১৬ই অক্টোবর, ২০১৮ ইং | ১লা কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

adv

উল্টোপথে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসের যাত্রা নিয়ে হুলস্থুল

ডেস্ক রিপাের্ট : ঘটনাস্থল ফার্মগেট। উল্টোপথে চলছে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস। আটকালো পুলিশ। কিন্তু বেশ তেজ দেখাচ্ছেন ভেতরের ছাত্ররা। তাদেরকে উল্টোপথেই যেতে দিতে হবে।

সড়কে শৃঙ্খলার দাবিতে এতবড় আন্দোলন হয়ে যাওয়ার পর পুলিশও এখন কঠোর। তারা সেই আবদার মানেনি। মামলা দিয়ে বাসটিকে সঠিক পথেই যেতে বাধ্য করা হয়।

বৃহস্পতিবার সকালে ক্লাস পরীক্ষা মিস হওয়ার দোহাই দিয়ে দ্রুত ক্যাম্পাসে পৌঁছাতে বাসটি চলছিল উল্টো পথে। পুলিশ চালককে সোজা পথে যেতে বললে পুলিশের সঙ্গে গোল বাঁধে শিক্ষার্থীদের। ছাত্ররা দাবি করতে থাকে, সোজা পথে যানজট থাকায় তারা সময় মত পৌঁছতে পারবে না। তাই তাদের উল্টো পথেই তাদের যেতে হবে।

অথচ এই গোলযোগেই সময় নষ্ট হয় আধা ঘণ্টা। আর এরপর ঠিকই বাসটি চলতে শুরু করে সোজা পথে।

এই একটি বাসের জন্য ভুগেছে এই পথের হাজারো মানুষ। গোলযোগে সড়কের দুই পাশেই যান চলাচল ব্যাহত হয়, অবনতি ঘটে যানজট পরিস্থিতির।

তবে বাসটিতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় নাকি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ছিল তা জানা যায়নি।

পুলিশ বলছে, বিআরটিসির দোতলা এই বাসের চালককে বারবার বাসটি ঘোরাতে বলা হলেও তিনি কথা শুনছিলেন না। কিন্তু তাকে মামলা দিয়ে শৃঙ্খলা মানতে বাধ্য করা হয়।

এই ঘটনার একটি ভিডিও ধারণ করে তা ফেসবুকে ছাড়েন জয় দেব নামে এক ব্যাক্তি। তিনি লিখেন, ‘ফার্মগেটে কিছুক্ষণ আগে কোন এক বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি বাসের উল্টো পথে যাত্রা ঠেকাতে ডজন খানেক পুলিশের সময় লেগেছে আধা ঘণ্টা। ভোগান্তিতে সাধারণ পথচারীরা।’

ওই ভিডিওতে দেখা যায়, ফার্মগেট মোড় থেকে শাহবাগ সড়কে তীব্র যানজট। তাই ফার্মগেট থেকে বিআরটিসির একটি দোতলা বাস উল্টো পথ দিয়ে চলার চেষ্টা করছে। পুলিশের বেশ কয়েকজন সদস্য তাদের ঠেকানোর চেষ্টা করছে কিন্তু বাসটি সোজা পথে যেতে নারাজ।

আর ওই বাসটির জন্য শাহবাগ থেকে ফার্মগেটগামী সকল বাস চলাচল বন্ধ হয়ে থাকে। এ সময় একজন বলতে থাকেন- ‘দুই দিন আগে ছাত্ররা আন্দোলন করল আজ তারাই উল্টা ঢোকে। তাদের জন্য আমরা যানজটে কতক্ষণ আটকে থাকব!’

ডিএমপির তেজগাঁও ট্রাফিক জোনের সহকারী কমিশনার (এসি) হারুন-অর-রশিদ জানান, ‘বাসটি উল্টো পথে যাবার জন্য আমরা মামলা দিয়েছি। বাসটি ঘটনাস্থল থেকে সরাতে দেরি হবার বিষয়ে পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, ‘মূল সমস্যা ছিল চালকের। সে উল্টো এসে দুঃসাহস দেখিয়েছে। সে উল্টো পথে যাবেই।

আবার তার লাইসেন্স দেখাতে এবং গাড়ি সরাতে দেরি করতে থাকে। আমাদের নির্দেশনা দেওয়া আছে উল্টো পথে কোন পরিবহন চলবে না। আর আমরা তা দিও না। বিশেষ করে ওই এলাকায় পুলিশের অনেক ক্যামেরা আছে; আবার ট্রাফিকের ঊর্ধ্বর্তন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে তখন ছিলেন। সেখানে কখনও সময়ক্ষেপণ করার সুযোগ নেই।’

গত ২৯ জুলাই রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে বাসের ধাক্কায় শহীদ রমিজউদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহত হন। এর ঘটনার পর নিরাপদ সড়কের দাবিতে রাজধানীতে বিক্ষোভ করে শিক্ষার্থীরা।

এই আন্দোলন স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা শুরু করলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও সমর্থন জানায়। আবার স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা সরে গেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নেমে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষেও জড়ায়।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
অক্টোবর ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« সেপ্টেম্বর    
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া