২০শে জুন, ২০১৮ ইং | ৬ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

adv

নওয়াজ শরীফ ও ইমরানকে জুতা নিক্ষেপ: মামলা, নিন্দা ও পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের পর এবার তেহরিকে ইনসাফের চেয়ারম্যান ইমরান খানের ওপরও জুতা হামলার চেষ্টা হয়েছে। তবে এ হামলাচেষ্টাকে ব্যর্থ করে দিয়েছে তেহরিকে ইনসাফের কর্মীরা। ইমরানের ওপর হামলাকারীকে নওয়াজ শরীফের দল মুসলীম লীগ নেতা পাঠিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। হামলাকারী নিজেই এক ভিডিও বার্তায় এ স্বীকারোক্তি দিয়েছেন।

একই দিনে লাহোরেও একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সামেন ভাষণ দেওয়াকালে নওয়াজ শরীফের ওপর জুতা হামলা হয়েছিল। এদিকে নওয়াজ ও ইমরান খানকে জুতা নিক্ষেপের ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে দেশটির প্রায় সবকটি বিরোধী দল। হামলাকারীদের বিরুদ্ধে মামলাও দায়ের করা হয়েছে। যদিও এর একদিন আগেই দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী খাজা আসিফের ওপর কালি নিক্ষেপকারীকে ক্ষমা করে দিয়েছেন তিনি নিজেই। হামলাকারীর সঙ্গে তার কোনো শত্রুতা নেই বলে তিনি তাকে ছেড়ে দেওয়ার নির্দেশ দেন।

পাকিস্তানের দুনিয়া নিউজ জানায়, ফয়সালাবাদে প্রচারাভিযান চলাকালে এক ব্যক্তি ইমরান খানের গাড়ি দরজা খুলে জুতা নিক্ষেপের চেষ্টা করে। এসময় তেহরিকে ইনসাফের কর্মীরা তাকে হাতেনাতে ধরে ফেলে। তবে তাকে মুসলিম লীগের একজন নেতা এ কাজের জন্য পাঠিয়েছে বলে সে অভিযোগ করে। পরবর্তীতে ভিডিও বার্তায় হামলাকরী রমজান দাবি করে, পাঞ্জাবের আইনমন্ত্রী রানা সানাউল্লাহর জামাই রানা শাহরিয়ার তাকে ইমরান খানের ওপর জুতা নিক্ষেপের জন্য পাঠিয়েছে। এ জন্য তাকে কোনো টাকাও দেওয়া হয়নি। সে কালিমার শপথ করে রানা শাহরিয়ারের নাম উল্লেখ করে।

জুতা নিক্ষেপের এ ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে আসিফ আলী জারদারির দল পিপলস পার্টি ও আওয়ামী ন্যাশনাল পার্টিসহ দেশটির প্রায় সবকটি বিরোধী দল। তারা এমন ন্যাক্কারজনক ঘটনাকে গণতান্ত্রিক মনোভাবের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র বলে আখ্যা দিয়েছেন।
পিপলস পার্টির সংসদীয় প্রধান ও সাবেক প্রেসিডেন্ট আসিফ আলী জারদারি এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বলেন, নওয়াজ শরীফের সঙ্গে এমন আচরণ গণতান্ত্রিক মানসিকতার পরিপন্থী। রাজনীতিতে সর্বদা ধৈর্য্য ও সহনশীলতা সর্বাগ্রে রাখা প্রয়োজন। পিপলস পার্টির চেয়ারম্যান বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি বলেন, এ ঘটনায় রাজনৈতিক নেতাদের সম্মান রক্ষায় ঝুঁকি তৈরি করবে। ধৈর্য্যরে সংস্কৃতিতে আসা প্রয়োজন।

পাকিস্তানের তেহরিকে ইনসাফের চেয়ারম্যান ইমরান খান বলেন, কারও ওপর জুতা নিক্ষেপ কোনো ভালো কাজ নয়। আনন্দের বিষয় হচ্ছে এ কাজে তেহরিকে ইনসাফের কেউ জড়িত নয়।

পুশতুন খা মিল্লি আওয়ামী পার্টির চেয়ারম্যান মাহমুদ খান বলেন, রাজনৈতিক দলগুলোর বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে কাজ করা উচিত। এমন অবস্থায় কোনো রাজনৈতিক গ্রুপই জনসভা করতে পারবে না।

আওয়ামী ন্যাশনাল পার্টির প্রধান ইসফান্দার ইয়ারুলি বলেন, এ ধারা বন্ধ না হলে কোনো নেতাই তা থেকে বাদ যাবে না। রাজনীতিবিদদের ওপর আবশ্যক তারা তাদের কর্মীদের রাজনৈতিক প্রশিক্ষণ দেবে।

জামায়াতে ইসলাম পাকিস্তানের সিনেটর সিরাজুল হক বলেন, এ ধরণের বেয়াদবি কোনো ভাবেই সহ্য করা যায় না। আমাদের সংস্কৃতি এ ধরণের আচরণ সমর্থণ দেয় না। সূত্র: ডেইলি পাকিস্তান, জিও নিউজ ও জং

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
আর্কাইভ
জুন ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« মে    
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া