১৩ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং | ২৯শে ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

adv

৫৪ হাজার ডেঙ্গু রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন

ডেস্ক রিপাের্ট : ডেঙ্গু আক্রান্তদের মধ্যে ৫৪ হাজার ৯৫৬ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।

এ দিকে গত ৫ দিন ধরে হাসপাতালগুলোতে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা ওঠা-নামা করছে। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় (বৃহস্পতিবার সকাল ৮ থেকে শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত) ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে ১ হাজার ৪৪৬ জন।

এর পূর্বের ২৪ ঘণ্টায় (বুধবার সকাল ৮টা থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা) ১ হাজার ৫৯৮ জন, এর পূর্বের ২৪ ঘণ্টায় এই সংখ্যা ছিল ১ হাজার ৬২৬ এবং তার পূর্বের ২৪ ঘণ্টায় ছিল ১ হাজার ৫৭২ জন। অর্থাৎ ক্রমান্বয়ে রোগীর সংখ্যা কমছে সেটি বলা যাচ্ছে না।

শুক্রবার ঢাকাসহ সারা দেশের বিভিন্ন স্থানে ৩ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

যদিও চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ২৩ আগস্ট পর্যন্ত সরকারি হিসাবে মৃতের সংখ্যা দেখানো হয়েছে ৪৭ জন। একই সময়ে ডেঙ্গুতে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬১ হাজার ৩৮ জন। তবে বেসরকারি হিসাবে মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা আরও বেশি হবে বলে জানায় সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সূত্র। স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের সহকারী পরিচালক আয়েশা আক্তার জানান, ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে এ পর্যন্ত ছাড়পত্র পেয়েছেন ৫৪ হাজার ৯৫৬ জন। বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৬ হাজার ৩৫ জন। এর মধ্যে ঢাকার সরকারি-বেসরকারি ৪১টি হাসপাতালে ৩ হাজার ৪১১ জন এবং অন্যান্য জেলায় ২ হাজার ৬২৪ জন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগ নিয়ন্ত্রণ বিভাগের পরিচালক অধ্যাপক ডা. সানিয়া তাহমিনা জানান, ঢাকা ও ঢাকার বাইরের ভর্তি রোগীদের ৯০ শতাংশই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এ ছাড়া ২৪ ঘণ্টায় নতুন ভর্তি রোগীর সংখ্যাও বৃহস্পতিবারের তুলনায় ৯ শতাংশ কমেছে।

কন্ট্রোল রুমের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজধানীতে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি রোগী ভর্তি হয়েছে ঢাকা মেডিকেল কলেজে ১০১ জন। মিটর্ফোডে ৭১ জন, মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৭০ জন, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ৫০ জন। বেসরকারি হাসপাতালের মধ্যে হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট হাসপাতালে ২০ জন এবং ইসলামী ব্যাংক সেন্ট্রাল হাসপাতালে ২১ জন। এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা বিভাগের ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ১৯১ জন, ময়মনসিংহে ২৩ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ৯১ জন, খুলনায় ১৮০ জন, রাজশাহীতে ৫৪ জন, রংপুরে ২৬ জন, বরিশালে ১২৫ জন এবং সিলেটে ১৮ জন। এ সময়ে বান্দরবান ও ঝালকাঠি জেলায় নতুন কোনো ডেঙ্গু রোগীর তথ্য পাওয়া যায়নি।

এদিকে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে বাদশা মিয়া (২০) নামে আরও এক তরুণের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার দুপুর ২টা ১০ মিনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৬০২ নম্বর ওয়ার্ডের মেডিসিন বিভাগে তার মৃত্যু হয়। বাদশা কিশোরগঞ্জের মিঠামইন থানার বোরুনপুর গ্রামের মোতালেব মিয়ার ছেলে।

তার বড় বোন ফারজানা আক্তার জানান, ২১ আগস্ট ঢাকা মেডিকেলে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে সে ভর্তি হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার তার মৃত্যু হয়।

ঢামেক পুলিশ ক্যাম্পের পুলিশ পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া জানান, আইনি প্রক্রিয়া শেষে স্বজনরা বাদশা মিয়ার লাশটি নিয়ে যান।

অপরদিকে আরও দুই গৃহবধূর মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এরা হলেন সাতক্ষীরার গৃহবধূ শাহানারা খাতুন (৩৭) ও নাটোরের বড়াইগ্রামের গৃহবধূ ফরিদা বেগম (৪৮)।

ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে সাতক্ষীরায় শাহানারা খাতুন (৩৭) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। তিনি সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ছয়ঘরিয়া গ্রামের খলিলুর রহমানের স্ত্রী। তার স্বজনরা জানান, বৃহস্পতিবার রাত ১টার দিকে সাতক্ষীরা থেকে খুলনায় নেয়ার পথে ডুমুরিয়ায় তার মৃত্যু হয়। সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের চিকিৎসক ডা. আসাদুজ্জামান বলেন, শাহানারা খাতুন জ্বর নিয়ে ১৮ আগস্ট হাসপাতালে ভর্তি হন। বৃহস্পতিবার রাতে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনায় পাঠানো হলে পথিমধ্যে মৃত্যু হয়।

নাটোরের বড়াইগ্রামে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে ফরিদা বেগম (৪৮) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। নিহতের পারিবার সূত্র জানায়, গত শনিবার ফরিদা বেগম ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হন। প্রথমে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দিয়েও অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় মঙ্গলবার তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে তিনি মারা যান।-যুগান্তর

জয় পরাজয় আরো খবর

Comments are closed.

adv
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাতকার
adv
সব জেলার খবর
মুক্তমত
আর্কাইভ
আগষ্ট ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« জুলাই   সেপ্টেম্বর »
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  


বিজ্ঞাপন দিন

adv

মিডিয়া