২০শে জুন, ২০১৮ ইং | ৬ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

adv

মাদকবিরোধী অভিযানে সারাদেশের মানুষ খুশি, কিন্তু বিএনপির ভালাে লাগছে না : কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক : মাদকের বিরুদ্ধে সাঁড়াশি অভিযানে দেশের মানুষ খুশি বলে দাবি করেছেন ওবায়দুল কাদের। তারা এর প্রশংসা করছে বলেও মনে করেন তিনি।

মঙ্গলবার রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তে নোয়খালী জেলা সমিতির ইফতারের যোগ দেয়ার আগে সংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে এসব কথা বলেন ক্ষমতাসীন দলের সাধারণ সম্পাদক।

এই অভিযানে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ব্যাপক প্রাণহানির পর বিএনপির সমালোচনা নিয়েও কথা বলেন কাদের। তিনি বলেছেন, ‘সরকারের কোনো ভালো কাজ বিএনপির ভালো লাগবে না। এটাই স্বাভাবিক। মাদকবিরোধী অভিযানে সারাদেশের মানুষ খুশি, প্রশংসা করছে এটা বিএনপির ভালো লাগছে না। এটা জনগণের বহু প্রত্যাশিত একটা অভিযান।’

গত ৪ মে থেকে মাদকের বিরুদ্ধে শুরু হয় চলমান সাঁড়াশি অভিযান। শুরুর দিকে খুব বেশি ‘বন্দুকযুদ্ধের’ খবর পাওয়া না গেলেও গত পাঁচ দিন ধরে প্রতিদিনেই ‘বন্দুকযুদ্ধে’ উল্লেখযোগ্য সংখ্যক মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। গত দুই রাতেই নিহত হয়েছে ২১ জন। পাঁচ দিনে এ্ই সংখ্যাটি ৩১ জন। এদের সবাই মাদকের কারবারি বলে জানিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

র‌্যাব বা পুলিশের পক্ষ থেকে বন্দুকযুদ্ধের প্রতিটি বর্ণনাই একই রকম। মাদকের কারবারিকে ধরতে বা তাকে নিয়ে যাওয়ার সময় তার সহযোগীরা গুলি করে এবং পুলিশ বা র‌্যাবের পাল্টা গুলিতে নিহত হন সন্দেহভাজনরা।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল দাবি করেছেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর গুলিতে প্রতিটি হত্যাই হয়েছে আত্মরক্ষার জন্য।

বিএনপি অবশ্য একে বিচারবহির্ভূত হত্যা আখ্যা দিয়ে অপরাধীদের আদালতের মাধ্যমে বিচারের দাবি তুলেছে। দলটির নেতাদের অভিযোগ, মাদকের বিরুদ্ধে অভিযানের উদ্দেশ্য অন্য। বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার বা মেরে ফেলতে চাইছে সরকার।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সুনামির মতো মাদক ছড়িয়ে পড়ছে সর্বত্রই। তরুণ সমাজের একটা অংশকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। এমন এ ধরনের অভিযান সর্বত্রই প্রশংসিত হচ্ছে।’

‘শহর থেকে গ্রামে সবার মুখে মুখে যে সরকার এ বিষয়টিতে কঠোর অবস্থান নিয়েছে জনস্বার্থে। সর্বনাশা তরুণ সমাজকে ফিরিয়ে আনার জন্য এটা একটা ইতিবাচক পদক্ষেপ।’

রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের সমালোচনার জবাবে কাদের বলেন, ‘বিএনপি আজ পর্যন্ত আওয়ামী লীগের বিষোদগার ছাড়া মাদক, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে কখনো কোনো কথা বলেনি।’

‘মাদকের বিরুদ্ধে শেখ হাসিনা ছাড়া দেশের কোনো রাজনৈতিক দল কথা বলেনি। যা খুবই দুর্ভাগ্যজনক। এটা সমাজের বিরাট সমস্যা। এর বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলা প্রয়োজন। সব রাজনৈতিক দলকে এ বিষয়ে ঐকমত পোষণ করা দরকার।’

বিএনপি জঙ্গিবাদের পৃষ্ঠপোষকতা করছে অভিযোগ করে আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, ‘মাদকের বিরুদ্ধে তারা (বিএনপি) একটা কথাও বলে নাই। এখন সরকার যখন একটা ভালো পদক্ষেপ নিয়ে অভিযান শুরু করেছে তখন বিএনপির ভালো লাগছে না।’

‘সরকারের ভালো কাজ জনগণের কাছে প্রশংসিত হলে বিএনপির ভালো লাগে না, এটাই বাস্তবতা।’

মাদকের কারবারিদের মোকাবেলায় ক্রসফায়ার কতটুকু যুক্তিগত এমন প্রশ্নও ছিল কাদেরের কাছে। জবাবে তিনি বলেন, ‘এটা তো ক্রসফায়ার না, মুখোমুখি। মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে অস্ত্র আছে। তারা যদি মোকাবেলা করে পুলিশ ও র‌্যাব কি তাদের ছেড়ে দেবে?’

‘মাদক ব্যবসা যারা করে তাদের সঙ্গে একটি শক্তিশালী সন্ত্রাসী চক্র আছে। কাজেই এ চক্রের সঙ্গে একটা মুখোমুখি সংঘাত হতেই পারে।’

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
আর্কাইভ
জুন ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« মে    
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া