৯ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং | ২৫শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

adv

সাগর-রুনি হত্যার তদন্ত ৬ বছরে শেষ না হলেও ব্যর্থতা দেখেন না স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

2নিজস্ব প্রতিবেদক : সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরওয়ার ও মেহেরুন রুনিকে হত্যার ঘটনায় ছয় বছরেও তদন্ত শেষ করতে না পারার পরও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কোনো ব্যর্থতা মেনে নিতে নারাজ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

আলোচিত এই হত্যার বিষয়ে প্রশ্নের মুছে সচিবালয়ে এক পর্যায়ে নিজের চেয়ার ছেড়ে উঠেও চলে গেছেন মন্ত্রী।

২০১২ সালের পর ১১ ফেব্রুয়ারি ঢাকার পশ্চিম রাজাবাজারে নিজ বাসভবনে খুন হন সাগর-রুনি পরিবার। তখন ঘটনাস্থলে গিয়ে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে আসামিদের গ্রেপ্তারের আশ্বাস দিয়েছিলেন সে সময়ের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন। কিন্তু সেই দুই দিন এলো না ছয় বছরেও।

সাহারা খাতুনের পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে যোগ হয়েছে দুই জন নতুন মুখ। কিন্তু তাদের হত্যা রহস্য উন্মোচনে এতটুকু অগ্রগতির খবর কেউ দিতে পারছেন না। সাহারা খাতুনকে পাল্টে মহীউদ্দীন খান আলমগীরকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী করার পর তার কাছেও গণমাধ্যম কর্মীদের প্রশ্ন ছিল, কবে দেয়া হবে পুলিশি প্রতিবেদন। তিনিও বলেছিলেন, ‘শিগগির’। এরপর থেকে সেই বৃত্তেই আছেন বর্তমান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও।

এই হত্যার ছয় বছর পূর্তির দিন রাজধানীতে সাংবাদিকরা নানা আয়োজনে স্মরণ করছেন নিহত সাংবাদিক দম্পতিতে। প্রতিটি আয়োজনেই জোরালভাবে উঠে এসেছে বিচারের দাবি। আর এই বিচার করতে হলে পুলিশকে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে হবে।

প্রতি বছরই হত্যার দিনটিতে সচিবালয়ে সাংবাদিকরা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে জানতে চান, কবে দেয়া হবে প্রতিবেদন, কবে শুরু হবে বিচার। কিন্তু প্রতিবারই মন্ত্রী ‘আশ্বাস’ এবং ‘শিগগির’ শব্দ দুটি উচ্চারণ করেন। আজ রবিবার হত্যার ষষ্ঠ বার্ষিকীতেও তার ব্যতিক্রম হয়নি।

1এতদিন হয়ে গেলেও তদন্ত প্রতিবেদন না দিতে পারা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ব্যর্থতা কি না-এমন প্রশ্ন ছিল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে। জবাবে তিনি বলেন, ‘এখানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কোনো ব্যর্থতা নেই।’

তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দিষ্ট তারিখ জানতে পারবেন কি না- জানতে চাইলে মন্ত্রী কিছুটা রাগ করে বলেন, ‘এটা অনেক কিছুই… আপনি কি বলতে পারবেন আগামীকাল আপনি বের হতে পারবেন?’ এরপরই আসন ছেড়ে রুম ত্যাগ করেন তিনি।

এর আগে এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘হাইকোর্টের দিক নির্দেশনায় আমাদের র‌্যাব বাহিনী এটাতে কাজ করছেন। র‌্যাব বাহিনী ডিএনএ নিয়ে কাজ করছেন। তারা শিঘ্রই আমাদেরকে আলোকিত (রহস্য উদঘাটন) করতে পারবেন।’

কয়েক হাত ঘুরে মামলার তদন্তকাজ এখন র‌্যাবের কাছে। মামলায় প্রতিবেদন দাখিলে এখন পর্যন্ত ৫৪ বার সময় নেয়া হয়েছে। সর্বশেষ ১ ফেব্রুয়ারি আবার সময় চাওয়া হলে আগামী ১৩ মার্চ প্রতিবেদন দাখিলের জন্য সময় দিয়েঠে আদালত।

বর্তমানে র‌্যাব সদর দপ্তরের তদন্ত বিভাগের উপ-পরিচালক ও সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) মহিউদ্দিন আহমেদ সাগর-রুনি মামলার তদন্ত করছেন। তিনি ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘মামলাটির আলামত পরীক্ষার জন্য আমেরিকায় পাঠানো হচ্ছে। সেখান থেকে কিছু তথ্য এসেছে।’ মামলায় আটজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
আর্কাইভ
ডিসেম্বর ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« নভেম্বর    
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া