২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৬ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

adv

শেয়ারের ব্যাপক দর পতন

ডেস্ক রিপাের্ট : সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবসে (সোমবার) ব্যাংকিং খাতের তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর শেয়ারের ব্যাপক দর পতন হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় দিনশেষে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সার্বিক মূল্য সূচক কমেছে ৪৮ পয়েন্ট কমেছে।

এদিকে, সোমবার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সাধারণ মূল্য সূচক কমেছে ৮৬ পয়েন্ট। কিন্তু গ্রামীণফোন, স্কয়ার ফার্মা ও ব্র্যাক ব্যাংকের উপর ভিত্তি করে সিএসই’র সার্বিক লেনদেন বেড়েছে। ডিএসই ও সিএসই’র বাজার পর্যালোচনায় এ তথ্য জানা গেছে।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৩৪টি কোম্পানি ও ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৯০টির, দর কমেছে ২০৯টির ও দর অপরিবর্তিত ছিল ৩৫টি প্রতিষ্ঠানের। এসময় ব্যাংকিং খাতের তালিকাভুক্ত ৩০টি কোম্পানির মধ্যে দর কমেছে ২৫টির, দর বেড়েছে ১টির ও ৪টি ব্যাংকের শেয়ার দর অপরিবর্তিত ছিল। এদিন ডিএসইতে ৮ কোটি ৭৩ লাখ ৭৪ হাজার ১৭টি শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

বিশ্লেষণে দেখা যায়, সোমবার পুঁজিবাজারের পতনকে দীর্ঘায়িত্ব করা ১০টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৭টি ছিল ব্যাংকিং খাতের। তবে, এদিন গ্রামীণফোনের শেয়ারে ০.৬৪ শতাংশ বা ৩.১ টাকা দর পতনে ডিএসই’র সূচক কমেছে ৭.০৩ পয়েন্ট।

এদিকে, ব্র্যাক ব্যাংকের দর পতনে ডিএসই’র প্রধান সূচক কমেছে ৩.৭৪ পয়েন্ট। এছাড়াও বাজারের সূচকের পতনকে দীর্ঘায়িত্ব করা কোম্পানিগুলো মধ্যে শীর্ষ ১০ ছিল- আইসিবি, ইস্টার্ন ব্যাংক, স্কয়ার ফার্মা, ডাচ-বাংলা ব্যাংক, প্রাইম ব্যাংক, সিটি ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক, পূবালী ব্যাংক।

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ব্যাংকিং খাতের প্রত্যেকটি কোম্পানি বড় মূলধনী। তাই এ খাতের দর পতনে বাজারে বড় পরিবর্তন আসে।

দিন শেষে ডিএসই’র সার্বিক মূল্য সূচক আগের কার্যদিবসের তুলনায় ৪৮.০৫ পয়েন্ট কমে ৫৮৩৫.৩৩ পয়েন্টে স্থিতি পেয়েছে। এসময় ডিএসইএস সূচক আগের কার্যদিবসের তুলনায় ৬.০৫ পয়েন্ট ও ডিএস-৩০ সূচক আগের কার্যদিবসের তুলনায় ২০.০৪ পয়েন্ট কমেছে।

লেনদেন শেষে টার্নওভার তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে ইবনে সিনা। কোম্পানিটির ১৬ কোটি ৬১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। টার্নওভারের দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল মুন্নু সিরামিক, কোম্পানিটির ১৫ কোটি ৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ১২ কোটি ৩০ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মধ্যে টার্নওভারের তৃতীয় অবস্থানে উঠে এসেছে ন্যাশনাল টিউবস।

টার্নওভার তালিকায় থাকা অন্যান্য কোম্পানিগুলো হলো- জেমিনি সি ফুড, ইউনিক হোটেল, আনোয়ার গ্যালভানাইজিং, নাহি অ্যালমুনিয়াম, আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজ, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স ও ইফাদ অটোস।

এদিকে, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) লেনদেন হওয়া কোম্পানি ও ফান্ডগুলোর মধ্যে দর বেড়েছে ৬২টির, দর কমেছে ১৪৮টির ও দর অপরিবর্তিত ছিল ১৭টি প্রতিষ্ঠানের। এসময় সিএসইতে ২৬ কোটি ৩০ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

দিনশেষে সিএসই’র প্রধান মূল্য সূচক সিএসইএক্স আগের কার্যদিবসের তুলনায় ৮৬.৪৪ পয়েন্ট কমে ১০ হাজার ৮৮২ পয়েন্টে স্থিতি পয়েছে। এসময় সিএসইতে টার্নওভার তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে গ্রামীণফোন।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
সেপ্টেম্বর ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« আগষ্ট    
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া