১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং | ২রা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

adv

ঘাসের উইকেটে খেলবে বাংলাদেশ-আফগানিস্তান!

স্পাের্টস ডেস্ক : বিশ্বকাপের পরে ক্রিকেট থেকে ছুটিতে ছিলেন সাকিব আল হাসান। অসাধারণ পারফরমেন্সে বাংলাদেশকে সেমিফাইনালে ওঠার পথে রেখেছিলেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। বিশ্বকাপ থেকে ফিরে এসে লঙ্কানদের বিপক্ষে সিরিজে ছুটি নিয়ে মাকে নিয়ে পবিত্র হজব্রত পালন করে দেশে ফিরেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের এই সেরা খেলোয়াড়।

ছুটিতে থাকাকালীন নিয়োগ দেয়া হয় বাংলাদেশ দলের হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোকে। তাই নিয়োগ পাওয়ার পরে আর কোচের সাথে সাকিবের দেখা হয়নি। ঠিক তেমনই দেখা হয়নি বাংলাদেশ জাতীয় দলের নির্বাচক সাবেক অধিনায়ক হাবিবুল বাশার সুমনেরও। আজ দেখা হয়ে গেলো কোচের সাথে এ দুজনের। ক্রিকেট অপারেশন্স আকরাম খাঁনের অফিসে দেখা হলো যখন সেখানে উপস্থিত ছিলেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নুও।
বাংলাদেশ ক্রিকেটের প্রধানদের অন্যতম এ পাঁচজনের আলোচনার এজেন্ডা ছিলো আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ। আপাতত একমাত্র ম্যাচের টেস্ট সিরিজের মধ্যেই রইলো সেই আলোচনা। চট্টগ্রামে টেস্ট ম্যাচ, উইকেট কেমন হবে?

টাইগারদের দলই বা কেমন হবে? কোন পজিশনে কে দক্ষ? আফগানিস্তানের শক্তিশালী দিক কোনটি। দুর্বলতা কোথায়? এসব প্রশ্নমালা সাজিয়ে এই সিরিজের রণনীতি ঠিক করতে বসেছিলেন শনিবার (২৪ আগস্ট) বাংলাদেশের নতুন কোচ রাসেল ডমিঙ্গো, টেস্ট অধিনায়ক সাকিব আল হাসান, প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু, নির্বাচক হাবিবুল বাশার ও টিম অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান।

দীর্ঘ সময় ধরে সেই আলোচনা শেষে এসে আকরাম খান সাংবাদিকদের জানালেন, ‘সামনের মাসে আমাদের টেস্ট সিরিজ শুরু হচ্ছে। আফগানিস্তানের বিপক্ষে সেই টেস্ট সিরিজ নিয়ে আমরা কোচ-অধিনায়ক-নির্বাচকদের সবাই একসঙ্গে বসে আলাপ আলোচনা করলাম। দলের শক্তি কিভাবে আরো বাড়াতে হবে। কোন রণনীতি নিয়ে খেলতে হবে। এসব নিয়ে আমরা বেশ সফল একটা আলোচনা করেছি। সামনের সময়েও এমন আরো বৈঠক হবে।’
অবশ্য প্রথম বৈঠকে এই থিঙ্ক ট্যাঙ্ক বড় একটা সিদ্ধান্তে পৌঁছে গেছেন। আফগানিস্তানের বিপক্ষে এক ম্যাচের টেস্ট সিরিজের উইকেট কি বাংলাদেশ কি ভাবছে সেই প্রশ্নের উত্তরে আকরাম খান যা বললেন, তার অর্থ দাঁড়াচ্ছে -বাংলাদেশ চট্টগ্রাম টেস্টে আফগানিস্তানকে পেস উইকেটে স্বাগত জানাবে!

ক্রিকেট অপারেশন্স আকরাম বলছিলেন, ‘উইকেটে হয়তো তেমন কোনো পরিবর্তন আসবে না। তবে আমরা চেষ্টা করছি এই সিরিজে যেন ট্রু উইকেট হয়। ফাস্ট বোলাররা যাতে সুবিধা পায়। উইকেটে যেন ঘাস থাকে সেই চেষ্টা করছি। বলতে পারেন, আমাদের তেমন ফাস্ট বোলার নেই। কিন্তু তাই বলে বসে থাকলে তো চলবে না। আমাদের তো শুরু করতেই হবে। নাই বলে যে আমরা পুরোপুরি চুপচাপ বসে থাকবো তাও কিন্তু না।

আমাদের যা আছে তাই নিয়ে শুরু করতে হবে। গত দুবছর ধরে আমরা উইকেট অনেক উন্নত করেছি। আমাদের পেস বোলাররাও এখন সংখ্যায় অনেক বাড়ছে। দেশের বাইরে খেলতে গিয়ে আমাদের যেন আর কোনো সমস্যা না হয়- সেজন্য আমরা ঘরের মাঠের উইকেটগুলো ভালো করার চেষ্টা করছি।’

টাইগারদের নির্বাচক, কোচ ও অধিনায়কের এই গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকের সার্বিক দিক প্রসঙ্গে আকরাম খান জানালেন, ‘খেলাটা যেহেতু হোমে। তাই আমাদের রণনীতি তৈরির একটা বাড়তি সুবিধা তো আমরা অবশ্যই পাবো। তাই সেই বিষয় গুলো আলোচনা হয়েছে। অধিনায়ক কি চান। নির্বাচকরদের পরিকল্পনা কেমন এই সিরিজকে ঘিরে। কার কি চাহিদা সেটা নিয়ে সবাই নিজ নিজ মতামত রেখেছেন। টিম অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে আমি ওদেরকে কতখানি সহায়তা করতে পারবো- এসব বিষয়ের সার্বিক দিক নিয়ে আলোচনা হয়েছে।-পূর্বপশ্চিম ডটকম

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
আগষ্ট ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« জুলাই   সেপ্টেম্বর »
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া