১৭ই আগস্ট, ২০১৯ ইং | ২রা ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

adv

বিএনপির সংশোধিত গঠনতন্ত্র না নিতে ইসিকে উচ্চ আদালতের নির্দেশ

ডেস্ক রিপোর্ট : বিএনপির গঠনতন্ত্রের সাত নম্বর ধারা বাদ দিয়ে নির্বাচন কমিশনে জমা দেয়া সংশোধিত গঠনতন্ত্র গ্রহণ না করতে ইসিকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

একই সঙ্গে মোজাম্মেল হোসেন নামের এক ব্যক্তির আবেদন ৩০ দিনের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে বলেছেন আদালত।

এ আবেদন নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত ইসিতে জমা দেয়া বিএনপির সংশোধিত গঠনতন্ত্র গ্রহণ না করতে নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে বিচারপতি মো.আশফাকুল ইসলাম ও বিচারপতি মোহাম্মদ আলীর হাইকোর্ট বেঞ্চ বুধবার এ আদেশ দেন।

আদালতে রিট আবেদনটি দায়ের করেন ঢাকার মিরপুর-১৩ এর কাফরুলের বাসিন্দা ও বিএনপি সমর্থক বলে পরিচয় দেয়া মোজাম্মেল হোসেন।

আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মমতাজ উদ্দিন আহমদ মেহেদী।

রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আল আমিন সরকার ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল কে এম মাসুদ রুমি।

চলতি বছরের শুরুতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খানের নেতৃত্বে তিন সদস্যের প্রতিনিধিদল প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদার (সিইসি) কাছে সংশোধিত গঠনতন্ত্র জমা দেন।

বিএনপির গঠনতন্ত্রে ৭ নম্বর ধারায় ‘কমিটির সদস্যপদের অযোগ্যতা’ শিরোনামে বলা আছে, ‘নিম্নোক্ত ব্যক্তিগণ জাতীয় কাউন্সিল, জাতীয় নির্বাহী কমিটি, জাতীয় স্থায়ী কমিটি বা যেকোনো পর্যায়ের যেকোনো নির্বাহী কমিটির সদস্যপদের কিংবা জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলের প্রার্থীপদের অযোগ্য বলে বিবেচিত হবে।’

তারা হলেন: (ক) ১৯৭২ সালের রাষ্ট্রপতির আদেশ নম্বর ৮-এর বলে দণ্ডিত ব্যক্তি। (খ) দেউলিয়া, (গ) উন্মাদ বলে প্রমাণিত ব্যক্তি, (ঘ) সমাজে দুর্নীতিপরায়ণ বা কুখ্যাত বলে পরিচিত ব্যক্তি।

কে এম মাসুদ রুমি বলেন, এ প্রস্তাব জমা দেয়ার পর মোজাম্মেল হোসেন ওই সংশোধনী না আনার জন্য ইসিতে একটি আবেদন করেন। এরপর রিট করেন।

তিনি বলেন, এখন আজ আদালত মোজাম্মেল হোসেনের এ আবেদন এক মাসের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে নির্দেশ দিয়েছেন। একইসঙ্গে নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত বিএনপির সংশোধিত গঠনতন্ত্র গ্রহণ না করতে ইসিকে নির্দেশ দিয়ে রুল জারি করেন।

রুলে দণ্ডিতরা পদে থাকতে পারবেন না সংশোধনীতে বাদ দেয়া এমন বিধান কেন বেআইনি হবে না এবং সংবিধান ৬৬ (২) ঘ এর পরিপন্থি হবে না তা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট।

চার সপ্তাহের মধ্যে স্থানীয় সরকার সচিব, প্রধান নির্বাচন কমিশনার, নির্বাচন কমিশন সচিব, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও মহাসচিবকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
আগষ্ট ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« জুলাই    
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া