২০শে মে, ২০২০ ইং | ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

adv

নিলামে প্রায় ১৭ লাখ টাকায় মুশফিকের ব্যাট কিনে নিলেন আফ্রিদি

স্পাের্টস ডেস্ক : নিলামে ২০ হাজার ইউএস ডলারে ব্যাটটি কিনে নেয় পাকিস্তানের কিংবদন্তী ক্রিকেটার শহীদ আফ্রিদির ফাউন্ডেশন। বাংলাদেশি মুদ্রায় ব্যাটির দাম উঠেছে প্রায় ১৭ লাখ টাকা এবং পাকিস্তানি মুদ্রায় ৩১ লাখ ৯৯ হাজার রুপি। প্রাপ্ত পুরো অর্থ ব্যয় করা হবে করোনা যুদ্ধে।

করোনায় দুর্গত ব্যক্তিদের সহায়তা করতে ২০১৩ সালের মার্চে গলে দেশের প্রথম টেস্ট ডাবল সেঞ্চুরি করা ব্যাটটি নিলামে তুলেছিলেন বাংলাদেশের সবচেয়ে সফল উইকেটকিপার। ৯ মে শুরু হয়ে ১৪ মে রাত ১০টায় শেষ হয়েছে মুশফিকের ব্যাটের নিলাম। আজ ফেসবুক লাইভে এসে সেটির আনুষ্ঠানিক ফল জানিয়েছেন মুশফিক নিজেই। মুশফিকের ব্যাটের নিলাম তত্ত্বাবধান করেছে ই-কমার্সভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ‘পিকাবু’।

তবে প্রথম পর্যায়ে সে সময় ভুয়া বিডারদের কারণে ভেস্তে যেতে এই নিলাম। এই কারণে ব্যাটের নিলাম কয়েক ঘন্টা বন্ধও ছিলো। অনলাইনে আকাশছোঁয়া দাম উঠলেও বেশিরভাগ ব্যক্তিই বিড করছেন ‘ভুয়া আইডি’ ব্যবহার করে। গত বুধবার নিবকো এবং পিকাবো কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ব্যাটটির নিলাম প্রক্রিয়া সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার পর্যন্ত ৫৩টি বিড হয়েছে যেখানে ব্যাটটির মূল্য সর্বোচ্চ ৪১ লাখ পর্যন্ত উঠেছে।

নিলামের পর মুশফিকের পেজে শেয়ার করা এক ভিডিও বার্তায় আফ্রিদি বলেন, ‘আসসালামুআলাইকুম মুশফিক, আপনি দেশের মানুষের জন্য যা করছেন তা সত্যিই প্রশংসনীয়। সত্যিকারের নায়করাই একাজ করতে পারে। আমরা সবাই মিলে খারাপ একটা সময় পার করছি। এ সময় আমাদের একে অন্যকে সাহায্য করা জরুরী যাতে করে এই পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসতে পারি। অতীতে বাংলাদেশে আমি যে পরিমানে ভালবাসা ও সম্মান পেয়েছি তা আমি সারা জীবন মনে রাখবো। পাকিস্তানের জনগন ও শহীদ আফ্রিদি ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে, আমি আপনার ব্যাটটা কিনে আপনার সঙ্গী হতে চাই এই পথ চলায়। আপনার জন্য আমার প্রার্থনা সব সময় থাকবে, আশা করছি আল্লাহ আমাদের সাহায্য করবেন এই মহামারী পরিস্থিতি থেকে উত্তরণে। আপনার সাথে আবারো মাঠে আমার দেখা হবে তাড়াতাড়ি। ধন্যবাদ।’

লাইভে এসে মুশফিক বলেন, ‘আমি প্রথমেই ধন্যবাদ জানাতে চাই, নিলামে যারা অংশগ্রহণ করেছেন তাদেরকে। কারণ বেশ কিছু সত্যিকারের বিডার এই পাঁচদিনে অংশ নিয়েছিলেন এতে। আমি এখনই অ্যানাউন্স করতে চাই, আমার সেই ব্যাটটি কে কিনে নিয়েছেন। আমি মনে করি যে, পৃথিবীর যারা ক্রিকেট খেলা দেখেন, তারা সবাই তাকে চেনেন। তিনি হচ্ছেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শহিদ খান আফ্রিদি। তিনি তার ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে এই ব্যাটটি কিনেছেন। আমি খুবই আনন্দিত যে, তার মত একজন ব্যক্তিত্ব আমার এই ব্যাটটি কিনে নিয়েছেন। আমাদের যে মহৎ একটা উদ্যোগ ছিল, সেটাতে তিনি অংশগ্রহণ করেছেন।’

পিকাবোর প্রধান নির্বাহী মনির তালুকদার সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, প্রাথমিকভাবে কিছু সমস্যার মুখোমুখি হলেও শেষ পর্যন্ত তারা সঠিক বায়ার পেয়ে গেছেন। আর এটি হলো- শহীদ আফ্রিদি ফাউন্ডেশন।আমরা শহীদ আফ্রিদি ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে অফিসিয়াল ইমেইল পেয়েছি। তারা ব্যাটটি ২০ হাজার মার্কিন ডলার দিয়ে কিনতে চায়।

একই প্ল্যাটফর্মে নিলামে ওঠা যুব বিশ্বকাপজয়ী আকবর আলীর জার্সি-গ্লাভস ২ হাজার ডলারে (বাংলাদেশি টাকায় ১ লাখ ৭০ হাজার টাকা) কিনেছেন জুয়েল নামের এক প্রবাসী । মোসাদ্দেক হোসেন, মোহাম্মদ নাঈমের ব্যাট আর মাশরাফি বিন মুর্তজার স্বাক্ষরিত টুপির দাম ঘোষণা করা হয়নি। এটা নিয়ে কাজ চলছে বলে জানিয়েছেন পিকাবুর প্রধান নির্বাহী মরিন তালুকদার।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
May 2020
M T W T F S S
« Apr    
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া