১৮ই আগস্ট, ২০১৭ ইং | ৩রা ভাদ্র, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

adv

ইংরেজি মাধ্যমে অতিরিক্ত ফি আদায় বন্ধে হাইকোর্টের রায়

HIGH COURTডেস্ক রিপাের্ট : ইংরেজি মাধ্যম স্কুল (প্লে-গ্রুপ থেকে ‘এ’ লেভেল পর্যন্ত) পরিচালনায় ম্যানেজিং কমিটি গঠন, জাতীয় দিবস পালন,দেশিয় সংস্কৃতি ও বাংলা চর্চায় গুরুত্ব দেয়াসহ বেশ কিছু নির্দেশনা  দিয়ে রায় দিয়েছেন হাইকোর্ট।

একইসঙ্গে মাসিক বেতন, পরীক্ষার ফি’ এর বাইরে আর কোনও ফি নেয়া যাবে না বলেও রায়ে বলেছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (২৫ মে)  বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি মো. বদরুজ্জামানের বেঞ্চ দু’টি রিট আবেদনের প্রেক্ষিতে জারি করা রুল নিষ্পত্তি করে এ রায় দেন।

আদালতে দুটি রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার বদরুদ্দোজা বাদল, অনিক আর হক, জে আর খান রবিন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল রাশেদ জাহাঙ্গীর।

পরে আইনজীবী বদরুদ্দোজা বাদল সাংবাদিকদের বলেন, ‘আদালত বেশ কয়েকটি নির্দেশনা দিয়েছেন। ওই নির্দেশনা বাস্তবায়নের জন্য এ রায় পাওয়ার এক মাসের মধ্যে সার্কুলার দিয়ে সব ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে পাঠাতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।  এবং প্রতি তিন মাস অন্তর অন্তর আদালতের নির্দেশনা কতটুকু বাস্তবায়ন হয়েছে তার প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। আদালত এটাকে কন্টিনেয়াজ মেন্ডামাস হিসেবে রেখে দিয়েছেন।’

রায়ের নির্দেশনাগুলো হলো- বেসরকারি স্কুল নিবন্ধন অধ্যাদেশ ১৯৬২ অনুসারে স্কুলগুলোতে অভিভাবকসহ শিক্ষক প্রতিনিধি নিয়ে ম্যানেজিং কমিটি গঠন করতে হবে। শিক্ষক  ও স্টাফ নিয়োগের ক্ষেত্রে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দিয়ে যাচাই বাছাই করে নিয়োগ দিতে হবে। পেছনের দরজা দিয়ে কাউকে নিয়োগ দেয়া যাবে না। এতে মালিকপক্ষের কোনও প্রাধান্য থাকবে না। এক শ্রেণিতে থেকে অন্য শ্রেণিতে ওঠার সময় কোনও প্রকার পুনভর্তি ফি ও সেশন চার্জ নেয়া যাবে না। কোনও ধরনের ফি বাড়াতে হলে অভিভাবকদের মতামত নিয়ে ওয়েবসাইটে প্রকাশ করতে হবে।

ম্যানেজিং কমিটি ভর্তি ফি, টিউশন ফি নির্ধারণ করবে। এতে অভিভাবক প্রতিনিধির মতামত প্রাধান্য পাবে।

সব প্রতিষ্ঠানের অডিট রিপোর্ট ওয়েবসাইটে প্রকাশ করতে হবে।

জাতীয় দিবস যথাযথ মর‌্যাদায় পালন করতে হবে। পাশাপাশি দেশের সংস্কৃতি অনুযায়ী রবীন্দ্র-নজরুল, বঙ্গবন্ধুসহ স্বাধীনতায় আত্মদানকারীদের জীবনী নিয়ে অনুষ্ঠান করতে হবে।

অষ্টম শ্রেণি পর‌্যন্ত বাংলা বিষয়ে পড়া, লেখা ও বলায় বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে।

ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে পুনঃভর্তি ফি বা সেশন চার্জ আদায় থেকে সংশ্লিষ্টদের বিরত রাখতে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়ে ২০১৪ সালের ২৩ এপ্রিল  রুলসহ অন্তর্বর্তীকালীন  আদেশ দেন বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার ও বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের বেঞ্চ ।
২০১৩ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর একটি দৈনিকে ‘ফ্রিস্টাইলে চলছে ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। ওই প্রতিবেদনের ভিত্তিতে এ বিষয়ে নীতিমালা তৈরির প্রয়োজনীয় নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট করেন দুই শিক্ষার্থীর অভিভাবক জাবেদ ফারুক।

রুলে এসব স্কুলে মাসিক বেতন, পুনঃভর্তি ফি বা সেশন চার্জ আদায়ের বিষয়ে নীতিমালা তৈরি এবং তদারক সেল গঠনের নির্দেশ কেন দেয়া হবে না তা জানতে চাওয়া হয়। শিক্ষা সচিব, আইন সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদফতর এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালকসহ বিবাদীদের চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
আর্কাইভ
আগষ্ট ২০১৭
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« জুলাই    
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া