৭ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং | ২২শে আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

adv

আর একটা দিন হাতে পেলেই ভারতে পালাতেন সম্রাট

ডেস্ক রিপাের্ট : গ্রেফতার এড়াতে ভারতে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন সম্রাট ।এজন্য তিনি ভfরতের সীমান্ত কাছাকাছি তার গ্রামের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছিলেন।ভারতে যাওয়ার জন্য সীমান্তের পাচারকারী একটি চক্রকে পারাপারের ব্যবস্থা করার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। তবে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযানের মুখে তার প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়।সমকাল

সম্রাটের গ্রামের বাড়ি পরশুরাম থানার মীর্জানগর ইউনিয়নের সাহেবনগর গ্রামে। তবে ওই সীমান্তে কাঁটাতারের বেড়া থাকায় সীমান্ত অতিক্রম করা দুরূহ ছিলো। চৌদ্দগ্রামের যে বাড়িতে সম্রাট আত্মগোপনে ছিলেন সেই গ্রামও ভারত সীমান্তের পাঁচ কিলোমিটারের মধ্যে।। তবে সীমান্তে বেড়ার জন্য পরশুরামের বিলোনিয়া সীমান্ত দিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়। আর এক দিন মাত্র সময় পেলে তিনি ফেনীর বিলোনিয়া এলাকা দিয়ে ভারতে পাড়ি জমাতেন বলে একাধিক সূত্র জানিয়েছে।

সূত্র জানায়, গ্রামটি ভারত সীমান্তের পাঁচ কিলোমিটারের মধ্যে। গ্রামে সম্রাটের বাড়িটি সারা বছর খালি পড়ে থাকে। গ্রেফতারের আগে হঠাৎ করে সম্রাটের বাড়িটি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করা হয়। বাড়িতে কিছু যুবকের আনাগোনাও দেখা গেছে। এরা মূলত পাহারার কাজ করছিলো । এলাকায় সম্রাটের সমর্থক গোষ্ঠী রয়েছে। পরশুরামের স্থানীয় লোকজন জানায়, সম্রাট এলাকায় যুবলীগের একটি অংশকে পুষতেন। রোববার সকালে সম্রাটের গ্রেফতারের খবর এলে তার সমর্থকরা এলাকার বিভিন্ন পয়েন্টে জড়ো হতে থাকে।

পরশুরামের মীর্জানগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুজ্জামান ভুট্টো জানান, ইউনিয়ন ও উপজেলা আওয়ামী লীগের একাংশ সকাল থেকে সম্রাটের পক্ষে তৎপর ছিল। তবে যুবলীগ থেকে সম্রাটকে বহিষ্কার করার ঘোষণার পর তারা সটকে পড়ে।

আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তৎপরতায় তার পরিকল্পনা ভেস্তে যায়।গ্রেফতারের আগের রাতে তার বাসাটি ঘেরাও করে ফেলা হয়।রোববার রাতে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার আলকরা ইউনিয়নের কুঞ্জুশ্রীপুর গ্রাম থেকে ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটকে গ্রেফতার করা হয়।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
অক্টোবর ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« সেপ্টেম্বর    
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া