২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং | ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

adv

‘জয় হিন্দ’ স্লোগান দিয়ে সমালোচিত রাবি উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান, ক্ষমা চাওয়ার দাবি

ডেস্ক রিপাের্ট : ‘জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু’ স্লোগানের পর ‘জয় হিন্দ’ স্লোগান দিয়েছেন রাবি উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান। সেদিন অনুষ্ঠানে উপস্থিত একাধিক শিক্ষক-শিক্ষার্থী উপাচার্যের এমন কাণ্ডে অবাক হয়ে যান।

গত ২৬ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ সিনেট ভবনে যৌথভাবে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে রাবি ভিসি ‘জয় হিন্দ’ স্লোগান দেন। একজন স্বাধীন দেশের নাগরিক হয়ে অন্য দেশের স্লোগান কীভাবে দেন প্রশ্ন তুলে ভিসি অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহানকে ক্ষমা চাওয়ার দাবি তুলেছেন অনেকেই।

এক প্রতিক্রিয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশ কয়েকজন শিক্ষক ও শিক্ষার্থী জানান, উপাচার্যের মতো গুরুত্বপূর্ণ পদে থেকে অন্য একটি দেশের স্লোগান কি করে ভরা মজলিশে দেন তিনি তা তাদের মাথায় ঢুকছে না।

অনেকে বলছেন, এ স্লোগান এমনিতেই দেয়ার যৌক্তিকতা নেই, তার ওপর আবার অনুষ্ঠানে বিজ্ঞ সব ব্যক্তিত্বের মাঝে তিনি এটা করলেন। শিক্ষকদের কেউ কেউ বলছেন, এমন কাণ্ড করে বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে খাটো করে দেখালেন রাবি ভিসি। এটি একটি রাষ্ট্র বিরুদ্ধাচরণ।

এদিকে ‘অখণ্ড ভারতের জয়ধ্বনি’ দেয়ায় রাবি উপাচার্যকে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানিয়ে এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের গ্রুপ সাদা দল। ভিসি ক্ষমা না চাইলে তার বিরুদ্ধে আন্দোলনে নামতে বাধ্য হবেন বলে জানান সাদা দলের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মোহা. এনামুল।

রোববার এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘জয় হিন্দ’ স্লোগান দিয়ে রাবি ভিসি অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান রাষ্ট্রদ্রোহিতে পরিণত হয়েছেন। তিনি তার পদের চরম অবমাননা ঘটিয়েছেন এবং ওই পদে থাকার নৈতিক অধিকার হারিয়েছেন। অবিলেম্ব তাকে জাতির সামনে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানাই। সেই সঙ্গে আইনের আওতায় এনে রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকাণ্ডের জন্য তার যথাযথ শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

ভিসিকে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়টির আরও অনেক শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।

রাবি অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ইলিয়াস হোসেন বলেন, ‘জয় হিন্দ’ হচ্ছে অখণ্ড ভারতের একটি স্লোগান। বাংলাদেশ একটি স্বাধীন সার্বভোম রাষ্ট্র। সেদিক থেকে অখণ্ড ভারতের স্লোগান দেয়ার মাধ্যমে বাংলাদেশের সার্বভৌমত্বকে খাটো করা হয়।

এই স্লোগান দিয়ে রাবি ভিসি ভারতের প্রতি আনুগত্য প্রকাশ করছেন বলে অভিযোগ করেছেন কেউ কেউ।

গত ২৬ সেপ্টেম্বরে ইতিহাস বিভাগ ও জন-ইতিহাস চর্চা কেন্দ্রের যৌথ আয়োজনে ‘কালচার, পিস অ্যান্ড এডুকেশন; ফ্রম দ্যা পারস্পেকটিভ অভ পিপলস স্টিস্ট্রি’ শীর্ষক তিন দিনব্যাপী সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ছিল। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান কাজী শহীদুল্লাহ।

বিশেষ অতিথি ছিলেন রাজশাহীতে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার সঞ্জীব ভাট্টি, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা ও অধ্যাপক চৌধুরী মো. জাকারিয়া। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান। উপাচার্য তার বক্তব্যের শেষ পর্যায়ে ‘জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু’ বলার পর ‘জয় হিন্দ’ বলেন।

ফোন রিসিভ না করায় ‘জয় হিন্দ’ স্লোগান দেয়ার বিষয়ে রাবি ভিসি অধ্যাপক এম আবদুস সোবহানের কোনো বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
সেপ্টেম্বর ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« আগষ্ট    
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া