২৪শে এপ্রিল, ২০১৮ ইং | ১১ই বৈশাখ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

adv

ভারতকে ১৬৭ রানের লক্ষ্য দিলো বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : তার দলে থাকা নিয়েই অনেক আলোচনা-সমালোচনা। অনেক ক্রিকেটবোদ্ধাই চেয়েছিলেন তাকে বিশ্রাম দিয়ে আরিফুল হককে একাদশে নিতে। কিন্তু টিম ম্যানেজমেন্ট আস্থা রেখেছিলেন সাব্বির রহমানের ওপরই। আর আস্থার প্রতিদান দিলেন দু’হাত ভরেই। ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার দিনে এদিন প্রাচীর হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন সাব্বিরই। ২২ ম্যাচ পর পেলেন ফিফটি। খেললেন ৭৭ রানের ইনিংস। তার ইনিংসে ভর করেই সম্মান রক্ষা করতে পেরেছে টাইগাররা। বাংলাদেশও পায় লড়াইয়ের পুঁজি। নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৬৬ রান করে তারা। ফলে নিদাহাস ট্রফির শিরোপার জন্য ভারতের লক্ষ্যটা ১৬৭ রানের।

এদিন ইনিংসের শুরুটা ভালোই করেছিল বাংলাদেশ। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে জয়দেব উনাদকাটের প্রথম ওভারে ৯ রান নিয়ে শুরু করেন দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও লিটন কুমার দাস। দারুণ ফর্মে থাকা সুন্দরের করা দ্বিতীয় ওভারে আসে ৫ রান। এর পরের ওভারে আসে ১৩ রান। দারুণ শুরু। কিন্তু এরপরই হঠাৎ ঝড়ে সব এলোমেলো।

টাইগারদের জন্য ভারতীয় বোলারদের সবচেয়ে বড় হুমকি ছিলেন ওয়াশিংটন সুন্দর ও যুজবেন্দ্র চাহাল। সে দু’জনই ভেঙে দিলেন টাইগারদের টপ অর্ডার। প্রথম আঘাতটা হানেন সুন্দর। ফেরান লিটন কুমার দাসকে (১১)। আগের ওভারেই যিনি দারুণ একটি ছক্কা মেরেছিলেন। তবে সুন্দরকে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে খেসারত দেন এ ওপেনার। সুইপ করতে গিয়ে টপ এজ হয়ে বল উঠে যায় আকাশে। আর সে ক্যাচ লুফে নিতে কোন ভুলই করেননি স্কয়ার লেগে দাঁড়ানো সুরেশ রায়না।

তবে বড় ধাক্কা আসে পরের ওভারে। চাহালের বলে ছক্কা হাঁকাতে গিয়েছিলেন তামিম (১৫)। কিন্তু বাউন্ডারি লাইনে লাফিয়ে উঠে দুর্দান্তভাবে উল্টো ক্যাচ লুফে নেন শারদুল ঠাকুর। একই ওভারে আবার আঘাত হানেন চাহাল। এবার শিকার সৌম্য সরকার (১)। সুইপ করতে গিয়েছিলেন তিনি। তবে ব্যাটে বল ঠিকভাবে লাগাতে না পারলে সোজা চলে যায় স্কয়ার লেগে দাঁড়ানো শিখর ধাওয়ানের কাছে।

৬ রানের ব্যবধানে ৩ উইকেট হারানো বাংলাদেশ তখন তাকিয়ে ছিল মুশফিকুর রহীমের ব্যাটের দিকে। কিন্তু হতাশ করেছেন তিনিও। দারুণ ফর্মে থাকা মুশফিক এদিন নিজেই বিপদ ডেকে আনেন। স্টাম্পের অনেক বাইরে থাকা বল মারতে গিয়ে আউট হন তিনি। চাহাল বলটি গুগলি দিয়েছিলেন। বুঝতে না পারায় ব্যাটের কানায় লেগে টপ এজ হলে সে ক্যাচ লুফে নেন বিজয় শংকর। আউট হওয়ার আগে মাত্র ৯ রানই করতে পারেন এ ব্যাটসম্যান।

মুশফিকের বিদায়ের পর দল তাকিয়েছিল মাহমুদউল্লাহর ব্যাটের দিকে। কিন্তু সাব্বির রহমানের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝির খেসারত দিয়ে আউট হন আগের ম্যাচে বাংলাদেশকে নাটকীয় জয় এনে দেওয়া এ ব্যাটসম্যান। মূলত ভারতীয়দের উইকেট উপহার দেন তারা। বিজয় শংকরের বলে খেলতে গিয়ে ঠিকভাবে লাগাতে পারেননি মাহমুদউল্লাহ। ঠিকভাবে ধরতে পারেননি ভারতীয় উইকেট রক্ষক দিনেশ কার্তিকও। এ সময়ে রান নিতে দৌড়ে অপর প্রান্তে চলে আসেন সাব্বির। কিপারের কাছে বল পেয়ে ঠিকভাবে ধরতে পারেননি বোলার শংকরও। তখন দৌড় দিলেন মাহমুদউল্লাহ। কিন্তু তার আগেই উইকেট ভাঙেন শংকর। ১৬ বলে ২১ রান করে আউট হয়েছেন মাহমুদউল্লাহ। এদিন টি-টুয়েন্টি ক্রিকেটে হাজারি ক্লাবে ঢোকেন তিনি। এ সংস্করণে তার রান এখন ১০১৭ রান।

তবে একাই লড়াই চালিয়ে যান সাব্বির। ১৯তম ওভারে উনাদকাটের বলে বোল্ড হওয়ার আগে দলকে সম্মানজনক স্থানে নিয়ে যান তিনি। ৫০ বল মোকাবেলা করে ৭৭ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেন তিনি। ৭টি চার ও ৪টি ছক্কায় নিজের ইনিংসটি সাজান তিনি। শেষ দিকে ২ চার ১ ছক্কায় ৭ বলে মেহেদী হাসান মিরাজের ১৯ রানে লড়াকু সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ। ভারতের পক্ষে চাহাল ৩টি ও উনাদকাট ২টি উইকেট নেন।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
আর্কাইভ
এপ্রিল ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« মার্চ    
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া