ভোট।

সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে মো. এমদাদুল হক খান ৫৫৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী এস এম মুন্না মিয়া পেয়েছেন ৩৯৬ ভোট।

কার্যনির্বাহী সদস্য পদে সর্বোচ্চ ৭০১ ভোট পেয়েছেন মহিউদ্দিন। দ্বিতীয় স্থানে থাকা খালিদ সাইফুল্লাহ পেয়েছেন ৬৪৬ ভোট। কার্যনির্বাহী সদস্য নির্বাচিত হওয়া অপর পাঁচ প্রার্থীর মধ্যে- বিএম নূর আলম (বাদল নূর) ৫৮০ ভোট, মো. মাকসুদুল হাসান ৫৬৪ ভোট, মোহাম্মদ নঈমুদ্দীন ৫৬৪ ভোট, রাশেদুল হক ৫৩০ ভোট এবং মো. শাহাবুদ্দিন মাহতাব ৪৩২ ভোট পেয়েছেন। এ পদে পরাজিত হওয়া একমাত্র প্রার্থী খোন্দকার ফারুক আহমেদ পেয়েছেন ৪০৮ ভোট।

এবারের নির্বাচনে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন পাঁচজন। এরা হলেন –যুগ্ম সম্পাদক জামিউল আহসান সিপু, দফতার সম্পাদক জেহাদ হোসেন চৌধুরী, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শেখ মাহমুদ এ রিয়াত, কল্যাণ সম্পাদক কাওসার আজম এবং আপ্যায়ন সম্পাদক এইচ এম আকতার।

নিউজ টুডের সাবেক সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন আহমেদক চেয়ারম্যান নির্ধারণ করে নির্বাচন পরিচালনার জন্য গঠিত পাঁচসদস্যের নির্বাচন কমিশনে ছিলেন- বিএফইউজের সাবেক সভাপতি এম শাজাহান মিয়া, একুশে টেলিভিশনের প্রধাননির্বাহী কর্মকর্তা মনজুরুল আহসান বুলবুল, বাংলাদেশ প্রতিদিনের যুগ্ম সম্পাদক আবু তাহের এবং সাংবাদিক নেতা এম এআজিজ।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
আর্কাইভ
ডিসেম্বর ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« নভেম্বর    
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া