১৫ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং | ৩১শে ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

adv

ডেঙ্গু ছড়াচ্ছে নতুন প্রজাতির মশা অ্যালবোপিকটাস

ডেস্ক রিপাের্ট : রাজধানীর হাসপাতালগুলোতে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা কমতে শুরু করলেও তুলনামূলকভাবে রাজধানী ঢাকার বাইরে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। জেলা শহর ও গ্রামাঞ্চেল অ্যালবোপিকটাস নামের নতুন প্রজাতির মশা ডেঙ্গু ছড়াচ্ছে বলে জানিয়েছে রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)।

আইইডিসিআরের একটি বিশেষজ্ঞ টিম সম্প্রতি যশোর, কুষ্টিয়া ও মেহেরপুর পরিদর্শনে গিয়ে এই নতুন প্রজাতির মশার সন্ধান পায়। ডেঙ্গুর বাহক নতুন প্রজাতির মশার নমুনা পরীক্ষা-নিরিক্ষার পর গবেষকরা জানিয়েছেন, এডিস মশক গোত্রের অভিযোজনকারী একটি নতুন প্রশাখা হলো অ্যালবোপিকটাস।

তারা বলছেন এডিসের দুটি প্রজাতি—এডিস ইজিপটাই ও এডিস অ্যালবোপিকটাস। রাজধানীতে এডিস ইজিপটাই ডেঙ্গু ছড়াচ্ছে। তবে এখন ঢাকার বাইরে ডেঙ্গু ছড়াচ্ছে অ্যালবোপিকটাস প্রজাতির মশা। এডিস ইজিপটাই সাধারণত শহরে ও ঘরের ভেতরে থাকে। আর এডিস অ্যালবোপিকটাস থাকে গ্রামাঞ্চলে ঝোঁপঝাড়ে।

আইইডিসিআরের পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা জানান, আপাতত তিন জেলাতেই এডিস অ্যালবোপিকটাস প্রজাতির মশা পাওয়া গেছে। এ প্রজাতির মশার কামড়ে ডেঙ্গু হলেও ডেঙ্গুর প্রাথমিক বাহক এডিস ইজিপটাই। এডিস অ্যালবোপিকটাস দ্বিতীয় পর্যায়ের বাহক। অ্যালবোপিকটাসের সংক্রমণক্ষমতা ইজিপটাইয়ের চেয়ে পাঁচ গুণ কম।

তিনি জানান, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দিল্লি আঞ্চলিক কার্যালয়ের জ্যেষ্ঠ কীটতত্ত্ববিদ বি এন নাগপাল গত মাসের প্রথম সপ্তাহে ঢাকায় সাংবাদিকদের জন্য আয়োজিত অনুষ্ঠানে বলেছিলেন, এডিস ইজিপটাই শহর অঞ্চলে জন্ম নিয়ে রোগ ছড়ায়। এডিস অ্যালবোপিকটাস গ্রাম, বনাঞ্চল ও উপশহর এলাকায় রোগের সংক্রমণ ঘটায়। এ বছর ব্যাপকভাবে ডেঙ্গু ছড়িয়ে পড়ার পরিপ্রেক্ষিতে মশা নিয়ন্ত্রণের পরামর্শ দিতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা নাগপালকে ঢাকায় পাঠিয়েছিল।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা আগের দিনের চেয়ে ২২ শতাংশ কমেছে। এসময় সারাদেশে পর্যন্ত নতুন করে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৫২৭ জন। এদের মধ্যে ঢাকার ১৫৬ জন, ঢাকার বাইরের রোগী ৩৭১ জন। এ সময়ে চিকিৎসা নিয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ৪৩১ জন। এর মধ্যে ঢাকার ভেতরে ১৫৩ জন, ঢাকার বাইরে ২৭৮ জন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ইমার্জেন্সি হেলথ অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম বলছে, ডেঙ্গুর প্রকোপ বাড়ার পর জুলাই থেকে এ পর্যন্ত এক দিনে আক্রান্তের এ সংখ্যা সবচেয়ে কম। কন্ট্রোল রুমের হিসাব অনুযায়ী, গতকাল শুক্রবার (১৩ সেপ্টেম্বর) রোগী সংখ্যা ছিল ৬৭২ জন, এর আগের দিন বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) ছিল ৭৫০ জন।

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
সেপ্টেম্বর ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« আগষ্ট    
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া