১১ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং | ২৭শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

adv

শিরোপা জিতবে কে? ফ্রান্স না ক্রোয়েশিয়া

ক্রীড়া প্রতিবেদক : মাসব্যাপী আনন্দ-বেদনার বিশ্বকাপ ফুটবলের পর্দা নামবে আজ। এদিন মস্কোর লুজনিকি স্টেডিয়ামের সবুজ গালিচায় বিশ্বকাপের ফাইনালে লড়াই করবে ফ্রান্স ও ক্রোয়েশিয়া। বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় খেলা শুরু হবে।

ফাইনালের মঞ্চে ফ্রান্স পুরানো হলেও ক্রোয়েশিয়া এবারই প্রথম। শিরোপা জয়ে তাদের লক্ষ্যটাও অনেক উঁচু। ফরাসিরাও ছাড় দিবে না। আজ মাঠে ফরাসি আধিপত্য রুখতে সাইবেরিয়ার বিরুদ্ধে ‘বলকান’ যুদ্ধে জয়ী ক্রোয়েশিয়া শিরোপা লড়াইয়ে নিজেদের সেরা অস্ত্র ব্যবহার করবে।

আগের পাঁচ দেখায় একবারও ফ্রান্সকে হারাতে পারেনি ক্রোয়েশিয়া। বিশ্বকাপের ফাইনালেই প্রথমবারের মতো ফরাসিদের হারিয়ে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হতে চায় জ্লাতকো দালিচের দল। প্রি-কোয়ার্টার থেকে সেমিফাইনাল। তিনটি ১২০ মিনিটের ম্যাচ। ফ্রান্সের থেকে ৯০ মিনিট বেশি খেলতে হয়েছে রাকিতিচ, মডরিচদের। ফুটবল বিশ্বের আশঙ্কা। ফাইনালে ক্লান্তি গ্রাস করবে কিনা ক্রোয়েশিয়াকে, সেই সম্ভবনা উড়িয়ে দিয়েছেন ইভান রাকিতিচ।

পল পোগবাদের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত শক্তি নিয়ে নামবে তার দল। হুঙ্কার ছাড়লেন বার্সিলোনা মিডফিল্ডার। রাকিতিচ বলেছেন, কোনও চিন্তা করবেন না। অতিরিক্ত শক্তি নিয়ে আমরা ফাইনালে খেলতে নামব।’

এরপরই রাকিতিচের সংযোজন, একটা ঐতিহাসিক ম্যাচ খেলতে চলেছি আমরা। শুধু ফুটবলাররা নন। দেশবাসীর ক্ষেত্রেও তা প্রযোজ্য। আমাদের সঙ্গে দেশবাসীরাও মাঠে থাকবেন। মাথা উঁচু করেই মাঠ ছাড়তে চাই।

তিনি জানালেন, ‘পিছনে ফিরে তাকাতে চাই না। অতীত ইতিহাস মনে রেখে লাভ নেই। ফ্রান্সের থুরামের গোল দীর্ঘদিন আমাদের স্মৃতিতে ছিল। ১৯৯৮ সালে আমাদের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ফ্রান্স জিতেছিল। এবার আমরা জিততে চাই। চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতেছেন। ইউরোপা লিগসহ একাধিক ট্রফি রয়েছে রাকিতিচের ঝুলিতে।

শুধু বিশ্বকাপটাই নেই। তা ছোঁয়ার জন্য বাকি সব ট্রফি ছেড়ে দিতে পারেন তিনি। রাকিতিচের কথায়, ‘সব ট্রফির বদলে শুধু বিশ্বকাপটা চাই। দেশের সাফল্যের জন্য যেকোনও মূল্য দিতে রাজি আছি।
অন্যদিকে ক্রোয়েটদের বিপক্ষে সাফল্য ধরে রেখে দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপ শিরোপা ঘরে তোলার স্বপ্ন ফ্রান্সের।

ফরাসিদের মাথায় ১৯৯৮ সালে চ্যাম্পিয়নের মুকুট উঠেছিল। বিধ্বংসী ফর্মে একা হাতে দলকে তখন জয় এনে দেন জিনেদিন জিদান। একাই করেছিলেন দু’টি গোল। ২০০৬ সালে ফাইনালে উঠলেও জয় অধরা থেকে গিয়েছিল। ২০১৮ সালে ফের সুযোগ এসেছে ফ্রান্সের সামনে। চ্যাম্পিয়ন হওয়া নিশ্চিত করতে তাই মাঠে জিদানকেই চাইছেন ফরাসি মিডফিল্ডার পোগবা। তবে ১৯৯৮ সালের জিদান নয়, পোগবা চাইছেন জিদান হয়ে উঠুন ফরাসি স্ট্রাইকার আঁতোয়া গ্রিজম্যান।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
আর্কাইভ
ডিসেম্বর ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« নভেম্বর    
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া