১৫ই অক্টোবর, ২০১৮ ইং | ৩০শে আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

adv

বিশ্ব শেয়ারবাজারে বড় দরপতন

SEARআন্তর্জাতিক ডেস্ক :  অস্থির হয়ে উঠেছে বিশ্ব পুঁজিবাজার। গত ছয় বছরের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের শেয়ারবাজারে ঘটেছে সর্বোচ্চ দরপতন। এর প্রভাবে দরপতন ঘটেছে এশিয়া, ইউরোপ, অস্ট্রেলিয়াসহ বিভিন্ন দেশের পুঁজিবাজারে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান ৩০টি কোম্পানি নিয়ে গঠিত সূচক ডাউ জোন্স সোমবার ১ হাজার ১৭৫ পয়েন্ট বা ৪ দশমিক ৬ শতাংশ কমে ২৪ হাজার ৩৪৫ পয়েন্টে নেমেছে। বৃহত্তর এসঅ্যান্ডপি ৫০০ সূচক কমেছে ৪ দশমিক ১ শতাংশ। প্রযুক্তি কোম্পানি নিয়ে তৈরি সূচক নাসডাক কমেছে ৩ দশমিক ৭ শতাংশ।

২০১১ সালের আগস্টের ‘ব্ল্যাক মানডে’র পর ডাউ জোনস সূচকের এটাই সবচেয়ে বড় পতন। মঙ্গলবারও এই ধাক্কার রেশ চলতে পারে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাবে আজ মঙ্গলবার ব্রিটেনের লন্ডন, জার্মানির ফ্রাঙ্কফুর্ট ও ফ্রান্সের প্যারিসের শেয়ারবাজারে লেনদেনের শুরুতেই ৩ শতাংশের বেশি দর হারায়। লন্ডনের প্রধান কোম্পানিগুলো নিয়ে গঠিত এফটিএসই ১০০ সূচক ১৮০ পয়েন্ট বা ২ দশমিক ৪৬ শতাংশ কমে ৭ হাজার ১৫৪ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

জাপানের প্রধান সূচক নিক্কেই ৪ দশমিক ৮ শতাংশ বা ২২৫ পয়েন্ট  দর হারিয়ে পরে কিছুটা ঘুরে দাঁড়ায়।  অস্ট্রেলিয়ার প্রধান সূচক এসঅ্যান্ডপি/এএসএক্স দর হারায় ২ দশমিক ৭ শতাংশ বা ২০০ পয়েন্ট। দক্ষিণ কোরিয়ার সূচক কসপি ২ দশমিক ৩ শতাংশ দর হারায়।

আন্তর্জাতিক পুঁজিবাজারের সঙ্গে খুব বেশি সম্পর্ক না থাকলেও কাকতালীয়ভাবে গত কিছুদিন ধরে বড় ধরনের দর হারায় বাংলাদেশের শেয়ারবাজার। তবে আজ বিশ্ব পুঁজিবাজারে যখন বড় দরপতন, তখন বাংলাদেশের দুই বাজারে বড় উল্লম্ফন ঘটে সূচকের।

সুদের হার বাড়তে পারে এমন সম্ভাবনায় যুক্তরাষ্ট্রের পুঁজিবাজারে শেয়ার বিক্রির চাপ চলছে গত কয়েক দিন ধরে।  গত  শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের শ্রম অধিদপ্তরের প্রকাশিত চাকরি তথ্যে দেখানো হয় সেখানে বেতন আশাতীত বেড়েছে। এর ফলে মুল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে হয়তো শিগগিরই সুদের হার বাড়বে বলে আশা তৈরি হয়। বিনিয়োগকারীরা শেয়ার বিক্রি করে অর্থ বিনিয়োগ করছেন বন্ডের মতো সম্পদে, যাতে উচ্চ সুদের হারের সুবিধা নিতে পারেন।

হোয়াইট হাউজ অবশ্য বলছে, দীর্ঘমেয়াদি অর্থনৈতিক মৌলিক দিকগুলোর দিকে নজর দেওয়া হচ্ছে, যেগুলো শক্তিশালী অবস্থানে রয়েছে।

কয়েক মাস ধরে বিশ্ব পুঁজিবাজার ও বন্ড মার্কেট ষাঁড়ের গতিতে ছুটেছে। পুঁজিবাজার বিশেষজ্ঞরা বারবার এ ব্যাপারে সতর্ক করেছেন। তবে কেউ কেউ বলছেন, বর্তমানে পুঁজিবাজারে যে নেতিবাচক ধারা দেখা যাচ্ছে তা আতঙ্কের কিছু নয়। এটা বাজারে সংশোধন। এটা ইতিবাচক।

আর্থিক প্রতিষ্ঠান মোটলি ফুল-এর প্রধান নির্বাহী ডেভিড কও বলেন, ‘ইতিবাচক অর্থনৈতিক সংবাদের কারণেই বাজার সংশোধন হয়েছে।

 

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
অক্টোবর ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« সেপ্টেম্বর    
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া