২২শে অক্টোবর, ২০১৭ ইং | ৭ই কার্তিক, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

adv

‘অতিরিক্ত টাকা নির্বাচনে খরচের প্রমাণ পেলেই ব্যবস্থা’

E Cডেস্ক রিপাের্ট : নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেলারেল শাহাদাত হোসেন চৌধুরী (অব.) প্রার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেছেন, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নির্ধারিত ব্যয়ের বেশী বা অতিরিক্ত টাকা খরচের প্রমাণ পেলেই ব্যবস্থা নেয়া হবে। , 
১২ আগস্ট শনিবার সকালে চট্টগ্রামের কর্ণফূলী উপজেলা নির্বাচন নিয়ে কর্ণফুলী উপজেলা মিলনায়তনে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত এই সমন্বয় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় তিনি বলেন, সমর্থকদের নিয়ন্ত্রণ করবেন। যদি তারা নির্বাচনের আগে আপনাদের কথা না শোনে তাহলে নির্বাচনের পরে এদের কিভাবে নিয়ন্ত্রণ করবেন। আপনারা আচরণবিধি মেনে চলুন। নির্বাচনী যে ব্যয় নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে এর চেয়ে বেশি টাকা খরচ করার প্রমাণ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তাছাড়া গ্রহণযোগ্য, অবাধ ও সুষ্টু নির্বাচনের জন্য অঙ্গীকারবদ্ধ এবং ভোটারদের ভোটকেন্দ্রে এসে ভোট দেওয়া এবং বাড়িতে পৌঁছে দেওয়ার সকল ব্যবস্থা করা হবে বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার্থে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, বিজিবি, র‌্যাব, পুলিশ ও আনসার বাহিনী সবসময় নিয়োজিত থাকবে। নিরপেক্ষ ও অবাধ নির্বাচনের জন্য সকল ধরনের ব্যবস্থা করতে হবে। নির্বাচন কর্মকর্তাদের উদ্দেশে বলেন, এ নির্বাচনে পক্ষপাতের কোন সুযোগ নেই। এরকম কিছুর প্রমাণ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উপস্থিত বিভিন্ন প্রার্থীরা নির্বাচন কমিশনারের প্রতি বিভিন্ন প্রশ্ন রাখেন। এদের একজন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হাজী মো. ওসমান বলেন, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের জন্য প্রতিটি কেন্দ্রে সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন এবং ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগের দাবি জানান। সভায় আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী ফারুক চৌধুরী সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সব রকমের সহযোগিতা করবেন বলে আশ্বাস দেন। তাছাড়া ইসলামিক ফ্রন্টের চেয়ারম্যান প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম রিজভী বৈরি আবহাওয়ার জন্য নির্বাচন পেছানোর দাবিও জানান।
এসব দাবির প্রেক্ষিতে নির্বাচন কমিশনার বলেন, ভোটকেন্দ্রে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য ছাড়াও ম্যাজিস্ট্রেট মোতায়েন থাকবে। তাই সিসিটিভির প্রয়োজন হবে না। এছাড়াও মোবাইল ফোনে এখন ভিডিও ধারণ হয়ে যাচ্ছে। সুতরাং অনিয়মের কোনো সুযোগ  নেই বলে জানান নির্বাচন কমিশনার।  
চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক জিল্লুর রহমান চৌধুরীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের অতিরিক্ত সচিব  মোখলেসুর রহমান, পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা, বিজিবি চট্টগ্রামের লেফটেন্যান্ট কর্নেল মঞ্জুরুল আলম, র‌্যাব-৭ এর মেজর আশেকুর রহমান, চট্টগ্রাম নগর পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (বন্দর) হারুন-উর-রশিদ প্রমুখ।  
সভায় কর্ণফুলী উপজেলা নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ও জেলা সিনিয়র নির্বাচন অফিসার মুনির হোসাইন খানের স্বাগত বক্তব্যে এবং সহকারী রিটার্নিং অফিসার সৈয়দ আবু ছাঈদের পরিচালনায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন চেয়ারম্যান প্রার্থী ফারুক চৌধুরী, এসএম ফোরকান, অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম রিজভী, ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী দিদারুল ইসলাম চৌধুরী, হাজী মো. ওসমান, মাওলানা মুহাম্মদ মুছা, নাছির উদ্দীন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী বানাজা বেগম, উম্মে মিরজান শামীমা ও মুন্নি বেগম প্রমুখ।

 

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
আর্কাইভ
অক্টোবর ২০১৭
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« সেপ্টেম্বর    
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া