১৪ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং | ২৯শে আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

adv

৩৪ বছর পর মঙ্গলবার বিশ্বকাপ বাছাইয়ে বাংলাদেশ – ভারত লড়াই

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিশ্বকাপ আর এশিয়ান কাপের বাছাইপর্বে মঙ্গলবার মুখোমুখি বাংলাদেশ ও ভারত। কলকাতার সল্টলেক স্টেডিয়ামের সবুজ গালিচায় ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত ৮টায়।
ম্যাচটি দুই দলের জন্যই মহাগুরুত্বপূর্ণ। পরের রাউন্ডে যেতে দুই দলের কাছেই জয়ের বিকল্প নেই। ওদিকে আট বছর পর কলকাতায় খেলতে আসছে ভারতীয় দল, ফলে এই ম্যাচ নিয়ে ভারতীয়দের প্রত্যাশাও আকাশচুম্বী। উত্তাল জনসমুদ্রের সামনে বাংলাদেশকে বশ করতে চাইবে স্বাগতিকরা।

এশিয়ান কাপ ও বিশ্বকাপের যৌথ বাছাইপর্বে নিজেদের গ্রুপ ‘ই’ তে সবচেয়ে নিচের দুটি অবস্থানে আছে ভারত আর বাংলাদেশ। তলানিতে থাকলেও দুই দলই চাইবে নিজেদের ফুটবলীয় আধিপত্যের কথা বিশ্বের সামনে তুলে ধরতে। যে দলই জিতুক, তাদের হবে গ্রুপের প্রথম জয়। তবে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে ভারত ১০৪ আর বাংলাদেশ রয়েছে ১৮৭ তে। শক্তির বিচারে বলা যায় ভারত এগিয়ে। সল্টলেকে আজ ৮৫ হাজার দর্শকের সামনে লাল-সবুজ দলের সেনারা নিজেদের কীভাবে মেলে ধরেন সেটাই দেখার অপেক্ষায় বাংলাদেশের ফুটবল প্রেমীরা।

বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে দুই দলের এই লড়াইয়ে যেনো ৩৪ বছর আগের স্মৃতি খুঁজে ফিরছে বাংলাদেশ দল। ১৯৮৫ সালে ভারতের সল্টলেক স্টেডিয়ামে স্বাগতিকদের বিরুদ্ধে দুর্দান্ত পারফরম করেছিলো বাংলাদেশ। নিশ্চিত ড্রর ম্যাচ সেদিন হাতছাড়া হওয়ায় পরবর্তী রাউন্ডে যেতে পারেনি আসলাম-চুন্নুরা। ম্যাচটি হেরেছিলো ২-১ ব্যবধানে। সে দিন আসলাম-চুন্নুরা তুমুল লড়াই আর রোমাঞ্চের রসদ জুগিয়েছিলেন, ঠিক তেমনি এবার মামুনুলরাও চাইছে পুনারাবৃতি ঘটাতে।

১৯৮৬ বিশ্বকাপের পর বাংলাদেশ আটটি বাছাইপর্ব খেলেছে। কিন্তু সেরা সাফল্য এসেছে তারও আগে। সেটি ১৯৮৫ সালে থাইল্যান্ড এবং ইন্দোনেশিয়াকে হরানোর স্মৃতি। কিন্তু গ্রুপের অন্য প্রতিপক্ষ ভারতকে কখনো হারানো যায়নি। দলটি দুইবার ২-১ গোলে হারিয়েছে বাংলাদেশকে।

কলকাতায় ভারতের জাতীয় দল খেলতে আসছে ৮ বছর পর। তাই ম্যাচটি ঘিরে সেখানে মানুষের আগ্রহ ব্যাপক। ‘ভারতীয় ফুটবলের মক্কা’ বলে পরিচিত এই শহরে ‘বাংলাদেশ’ নামটি যুক্ত হওয়ায় সাধারণ মানুষের আগ্রহ চলে গেছে অন্য মাত্রায়। চুন্নুদের সেই ম্যাচেও মানুষের এমন আগ্রহ ছিলো। এমনকি অনেক বাঙালি বাংলাদেশকেও সমর্থন করেছিলেন।

বাংলাদেশ দলের মাঝ মাঠের খেলোয়াড় মামুনুল ইসলাম বলেছেন, এবারও আমরা কলকাতাবাসীর সমর্থন পাবো। সোমবার অনুশীলন শেষে তিনি বলেন, কলকাতা মানে আমাদের কাছে আরেকটি বাংলা। মনে হচ্ছে নিজেদের দেশে খেলতে এসেছি। আমি বিশ্বাস করি এখানকার মানুষ আমাদের সমর্থন করবে।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
অক্টোবর ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« সেপ্টেম্বর    
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া